রাজনীতি | The Daily Ittefaq

ঠাকুরগাঁওয়ের উন্নয়ন তরান্বিত করতে দলীয় মনোনয়ন চান টিটো দত্ত

ঠাকুরগাঁওয়ের উন্নয়ন তরান্বিত করতে দলীয় মনোনয়ন চান টিটো দত্ত
ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি১২ নভেম্বর, ২০১৮ ইং ০৯:৫৫ মিঃ
ঠাকুরগাঁওয়ের উন্নয়ন তরান্বিত করতে দলীয় মনোনয়ন চান টিটো দত্ত
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে শুরু হয়েছে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম বিক্রি ও জমাদান প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। ১১ নভেম্বর রবিবার আওয়ামীলীগের দপ্তর সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ কাছে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে ঠাকুরগাঁও-১ আসন থেকে মনোনয়ন পত্র জমা দিলেন অরুনাংশু দত্ত টিটো।
 
প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বিক্রির প্রথম দিনে ঠাকুরগাঁও-১ আসন থেকে নৌকা মার্কার মনোনয়ন পত্র ক্রয় করেন ঠাকুরগাঁও জেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি এবং ঠাকুরগাও সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিঅরুনাংশু দত্ত টিটো। এ সময় অরুনাংশু দত্ত টিটোর সাথে ছিলেন স্থানীয় শতাধিক নেতাকর্মী।
 
ঠাকুরগাঁও পৌরসভার আশ্রম পাড়ায় ১৯৬৪ সালে জন্ম গ্রহণ করেন।. তিনি প্রথম রাজনৈতিক জীবন শুরু করেন ১৯৯৭ সালে। তখন তিনি ঠাকুরগাঁও জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ২০০১ সালে সরকার পতনের পরে তিনি বিএনপি, জামাতের মিথ্যা মামলার কারণে ১১ মাস কারাগারে বন্দি ছিলেন। কারাগারে তাকে বিভিন্ন নির্যাতন ও করা হয়েছে। এরপরে তিনি আবার ২০০৫ সালে জেলা যুবলীগের সভাপতি হন। ২০১২ সালের ডিসেম্বর মাসে তিনি সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হন। টিটো দত্ত ২০১৪ সালের ১৬ই এপ্রিলে উপজেলা নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন। তিনি দীর্ঘদিন থেকে রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত আছেন বলেই ঠাকুরগাঁও-১ আসনের মানুষের মনে ব্যাপক ভাবে জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন।
 
আওয়ামী লীগের তৃনমূলে এগিয়ে থাকা মনোনয়ন প্রত্যাশী বর্তমান সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অরুণাংশু দত্ত টিটো বলেন, তিনি ১৯৯৬ সালে জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক ও ২০০৫ থেকে ২০১২ সাল পর্যন্ত সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। ২০১২ সাল থেকে এখন পর্যন্ত তিনি সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি। তিনি দাবি করেন, ২০১৪ সালে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে তিনি দলের সমর্থনে প্রার্থী হয়েছিলেন। কিন্তু নিজ দলের কয়েকজন নেতা গোপনে তাঁর বিরোধিতা ও ষড়যন্ত্র করায় তিনি হেরে যান। নির্বাচনে ভোট পেয়েছিলেন ১ লক্ষ ১৯ হাজার ভোট।
 
টিটো আরো বলেন, আওয়ামী লীগের দুঃসময়ে রাজপথে থেকে বিএনপি-জামায়াতের বিরুদ্ধে নানা হয়রানির শিকার হতে হয়েছে তাঁকে। মিথ্যা অভিযোগে করা মামলায় তাঁকে সাত মাস ১১ দিন জেল খাটতে হয়েছিল। এই আসনের যুবক শ্রেণীর ৮০ শতাংশ সমর্থন তাঁর পক্ষে রয়েছে। মনোনয়নের ক্ষেত্রে জেলা পর্যায়ে তৃণমূলে নির্বাচনের ভিত্তিতে প্রার্থী বাছাই হলে তিনি বিপুল সমর্থন পাবেন। কারণ জনপ্রতিনিধি না হয়েও তিনি নিজ দল ও সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। মনোনয়ন পেলে তিনি বিপুল ভোটে নির্বাচিত হবেন এবং বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাকে অব্যাহত রাখতে সব পদক্ষপ গ্রহণ করবেন।
 
তিনি আরো বলেন, ঠাকুরগাঁয়ের মানুষের ভালোবাসায় আমি মুগ্ধ। আশাকরি জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাকে নৌকা মার্কায় মনোনয়ন দিবেন এবং এই এলাকার মানুষের জন্য কাজ করার সুযোগ করে দিবেন। আমি ঠাকুরগাঁও বাসীর কাছে দোয়া ও আশীর্বাদ চাই।
 
ইত্তেফাক/এমআই
 
এই পাতার আরো খবর -
সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
facebook-recent-activity
৬ নভেম্বর, ২০১৯ ইং
ফজর৫:০৭
যোহর১১:৫০
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩২
সূর্যোদয় - ৬:২৭সূর্যাস্ত - ০৫:১০