শিক্ষাঙ্গন | The Daily Ittefaq

'ঘ' ইউনিটের ফল বাতিলের দাবিতে উত্তপ্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

'ঘ' ইউনিটের ফল বাতিলের দাবিতে উত্তপ্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার১৮ অক্টোবর, ২০১৮ ইং ২১:০৭ মিঃ
'ঘ' ইউনিটের ফল বাতিলের দাবিতে উত্তপ্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ প্রমাণ পাওয়া সত্বেও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদভূক্ত 'ঘ' ইউনিটের ফল প্রকাশ করায় বিক্ষোভ করেছেন শিক্ষার্থীরা। বৃহস্পতিবার একাধিক ব্যানারে শিক্ষার্থীরা প্রকাশিত ফল বাতিল করে পুনরায় পরীক্ষা নেওয়ার দাবিতে বিক্ষোভ করেন।  
 
প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার অনুষ্ঠিত ‘ঘ’ ইউনিটের পরীক্ষার পূর্বেই প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ উঠেছিল। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এটা নিয়ে তদন্ত কমিটি গঠন করে। কমিটি একজন ভর্তিচ্ছুর মোবাইলে সকাল ৯টা ১৭ মিনিটে প্রশ্ন আসে। প্রশ্ন ফাঁসের প্রমাণ পাওয়া সত্বেও পরীক্ষা বাতিল না করে গত মঙ্গলবার ফল প্রকাশ করায় বিক্ষোভ করছে শিক্ষার্থীরা।
 
সাধারণ ছাত্র পরিষদের আল্টিমেটাম
'ঘ' ইউনিটের পরীক্ষা ২৪ ঘন্টার মধ্যে বাতিলের দাবিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে আল্টিমেটাম দিয়েছে সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। বৃহস্পতিবার বেলা ১টায় টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের সামনে বিক্ষোভ মিছিল শেষে পরিষদের যুগ্ম আহ্বায়ক ফারুক হোসেন এই ঘোষণা দেন। এর আগে পরীক্ষা বাতিলসহ চারদফা দাবিতে অন্তত পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী  বিক্ষোভ মিছিল করে। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন ঘুরে পুনরায় টিএসসিতে আসে।
 
ফারুক হোসেন বলেন, ২৪ ঘন্টার মধ্যে 'ঘ' ইউনিটের পরীক্ষা বাতিল করে স্বচ্ছ প্রক্রিয়ায় আবার পরীক্ষা নিতে হবে। অন্যথায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সমাজ বিন্দু পরিমাণ ছাড় দিবে না। তারা কোনো নাটক সহ্য করবে না।
 
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস স্বীকার করে নিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, এরপরও পরীক্ষার ফল প্রকাশ করা লজ্জাজনক। অনতিবিলম্বে পরীক্ষার ফল বাতিল করুন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শুধু একটি বিশ্ববিদ্যালয় নয়, এটি আমাদের ইতিহাস ও ঐতিহ্য। এটা রক্ষা করার জন্য প্রয়োজনে ছাত্র সমাজ তাদের জীবন দিবে।
 
পুনরায় পরীক্ষা নেওয়ার দাবি ছাত্রলীগের
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের 'ঘ' ইউনিটের পরীক্ষা যাচাই-বাছাই সাপেক্ষে পুনরায় নেওয়ার দাবি জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগ। বৃহস্পতিবার সংগঠনটির ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সভাপতি সনজিত চন্দ্র দাস ও সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন সাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তারা এই দাবি জানান। 
 
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে তারা চার দফা দাবি জানিয়েছে। সেগুলো হলো, যাচাই-বাছাই সাপেক্ষে পুনরায় ভর্তি পরীক্ষা নেওয়া অথবা উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে বিশেষ ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে 'ঘ' ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার বিষয়ে সুস্পষ্ট প্রশাসনিক সিদ্ধান্তে  আসা, ডিজিটাল জালিয়াতি, প্রশ্নফাঁস বা যে কোনো ধরনের অসাদুপায় অবলম্বনকারীর বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ প্রশাসনিক ও আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া, সুস্পষ্ট তথ্য-প্রমাণ সাপেক্ষে জালিয়াতি, প্রশ্নফাঁস বা অসাদুপায় উপায়ের মাধ্যমে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীর ছাত্রত্ব বাতিল এবং আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা এবং আধুনিক, যুগোপযোগী ও মান সম্মত ভর্তি পরীক্ষার স্বার্থে শিক্ষাবিদ, বিশেষজ্ঞ, সিনেট, সিন্ডিকেট, অংশীজন এবং ছাত্র সংগঠনগুলো প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে পলিসি ডিবেটের মাধ্যমে ভর্তি পরীক্ষার পদ্ধতির সংস্কার করা।
 
