এনক্রিপশনের পক্ষে জোরালো অবস্থান জাতিসংঘের
৩১ মে, ২০১৫ ইং
এনক্রিপশনের পক্ষে জোরালো অবস্থান জাতিসংঘের
যুক্তরাষ্ট্রসহ বিভিন্ন দেশের সরকারের পক্ষ থেকে তথ্য সুরক্ষার প্রযুক্তি এনক্রিপশনে নরজদারির সুযোগ রাখার জন্য প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। এরই মধ্যে শীর্ষস্থানীয় সব প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান এই উদ্যোগের বিরুদ্ধে নিজেদের অবস্থান পরিস্কার করেছেন। এনক্রিপশনে যাতে কোনো ধরনের নজরদারির সুযোগ তৈরি করা না হয়, তার জন্য তারা এর মধ্যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার কাছে চিঠিও পাঠিয়েছেন। এবারে এনক্রিপশনের পক্ষে নিজেদের অবস্থান ঘোষণা করেছে জাতিসংঘ। বাকস্বাধীনতার জন্য এনক্রিপশনকে প্রয়োজনীয় একটি টুল হিসেবে অভিহিত করে এনক্রিপশন ব্যবস্থাকে যথাসম্ভব শক্তিশালী করে তোলার আহ্বানই জানানো হয়েছে জাতিসংঘের পক্ষ থেকে। জাতিসংঘের মানবাধিকার দূতাবাসের বিশেষ প্রতিনিধি ডেভিড কায়ি এক প্রতিবেদনে জাতিসংঘের এমন অবস্থানের কথা জানিয়েছেন। এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘এনক্রিপশন এবং নিজের পরিচয় প্রকাশ না করার ব্যবস্থা, এককভাবে কিংবা একত্রে ব্যক্তির মতামত এবং বিশ্বাসের সুরক্ষায় একটি ব্যক্তিগত গোপনীয় ক্ষেত্র তৈরি করে থাকে।’ এই ধরনের টুলস ব্যক্তির মতামত প্রকাশের জন্য আশীর্বাদস্বরূপ জানিয়ে প্রতিবেদনে সতর্ক করা হয়েছে, এনক্রিপশন সফটওয়্যারকে কোনোভাবে দুর্বল করার অর্থ হলো এর সক্ষমতাকে কমিয়ে ফেলা। এমন সুযোগ তৈরি হলে ব্যক্তি তার প্রয়োজনে কোনো পরিচিতিমূলক তথ্য গোপন রাখতে ব্যর্থ হবে বলা হয়েছে এই প্রতিবেদনে। এতে বলা হয়েছে, বিশেষ করে বৈরি রাজনৈতিক, সামাজিক, ধর্মীয় বা আইনি প্রতিবেশে ব্যক্তির জন্য এই ধরনের সুযোগ তাকে প্রতিরক্ষার সুযোগ করে দেয়। কাজেই এই ধরনের সুবিধা ব্যবহারে কোনো ধরনের বিধিনিষেধ আরোপ রাষ্ট্র কর্তৃক করা উচিত নয়। তবে রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তার প্রয়োজনে এনক্রিপ্টেড তথ্য উদ্ধারের প্রয়োজন হতে পারে জানিয়েছে এই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সেক্ষেত্রে সুনির্দিষ্ট তথ্যটি উদ্ধারের ব্যবস্থা থাকা প্রয়োজন; সার্বিকভাবে সকলের প্রতি ব্যবহারের উপযোগী ব্যবস্থা থাকা নিরাপদ নয়।

n তরিকুর রহমান সজীব

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩১ মে, ২০২০ ইং
ফজর৩:৪৪
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩৬
মাগরিব৬:৪৪
এশা৮:০৭
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৩৯
পড়ুন