শিক্ষাঙ্গন | The Daily Ittefaq

কুবির বাসে হামলা, ১০ দিনেও গ্রেপ্তার হয়নি অপরাধীরা

কুবির বাসে হামলা, ১০ দিনেও গ্রেপ্তার হয়নি অপরাধীরা
কুবি সংবাদদাতা২১ অক্টোবর, ২০১৮ ইং ২১:৩৯ মিঃ
কুবির বাসে হামলা, ১০ দিনেও গ্রেপ্তার হয়নি অপরাধীরা
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়। ছবি: সংগৃহীত
কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুব) শিক্ষার্থীদের বাসে হামলার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ হতে মামলা করার ১০ দিন পার হলেও গ্রেপ্তার হয়নি কেউ। এতে তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীরা। 
 
গত ১২ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা কর্মকর্তা সাদেক হোসেন মজুমদার বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ১০-১৫ জনকে আসামি করে কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানায় মামলাটি করেন।
 
গত ১১ অক্টোবর বিকালে কুমিল্লা শহরের ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের সামনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী বহনকারী বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন সংস্থার ভাড়া করা বাসে হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। এতে এক শিক্ষার্থীসহ বাস ড্রাইভার মারাত্মকভাবে আহত হন। এর আগেও বিভিন্ন সময় শহরের সন্ত্রাসীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে হামলা চালায়। কিন্তু কোনো প্রতিকার পাওয়া যায়নি।
 
 
নাম প্রকাশ না করার শর্তে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষার্থী বলেন, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে হামলা একবার নয় কয়েকবার ঘটেছে, কিন্তু প্রশাসন বারবার আশ্বাস দেওয়ার পরও ঘটনাগুলো ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে। 
 
বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মাজহারুল ইসলাম হানিফ বলেন, আমরা শান্তি-শৃঙ্খলার কথা মাথায় রেখে ৬ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছিলাম, তার আগে পুলিশ আমাদের কাছে সময় চেয়েছিল কিন্তু পরিতাপের বিষয় তারা কথা রাখেনি। এ বিষয়গুলো নিয়ে আমরা হতাশা ও আতঙ্কের মধ্যে আছি। আমরা শিগগিরই গ্রেপ্তারের দাবিতে মাঠে নামবো এবং কোন অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে প্রশাসনই দায়ী থাকবে।
 
মামলার অগ্রগতি নিয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. কাজী মোহাম্মদ কামাল উদ্দীন ইত্তেফাককে বলেন, আমরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন কুমিল্লার কোতয়ালী মডেল থানায় মামলা করেছি। এবিষয়ে পুলিশ প্রশাসন কি ব্যবস্থা নিয়েছে সেটা আমার জানা নেই। আর গ্রেপ্তার করার দায়িত্ব হচ্ছে পুলিশের। আমি উপাচার্য ও পুলিশ প্রশাসনের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলবো।
 
এ বিষয়ে কোতয়ালী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আব্দুস সালাম মিয়ার কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ হতে যে মামলা হয়েছে সেটি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। মামলার তদন্ত চলছে। আমরা দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার প্রচেষ্টা চালাচ্ছি।
 
 
ইত্তেফাক/জেডএইচ
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
১ জুন, ২০২০ ইং
ফজর৩:৪৪
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩৬
মাগরিব৬:৪৪
এশা৮:০৭
সূর্যোদয় - ৫:১০সূর্যাস্ত - ০৬:৩৯