ভার্সিটির স্টুডেন্টদের টিউশানি সমাচার
১১ মার্চ, ২০১৮ ইং
ভার্সিটির স্টুডেন্টদের টিউশানি সমাচার
 

ভার্সিটির স্টুডেন্টরা টিউশনি করানোর জন্য একেক সময় একেকরকম পন্থা অবলম্বন করে। সেরকম কিছু পন্থার কথা ফাঁস করে দিচ্ছেন সুদিপ্ত কুমার নাগ

ফার্স্ট ইয়ারে টিউশনি করানোর ধরন

এই সময় ছেলেরা টিউশনির জন্য মেয়ে ছাত্রী চায়। আবার শর্ত দিয়ে দেয় যে, নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির মেয়েদের পড়াতে চাই। এরপরে শর্ত দেয় যে, সপ্তাহে তিনদিনের বেশি পড়ানো যাবে না। শেষপর্যন্ত যখন সুন্দরী মেয়েদের টিউশনি পায় না, তখন টিউশনির জন্য যেকোনো মেয়ে পেলেই হবে—এরকম চিন্তা করে।

সেকেন্ড ইয়ারে টিউশনি করানোর ধরন

এত দিনেও যখন টিউশনি পায় না, তখন চেষ্টা করে যে, টিউশনির জন্য মেয়ে না হলেও চলবে বরং ছেলেকে পড়াতে রাজি।

থার্ড ইয়ারে টিউশনি করানোর ধরন

এসময় ডেটিং খরচ সামলানোর চাপ থাকে আবার নিজের খরচ সামলানোরও চাপ থাকে। তাই এসময় টিউশনি করানোর জন্য সকল শর্ত বাদ হয়ে যায়। টিউশনি দুটো পেলেই হলো—এরকম চিন্তা থার্ড ইয়ারে কাজ করে।

ফাইনাল ইয়ারে টিউশনি করানোর ধরন

ফাইনাল ইয়ারে চাকরির পড়াশোনা সেইসঙ্গে বিসিএসের কোচিং করতে হয়। তাই এসময় সবাই চায়—টিউশনি একটা পেলেই হলো। এসময় যে টাকায় টিউশনি পাওয়া যায়, সেই টাকায় রাজি হয়ে যায়। এমনকি ক্লাস টাইমে টিউশনি থাকলেও সেসময় পড়াতে রাজি থাকে।

 

               

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১১ মার্চ, ২০১৮ ইং
ফজর৪:৫৬
যোহর১২:০৯
আসর৪:২৭
মাগরিব৬:০৯
এশা৭:২১
সূর্যোদয় - ৬:১১সূর্যাস্ত - ০৬:০৪
পড়ুন