পুলিশের গাফিলতির তদন্ত চলছে, কমিটি সময় পেল আরো ৩ দিন
বিশেষ প্রতিনিধি২২ মে, ২০১৭ ইং
রাজধানীর বনানীর রেইনট্রি হোটেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রী ধর্ষণের ঘটনায় বিলম্বে মামলা নেওয়া এবং দুই ছাত্রীর সঙ্গে আচরণের ব্যাপারে থানা পুলিশের গাফিলতির তদন্ত শেষ হয়নি।  তদন্ত কমিটির রিপোর্ট দেওয়ার কথা ছিল গতকাল রবিবার। কিন্তু তদন্ত শেষ না হওয়ায় কমিটি আরো তিন দিন সময় নিয়েছে।

এদিকে সাফাত আহমেদের গাড়ি চালক বিল্লাল হোসেন গতকাল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দী দিয়েছেন। এ নিয়ে এ মামলায় দোষ স্বীকার করে তিনজন জবানবন্দী দিয়েছেন। অপর দুজন হচ্ছেন সাফাত ও সাদমান সাকিফ। জবানবন্দী শেষে আদালতের নির্দেশে বিল্লালকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

এ মামলায় পাঁচ আসামির মধ্যে চারজনকে  কারাগারে পাঠানো হলো। অপরদিকে গতকাল  রিমান্ডে থানা আসামি নাঈম আশরাফের ডিএনএ পরীক্ষার অনুমতি দিয়েছে আদালত। একইভাবে গতকাল আদালত অনুমতি দিয়েছে সাফাত আহমেদ ও সাদমান সাকিফের কাছ থেকে জব্দ করা পাঁচটি মোবাইল ফোন ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) কাছে পাঠানোর। 

পুলিশের গাফিলতি তদন্তে গঠিত কমিটির প্রধান ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মিজানুর রহমান বলেন, নির্ধারিত সময়ে তদন্ত শেষ করা সম্ভব হয়নি। এ কারণে আরো তিন দিন সময় নেওয়া হয়েছে। তবে আশা করি এ সময়ের মধ্যেই তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে পারবো। বিলম্বের কারণ সম্পর্কে তিনি বলেন, গত ৪, ৫ ও ৬ মে (ওই সময় মামলা দায়েরের জন্য দুই তরুণী বনানী থানায় গিয়েছিলেন) থানায় দায়িত্বরত দুইজন কনস্টেবল ছুটিতে রয়েছেন। এ কারণেই সময় বাড়াতে হয়েছে।

পুলিশের গাফিলতি পাওয়া গেছে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত এ  ব্যাপারে কিছু বলা যাচ্ছে না। তবে যেসব অভিযোগ পাওয়া গেছে তা খুব গুরুত্বের সাথে যাচাই বাছাই করে দেখা হচ্ছে। তদন্ত শেষ হলেই বলা যাবে কার কতটুকু অবহেলা ছিল।

অপর এক প্রশ্নের জবাবে মিজানুর রহমান বলেন, বনানী থানায় মামলা দায়েরের ক্ষেত্রে প্রাথমিকভাবে কিছু অনিয়ম ও অসঙ্গতি আমাদের নজরে এসেছে। এ সব অনিয়ম ও অসঙ্গতির সঙ্গে যে-ই জড়িত থাকুক না কেন, তদন্ত প্রতিবেদনে তার শাস্তির সুপারিশ করা হবে।

সাফাতের গাড়ি চালক

বিল্লালের জবানবন্দি

চার দিনের রিমান্ড শেষে গতকাল বিকালে ঢাকা মহানগর হাকিম মাহমুদুল হাসানের আদালতের খাস কামরায় সাফাত আহমেদের গাড়ি চালক বিল্লাল হোসেনের জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়। মামলার এজাহারে বিল্লালের বিরুদ্ধে ধর্ষণের ঘটনা ভিডিও করার অভিযোগ করা হয়েছে। মামলা দায়েরে পর বিল্লাল ভিডিওটি মুছে ফেলেন বলে জানিয়েছেন। এর আগে সাফাত এবং সাদমান আদালতে দোষ স্বীকার করে জবানবন্দি প্রদান করে।

মোবাইল ফোন সিআইডিতে

সাফাত আহমেদ ও সাদমান সাকিফের কাছ থেকে জব্দ করা পাঁচটি মোবাইল ফোন ফরেনসিক পরীক্ষার জন্য পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) কাছে পাঠানোর অনুমতি দিয়েছে আদালত। গতকাল রবিবার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারের পরিদর্শক ইসমত আরা এমির আবেদনে ঢাকার মহানগর হাকিম দেলোয়ার হোসেন এ আদেশ দেন।

নাঈম আশরাফের ডিএনএ পরীক্ষার অনুমতি

মামলার অন্যতম আসামি নাঈম আশরাফের ডিএনএ পরীক্ষার অনুমতি দিয়েছে আদালত। মামলার তদন্ত কর্মকর্তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম গতকাল পরীক্ষার অনুমতির আদেশ দেন। পুলিশের অপরাধ ও তদন্ত বিভাগ-সিআইডি’র ফরেনসিক বিভাগকে এ পরীক্ষার নির্দেশনা দেওয়া হয়। এর আগে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিএমপির ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারের পরিদর্শক ইসমত আরা এমা নাঈম আশরাফের ডিএনএ পরীক্ষার আবেদন করেন।

গত ২৮ মার্চ বনানীর রেইনট্রি হোটেলে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রী ধর্ষণের শিকার হন। এই অভিযোগে ৬ মে বনানী থানায় পাঁচজনের বিরুদ্ধে মামলা করেন ঘটনার শিকার এক ছাত্রী।

বনানী পুলিশের গাফিলতি তদন্তে গত ১৩ মে ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মিজানুর রহমানকে প্রধান করে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠিত হয়। তিন কার্যদিবসের মধ্যে এ কমিটিকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার কথা ছিল। এ ছাড়া গঠন করা হয় মামলা তদন্ত কমিটি। যুগ্ম কমিশনার (ক্রাইম) কৃষ্ণপদ রায়কে প্রধান করে চার সদস্য বিশিষ্ট এ কমিটি গঠন করা হয়।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২২ মে, ২০২০ ইং
ফজর৩:৪৮
যোহর১১:৫৫
আসর৪:৩৪
মাগরিব৬:৪০
এশা৮:০১
সূর্যোদয় - ৫:১২সূর্যাস্ত - ০৬:৩৫
পড়ুন