শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
বিতর্কে সাফল্য
আরাফ আহমদ২০ ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং
বিতর্কে সাফল্য
বিতর্কের প্রতি ভালোবাসা থেকেই শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন স্বপ্নচারী ও উদ্যমী বিতার্কিকদের হাত ধরে প্রতিষ্ঠিত হয় ‘সাস্ট স্কুল অব ডিবেট’। ২০১৫ সালের ২৯ মার্চ ‘তবুও উড়বে ফিনিক্স, যুক্তির দ্রোহী আকাশে’ স্লোগানকে ধারণ করে যাত্রা শুরু করে সংগঠনটি। একটি অসাম্প্রদায়িক, প্রগতিশীল এবং মুক্তবুদ্ধি চর্চার কেন্দ্র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হওয়াই এর মূল উদ্দেশ্য। যেখান থেকে একদল তরুণ বেরিয়ে আসবে, যারা আবেগের চেয়ে যুক্তিকে প্রাধান্য দিবে।

ইংরেজি ও বাংলা উভয় মাধ্যমেই সাস্ট স্কুল অব ডিবেট (সাস্ট-এসডি) বিতর্ক চর্চা করে, তৈরি করে জাতীয় মানের বিতার্কিক। ইংরেজি মাধ্যমে ব্রিটিশ সংসদীয় বিতর্ক, এশিয়ান সংসদীয় বিতর্ক ও পাবলিক স্পিকিং এই তিন ভাবে এবং বাংলা মাধ্যমে এশিয়ান সংসদীয় বিতর্ক, ব্রিটিশ সংসদীয় বিতর্ক, সনাতনী বিতর্ক ও বারোয়ারির বিতর্ক চর্চা করে থাকে।

সংগঠনটির যাত্রা শুরু হয় ২০১৫ সালে। ঐ সময়ই ৬টি জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় রানার্সআপ হয়। ২০১৫ সালে বার বার হাত ছাড়া হয়ে যায় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব। ২০১৬ সালের শুরুতেই একটি জাতীয় বিতর্কে ৭ম বারের মতো রার্নাসআপ হয়। একই বছর সিলেট ওসমানি মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃক আয়োজিত জাতীয়                   বিতর্ক প্রতিযোগিতায় প্রথম বারের মতো  চ্যাম্পিয়ন হয় সাস্ট স্কুল অব ডিবেট, এরপর এক এক করে চ্যাম্পিয়ন ট্রপি আসতে থাকে সাস্ট এসডির হাতে।

একই বছরের জুন মাসে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ডিবেটিং সোসাইটি কর্তৃক আয়োজিত পরিবেশ বিতর্ক এবং জাহাঙ্গীরনগর ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং অর্গানাইজেশন কর্তৃক আয়োজিত জাতীয় বিতর্কে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। ২০১৭ সালের শুরুতেই সিলেটের কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদ কর্তৃক আয়োজিত বিতর্ক প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়। এরপর এপ্রিলের ১ম সপ্তাহে বিভাগীয় বিতর্ক সংগঠন সিলেট ডিবেট ফেডারেশন কর্তৃক আয়োজিত বিতর্ক উত্সবে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যায়ে চ্যাম্পিয়ন হয় সাস্ট এসডি, সর্বশেষ গত ৬ মে মাভাবিপ্রবি ডিবেটিং সোসাইটি কর্তৃক আয়োজিত আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে সাস্ট-এসডি।

বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের পাশাপাশি নিজেরাও আয়োজন করে বিতর্ক প্রতিযোগিতার। ২০১৬ সালের জানুয়ারি মাসে সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রথম বারের মতো এশিয়ান সংসদীয় বিতর্ক পদ্ধতিতে জাতীয় বিতর্কের আয়োজন করা হয়। এতে সারাদেশ থেকে ২৪টি বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩২টি দল অংশ গ্রহণ করে। এরপর ২০১৭ সালের মার্চ মাসে বাংলাদেশে প্রথম বারের মতো ব্রিটিশ সংসদীয় পদ্ধতিতে বাংলা বিতর্কের আয়োজন করে। এতে সারা দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ৩৬টি বিতর্ক দল অংশগ্রহণ করে।

এছাড়া ‘শহীদ রুমি প্ল্যানচেট বিতর্ক ২০১৫’ ও ‘শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস স্মারক ২০১৬’ নামক দুটি প্ল্যানচেট বিতর্কের আয়োজন করে সর্ব মহল থেকে প্রশংসা কুড়িয়েছিল। বিভিন্ন সময় রম্য বিতর্ক, আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় ও আন্তঃএসডি বিতর্ক প্রতিযোগিতা, বিভিন্ন দিবস কেন্দ্রিক বিতর্ক এবং প্রতি সপ্তাহে আয়োজন করে থাকে অনুশীলন বিতর্ক।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২০ নভেম্বর, ২০২০ ইং
ফজর৫:১৪
যোহর১১:৫৬
আসর৩:৪০
মাগরিব৫:১৯
এশা৬:৩৭
সূর্যোদয় - ৬:৩৫সূর্যাস্ত - ০৫:১৪
পড়ুন