আদালত | The Daily Ittefaq

ঝিনাইগাতীতে ধর্ষণের পর হত্যা, ৩ যুবকের মৃত্যুদণ্ডাদেশ

ঝিনাইগাতীতে ধর্ষণের পর হত্যা, ৩ যুবকের মৃত্যুদণ্ডাদেশ
ঝিনাইগাতী (শেরপুর) সংবাদদাতা২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ইং ১৮:৫৩ মিঃ
ঝিনাইগাতীতে ধর্ষণের পর হত্যা, ৩ যুবকের মৃত্যুদণ্ডাদেশ
শেরপুরের ঝিনাইগাতীতে বিনা আক্তার (১৫) নামে এক কিশোরীকে ধর্ষণের পর হত্যার দায়ে ৩ যুবকের মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান এ রায় ঘোষণা করেন।
 
দণ্ডপ্রাপ্তরা হল- উপজেলার কাংশা ইউনিয়নের বাকাকুড়া গ্রামের ফজল হকের ছেলে মো. আমানুল্লাহ (২৩), হাবিবুর রহমানের ছেলে নুরে আলম (২৮) ও মৃত মজিবর রহমানের ছেলে কালু মিয়া (৩০)। এদের মধ্যে কালু মিয়া পলাতক রয়েছে।
 
অন্যদিকে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় হারুনুর রশিদ (২৮), আনোয়ার হোসেন আনু (১৮) ও সুন্দরী বেগম (৩৬) নামে মামলার অপর ৩ আসামিকে খালাস দেওয়া হয়েছে।
 
ট্রাইব্যুনালের পিপি অ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু জানান, ঝিনাইগাতী উপজেলার কাংশা ইউনিয়নের পশ্চিম বাকাকুড়া গ্রামের শফিকুল শেখের মেয়ে ও স্থানীয় ব্র্যাক স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির শিক্ষার্থী বিনা আক্তারের (১৫) সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলে স্থানীয় বখাটে যুবক মো. আমানুল্লাহ। ওই সম্পর্ক বিনার মা-বাবা মেনে না নেওয়ায় ২০১৬ সালের ৯ জুলাই বিনা আক্তারকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে আমানুল্লাহর হাতে তুলে দেয় কালু মিয়া। পরে আমানুল্লাহ বিনা আক্তারকে বিভিন্ন জায়গায় রেখে ধর্ষণ করে। এক পর্যায়ে মুখে এসিড ঢেলে নির্যাতন করে ও শ্বাসরোধে হত্যা করে বাকাকুড়া এতিমখানার পাশে শিলঝোড়া খালে লাশ ফেলে রাখে। ২১ জুলাই ওই খাল থেকে বিনার লাশ উদ্ধার করা হয়। ওইদিনই বিনার মা বাদী হয়ে ঝিনাইগাতী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। তদন্ত শেষে ওই বছরের ২০ অক্টোবর ৬ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন ঝিনাইগাতী থানার এসআই আব্দুল করিম। বিচারিক প্রক্রিয়ায় বাদী, জবানবন্দী গ্রহণকারী ম্যাজিস্ট্রেট ও চিকিৎসকসহ ১৬ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বৃহস্পতিবার ওই রায় ঘোষণা করে আদালত।
 
ইত্তেফাক/বিএএফ
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
৩০ মার্চ, ২০২০ ইং
ফজর৪:৩৭
যোহর১২:০৪
আসর৪:৩০
মাগরিব৬:১৭
এশা৭:৩০
সূর্যোদয় - ৫:৫৩সূর্যাস্ত - ০৬:১২