রাজনীতি | The Daily Ittefaq

আবার সংলাপের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন ড. কামাল

আবার সংলাপের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন ড. কামাল
ইত্তেফাক রিপোর্ট০৫ নভেম্বর, ২০১৮ ইং ০১:১৮ মিঃ
আবার সংলাপের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিলেন ড. কামাল
প্রথমবারের সংলাপের ‘অসম্পূর্ণ আলোচনা সম্পূর্ণ’ করতে আবারও সংলাপে বসার আগ্রহ প্রকাশ করে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনাকে চিঠি দিয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষনেতা ড. কামাল হোসেন। গতকাল রবিবার বেলা ১২টার দিকে কামাল হোসেন স্বাক্ষরিত ওই চিঠি ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে পৌঁছে দেন গণফোরামের প্রেসিডিয়াম সদস্য জগলুল হায়দার আফ্রিক। আওয়ামী লীগ কার্যালয়ের অফিস সহকারী আলাউদ্দিন ও বিএম মাসুদুল হাসান ওই চিঠি গ্রহণ করেন। এসময় গণফোরাম নেতা মোশতাক আহমেদ ও আ ও ম শফিকউল্লাহও উপস্থিত ছিলেন।
 
গতকালের চিঠিতে ড. কামাল বলেছেন, দীর্ঘসময় পর্যন্ত আলোচনার পরও আমাদের আলোচনাটি অসম্পূর্ণ থেকে যায়। সেইদিন আপনি বলেছিলেন, আমাদের আলোচনা অব্যাহত থাকবে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে অসম্পূর্ণ আলোচনা সম্পূর্ণ করার লক্ষ্যে অতি জরুরি ভিত্তিতে আমরা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের পক্ষে আবারও সংলাপে বসতে আগ্রহী। চিঠিতে তিনি আরও বলেন, এই ক্ষেত্রে দফাগুলোর সাংবিধানিক এবং আইনগত দিক বিশ্লেষণের জন্য উভয় পক্ষের বিশেষজ্ঞসহ সীমিত পরিসরে আলোচনা আবশ্যক।
 
ঐক্যফ্রন্ট নেতারা আশা করছেন দ্বিতীয়বার সংলাপের বিষয়েও তারা প্রধানমন্ত্রীর সাড়া পাবেন। এই বিশ্বাস থেকে নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকার গঠন ও নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের বিষয়ে প্রয়োজনে সংবিধানসম্মত একাধিক প্রস্তাব দেওয়ারও প্রস্তুতি নিচ্ছে ঐক্যফ্রন্ট। এলক্ষ্যে গতকাল সন্ধ্যায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের মতিঝিলের চেম্বারে সংবিধান ও আইন বিশেষজ্ঞদের নিয়ে এক পরামর্শ সভা করা হয়। মওদুদ ছাড়াও এতে অংশ নেন সংবিধান বিশেষজ্ঞ ড. শাহ্দীন মালিক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনের শিক্ষক ড. আসিফ নজরুল ও শেখ বোরহান উদ্দিন। ঐক্যফ্রন্ট নেতা সুলতান মোহাম্মদ মনসুরও এসময় উপস্থিত ছিলেন।
 
বৈঠক শেষে শাহ্দীন মালিক সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলেন, সংসদ বহাল বা ভেঙে দিয়ে নির্বাচন করার কথা বলা হয়েছে সংবিধানের একাধিক জায়গায়। কিন্তু সবাই জানে সংসদ বহাল থাকলে লেভেল প্লেইং ফিল্ড হবে না। সরকার পক্ষ বেশি ক্ষমতা ভোগ করবে। তিনি বলেন, আমরা ঐক্যফ্রন্টের আমন্ত্রণে এই বৈঠকে কয়েকজন আইন বিশেষজ্ঞ অংশ নিয়েছি। আমরা মনে করি, সুষ্ঠু, অবাধ ও অংশীদারিত্বমূলক নির্বাচন সংবিধান ও আইনি কাঠামোর মধ্যে থেকেও করা সম্ভব। তাই আইনি পথ বের করার জন্য আলোচনা করেছি।
 
শাহ্দীন মালিক বলেন, রাজনৈতিক সদিচ্ছা থাকলে আইনি কাঠামোর মধ্যে সমাধান সম্ভব। সংসদ ভেঙে দিয়ে নির্বাচন করার বিধান সংবিধানের অন্তত ১০ জায়গায় উল্লেখ আছে। তবে সংসদ মুলতবি কিংবা অকার্যকর করার কথা সংবিধানে নেই।
 
ইত্তেফাক/নূহু
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
২৫ মে, ২০২০ ইং
ফজর৩:৪৭
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩৫
মাগরিব৬:৪১
এশা৮:০৩
সূর্যোদয় - ৫:১৩সূর্যাস্ত - ০৬:৩৬