গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে অভিযান : কাদের
ইত্তেফাক রিপোর্ট২২ মে, ২০১৭ ইং
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতেই গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে অভিযান চালিয়েছে। তারা (বিএনপি) যখন ক্ষমতায় ছিলেন তখন দফায় দফায় আমাদের পার্টি অফিসে হামলা, নেতা-কর্মীদের ওপর নির্যাতন চালানো হয়েছিল। গতকাল রবিবার ধানমন্ডির একটি কমিউনিটি সেন্টারে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক জেলাগুলোর দফতর ও উপদফতর সম্পাদকদের নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের মতবিনিময় সভায় ওবায়দুল কাদের সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে আরো বলেন, ‘হঠাত্ কী কারণে খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে অভিযান, সেটা নিয়ে আমি শনিবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশের আইজির সঙ্গে কথা বলেছি। তারা আমাকে জানিয়েছেন যে গোয়েন্দা সংস্থার নির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে পুলিশ অভিযান চালিয়েছে।’ ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর শনিবারের অভিযানের সঙ্গে গণতন্ত্রের সম্পর্ক আবিষ্কার করেছেন। তারা যখন ক্ষমতায় ছিল, তখন আমাদের পার্টি অফিসে দফায় দফায় হামলা হয়েছে। আমাদের সিআরআইয়ের (সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশন) অফিস সিলগালা করে দিয়েছিল। তাদের সময় আওয়ামী লীগ অফিসে শুধু অভিযান চালানোই হয়নি, দলীয় কার্যালয়ে ঢুকে নেতা-কর্মীদের ওপর নির্যাতনও করা হয়েছিল। অফিস লক্ষ করে বোমা হামলা হয়েছে। এসব কি তারা ভুলে গেছে? তখন কি গণতন্ত্র সঠিক ছিল?’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ের সামনে তত্কালীন বিরোধীদলীয় নেতা শেখ হাসিনার ওপর সুপরিকল্পিতভাবে যে গ্রেনেড হামলা করেছিল, সেটা কোন গণতন্ত্র? আইভি রহমানসহ ২৩ জনের রক্ত ঝরল। এটা রক্তাক্ত গণতন্ত্র ছিল। দৃষ্টান্ত কারা স্থাপন করেছে? বড় বড় কথা বলে লাভ নেই। গণতন্ত্রের নামে যে হত্যা-নির্যাতন করা হয়েছে, আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে একুশে ফেব্রুয়ারি সমাবেশ করতে দেওয়া হয়নি; এটা কি গণতন্ত্র?’ বিএনপির উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, আপনারা গণতন্ত্রের নামাবলি গায়ে দিয়ে অতীতে ঘৃণ্য-জঘন্য অসংখ্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। সেটা এদেশের মানুষ ভুলে যায়নি। তিনি বলেন, নতুন সদস্য সংগ্রহ ও সদস্য নবায়নের মধ্য দিয়ে দল থেকে সব ধরনের পরগাছা দূর করা হবে। তিনি বলেন, ‘সদস্য সংগ্রহের ব্যাপারে নেত্রীর গাইড লাইন ফলো করবেন যাতে আগাছা, পরগাছা ঢুকতে না পারে।’

মতবিনিময় সভায় আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ড. আব্দুর রাজ্জাক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি, জাহাঙ্গীর কবির নানক, আবদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক আহমেদ হোসেন, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী; সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক অসিম কুমার উকিল, দফতর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্য মারুফা আক্তার পপি প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২২ মে, ২০২০ ইং
ফজর৩:৪৮
যোহর১১:৫৫
আসর৪:৩৪
মাগরিব৬:৪০
এশা৮:০১
সূর্যোদয় - ৫:১২সূর্যাস্ত - ০৬:৩৫
পড়ুন