এ বিষয়ে ছাত্রলীগের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন ইত্তেফাককে বলেন, ছাত্রলীগ সুস্পষ্ট চারটি দাবি তুলে ধরেছে। আমরা চেয়েছি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মেধাভিত্তিক প্রতিযোগীতার মাধ্যমেই কেবল শিক্ষার্থীরা ভর্তি পারবে। এর বাইরে যদি কেউ ভর্তি হয়ে থাকে তার বিরুদ্ধে যেন প্রশাসন দৃষ্টান্তমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের দাবিকে সাধুবাদ জানিয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।
 
অনশনরত শিক্ষার্থী ঢামেকে চিকিৎসাধীন
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের 'ঘ' ইউনিটের পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে অনশনরত আইন বিভাগের ছাত্র আখতার হোসেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রব্বানীর সামনেই অসুস্থ্য হয়ে পড়েন। বৃহস্পতিবার বেলা দুইটার দিকে তাকে ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসার জন্য নেওয়া হয়। 
 
প্রসঙ্গত, 'ঘ' ইউনিটে  পরীক্ষার পূর্বেই প্রশ্ন ফাঁসের ঘটনায় পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে গত মঙ্গলবার দুপুর বারোটা থেকে ঢাকা বিশ্ব বিদ্যালয়ের টিএসসির সন্ত্রাসবিরোধী রাজু ভাস্কর্যের সামনে আমরণ অনশন শুরু করেন আখতার হোসেন। সে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।
 
এর আগে বেলা পৌনে দুইটার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রব্বানী রাজু ভাস্কর্যে আসেন। 'ঘ' ইউনিটের পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে অনশনরত আখতারকে তিনি বোঝাতে থাকেন। আখতার পরীক্ষায় প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে কি না সেটা প্রক্টরের কাছে জানতে চান। এ সময় তিনি হাত-পা ছুঁড়তে থাকলে তাকে সবাই ধরে রিকসায় নিয়ে ঢাকা মেডিকেলের দিকে যায়।
 
এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রব্বানী বলেন, আমরা গিয়েছিলাম। প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টি আমরা পর্যালোচনা করছি বলে তাকে বুঝেয়েছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য দেশের বাইরে আছেন। সেই সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে বলেছি। সে অসুস্থ বোধ করছে বলে আমরা তাকে ঢাকা মেডিকেলে নেওয়ার ব্যবস্থা করেছি। সে এখন ডাক্তারদের তত্ত্বাবধানে আছে।
 
সাদা দলের বিবৃতি
‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল বাতিল ও পুনরায় পরীক্ষা গ্রহণ এবং প্রশ্নপত্র ফাঁসের সাথে জড়িতদের শাস্তির দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় বিএনপিপন্থী শিক্ষকদের প্যানেল সাদা দল। দলের আহ্বায়ক অধ্যাপক এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম সাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এসব দাবি জানানো হয়। 
 
প্রশাসনের বক্তব্য
ফল বাতিলের দাবিতে আন্দোলনের বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ ইত্তেফাককে বলেন, আমরা এখনও তথ্য পর্যালোচনা করছি। উপাচার্য দেশের বাইরে আছেন। তিনি এলে পর্যালোচনাকৃত তথ্য নিয়ে আমরা বসব, তখন সিদ্ধান্ত হবে।
 
ইত্তেফাক/নূহু
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১ জুন, ২০২০ ইং
ফজর৩:৪৪
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩৬
মাগরিব৬:৪৪
এশা৮:০৭
সূর্যোদয় - ৫:১০সূর্যাস্ত - ০৬:৩৯