শিক্ষাঙ্গন | The Daily Ittefaq

জবির ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্রে সাংবাদিকদের বাধা, তবে ছাত্রলীগের অবাধ প্রবেশ

জবির ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্রে সাংবাদিকদের বাধা, তবে ছাত্রলীগের অবাধ প্রবেশ
জবি সংবাদদাতা১৩ অক্টোবর, ২০১৮ ইং ১৭:৪২ মিঃ
জবির ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্রে সাংবাদিকদের বাধা, তবে ছাত্রলীগের অবাধ প্রবেশ
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস। ছবি: ইত্তেফাক
জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের ‘ইউনিট-৩’ (বাণিজ্য শাখা)-এর ভর্তি পরীক্ষা কেন্দ্রে সাংবাদিক প্রবেশে বাধা ও খবর সংগ্রহে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলেও ছাত্রলীগের কর্মীদের প্রবেশ করতে দেখা গেছে। 
 
সরেজমিনে দেখা যায়, শনিবার সকাল ১০টা থেকে ইউনিট-৩ এর ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়। কেন্দ্রে ভর্তি পরীক্ষার্থী ছাড়া কেউ প্রবেশ করতে না পারলেও ছাত্রলীগ কর্মীরা হেল্প ডেক্সের নামে ভিতরে প্রবেশ করছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের মুল ফটকের বাইরে থেকে দেখা যায়, নতুন ভবনের আন্ডার গ্রাউন্ডে বেশ কিছু ছাত্রলীগ কর্মী আনাগোনা করছে।
 
এসময় বেশ কয়েকজন ছাত্রকে তাদের পরিচয় জানতে চাইলে তারা নিজেদের ছাত্রলীগ কর্মী বলে পরিচয় দেন। তারা বলেন, শিক্ষার্থীদের মাঝে পানি বিতরণ করার জন্য ক্যাম্পাসের ভিতরে প্রবেশ করেছেন। অথচ বৈরী আবহাওয়ায় ছাত্রলীগের হেল্প ডেস্ক থেকে কোনো ধরনের পানি বিতরণের চিত্র দেখা যায়নি।
 
এসময় পুলিশ কিংবা প্রশাসনের কাউকে তাদের বাধা দিতেও দেখা যায়নি। অপরদিকে অন্যান্য দিনের মতো উপাচার্যের প্রেস ব্রিফিং এর জন্য সাংবাদিকরা ভিতরে প্রবেশ করতে চাইলে তাদের সরাসরি বাধা দেন প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা। পরে মুল ফটকের বাইরে তাদের হাতে প্রেস রিলিজ ধরিয়ে দেওয়া হয়।
 
এ ব্যাপারে জবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আশরাফুল ইসলাম আকাশ বলেন, পূর্ববর্তী পরীক্ষাগুলোতে জবির সাংবাদিকরা ভর্তি জালিয়াতিসহ বিভিন্ন অনিয়ম তুলে ধরেছে বিধায় একটি শ্রেণী উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে সাংবাদিকদের খবর সংগ্রহে বাধা দিয়েছে। যা স্বাধীন সাংবাদিকতা ক্ষেত্রে অনেক বড় হুমকি। 
 
পরীক্ষা কেন্দ্রে ছাত্রলীগ কর্মীদের প্রবেশের বিষয়ে জানতে জবির শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি তরিকুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক শেখ জয়নুল আবেদিনকে একাধিকবার ফোন করেও পাওয়া যায়নি। একারণে তাদের বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। 
 
ছাত্রলীগকে প্রবেশ করতে দিলেও সাংবাদিকরা বাইরে থাকার বিষয়টি জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর ড.নুর মোহাম্মদ বলেন, ছাত্রলীগের কাউকে অনুমতি দেওয়া হয়নি। তবে তারা কেন্দ্রের ভিতরে পানি বিতরণ করছিল। এছাড়া দুয়েকজন হয়তো ‘বিশেষ’ দরকারে প্রবেশ করতে পারে। তাছাড়া সাংবাদিক প্রবেশেও কোনো নিষেধাজ্ঞা ছিল না।
 
উল্লেখ্য, লিখিত ভর্তি পরীক্ষার জন্য ৬৪৯টি আসনের বিপরীতে ম্যানুয়াল রোলধারী ১৫ জন শিক্ষার্থীসহ সর্বমোট ১১,১৩৮ জন শিক্ষার্থী মনোনীত হয়েছে। 
 
ইত্তেফাক/জেডএইচ
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১ জুন, ২০২০ ইং
ফজর৩:৪৪
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩৬
মাগরিব৬:৪৪
এশা৮:০৭
সূর্যোদয় - ৫:১০সূর্যাস্ত - ০৬:৩৯