শেষ আটের পথে অ্যাটলেটিকো
২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭ ইং
স্পোর্টস ডেস্ক

কোচ দিয়েগো সিমিওনের অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ বিপক্ষ বেয়ার লেভারকুসেনের মাঠে চার গোল দিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে অনেকখানি এগিয়ে থাকল। গেলবারও ২০১৪ সালের রানার্স আপ দলটি গত মঙ্গলবারের এ খেলাটি শেষ করে ৪-২ গোলে।

অ্যাটলেটিকো কোচ সিমিওনি জানান, তারা ফুটবলের প্রতি তাদের যে আবেগ ও লড়াকু মনোভাব সেটাই মাঠে করে দেখিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমরা আরো বড় ব্যবধানে জিততে পারতাম। কিন্তু তাদের গোলরক্ষক গ্রিয়েজম্যানের দুটো শট দুর্দান্তভাবে ফিরিয়ে দিয়েছে। বিপক্ষের মাঠে খেলতে গেলে নিজের ওপর আস্থা থাকাটা গুরুত্বপূর্ণ এবং আমার ধারণা সেটা আমাদের যথেষ্ট পরিমাণেই ছিল।’

সিমিওনি আরো বলেন, ‘লেবারকুসেন পাল্টা লড়াই চালিয়ে দ্বিতীয়ার্ধে তাদের মতো করে খেলায় ফিরেছিল। তারপরও সব মিলিয়ে এটা ছিল আমাদের জন্য সন্তোষজনক সন্ধ্যা।’

স্প্যানিশ লিগের ক্লাবটি বিপক্ষের মাঠ বে অ্যারেনায় ১৭তম মিনিটে সাউলের চমত্কার নৈপুণ্যে এগিয়ে যায়। ডান দিক দিয়ে বক্সে ঢুকে বাঁ-পায়ের বিদ্যুত্ গতির বাঁকানো শটে লক্ষ্যভেদ করেন স্পেনের এই মিডফিল্ডার। এর আট মিনিট পর দারুণ এক পাল্টা আক্রমণে কেভিন গামেইরোর পাস ফাঁকায় পেয়ে অনায়াসে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন অঁতোয়ান গ্রিজমান। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতে জার্মান মিডফিল্ডার কারিম বেলারাবি ব্যবধান কমালে লড়াইয়ে ফেরে লেভারকুসেন। কিন্তু ৫৮তম মিনিটে গামেইরো ব্যবধান ৩-১ করলে অ্যাটলেটিকোর জয় অনেকটাই নিশ্চিত হয়ে যায়। ৬৭তম মিনিটে মন্টেনেগ্রোর ডিফেন্ডার স্তেফান সাভিচের আত্মঘাতী গোলে লড়াই ফের নাটকীয় রূপ নেয়। তবে ৮৬তম মিনিটে স্পেনের তারকা স্ট্রাইকার ফের্নান্দো তরেস কাছ থেকে হেডে বল জালে পাঠালে সব অনিশ্চয়তার শেষ হয়।-বিবিসি/বিডিনিউজ

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২০ ইং
ফজর৫:১০
যোহর১২:১৩
আসর৪:২১
মাগরিব৬:০১
এশা৭:১৪
সূর্যোদয় - ৬:২৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৬
পড়ুন