ইরানি গোলাপের সৌরভে
২৭ আগষ্ট, ২০১৫ ইং
ইরানি গোলাপের সৌরভে
গোলশিফতেহ ফারহানিকে এখন চেনে দুনিয়াজুড়ে অনেকেই। ইরানের জনপ্রিয় মেধাবী এই অভিনেত্রী নিজের যোগ্যতায় আন্তর্জাতিক অঙ্গনে উঠে এসেছেন অনেক আগেই। হলিউডের ছবিতে নায়িকা হয়েছেন। ফ্রান্সের ছবিতে অভিনয় করছেন। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উত্সবে এ পর্যন্ত ১৪ বার সেরা অভিনেত্রী বিবেচিত হয়েছেন। নিজ দেশে নিষিদ্ধ এই সুন্দরী অভিনেত্রীকে নিয়ে আলোচনা, বিতর্ক আর জল্পনা-কল্পনার শেষ নেই। বিশ্বখ্যাত ইরানি অভিনেত্রী গোলশিফতেহ ফারহানিকে নিয়ে লিখেছেন তাহমিনা মিলি

ইরানের মেয়ে হলেও এখন গোলশিফতেহ ফারহানির বসবাস করছেন ফ্রান্সের প্যারিসে। ৩২ বছর বয়সী গোলশিফতেহকে ইরানে নিষিদ্ধ করা হয়েছে আরও আগেই। এমনিতেই তার ওপর চটে ছিল ইরানি কর্তৃপক্ষ। কিছুদিন আগে ফরাসি ম্যাগাজিন মাদাম ফিগারোতে গোলশিফতেহের নগ্ন ছবি প্রকাশিত হওয়ার পর তার মৃত্যু পরোয়ানা জারি করেছে ইরানি কর্তৃপক্ষ। একসময় ইরানের সবচেয়ে জনপ্রিয় এবং মেধাবী অভিনেত্রী হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন তিনি। ১৫টি উল্লেখযোগ্য ইরানি চলচ্চিত্রে প্রধান নারী চরিত্রে অভিনয় করেছেন গোলশিফতেহ যেগুলো দেশে তো বটেই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র অঙ্গনেও ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছে। তার বাবা ছিলেন একজন নাট্য নির্দেশক ও অভিনেতা। তার বোনও অভিনেত্রী। মাত্র ৫ বছর বয়সেই পিয়ানো বাজানো শুরু করেন গোলশিফতেহ। এরপর তেহরানের মিউজিক স্কুলে ভর্তি হয়ে যান। সঙ্গীতের ছাত্রী হলেও অভিনয়েও তার জোঁক ছিল। মাত্র ১৪ বছর বয়সেই প্রখ্যাত ইরানি চলচ্চিত্রকার দারিয়ুস মেহের জুইয়ের ‘দ্য পিয়ার ট্রি’ ছবিতে অভিনয় করে তেহমান ফজর ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কার পেয়ে যান। এরপর থেকে একে একে বিখ্যাত সব ইরানি চলচ্চিত্রকারদের সেরা সব চলচ্চিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পেয়ে যান গোলশিফতেহ ফারহানি। এর মধ্যে দারিয়ুস মেহের জুইয়ের ‘সন্তরি’, আব্বাস কিয়ারোস্তামির ‘শিরিন’ ও আসগার ফারহাদির ‘অ্যাবাউট এলি’র মতো বিশ্বব্যাপী ঝড় তোলা সব ছবি রয়েছে। এ ছাড়াও তার অভিনীত অন্যান্য আলোচিত ইরানি ছবির মধ্যে রয়েছে ‘এম ফর মাদার’, ‘হাফ মুন’ প্রভৃতি। এভাবেই হলিউডি ছবি ‘বডি অব লাইজ’-এ অভিনয়ের সুযোগ পেয়ে যান গোলশিফতেহ। এ ছবিতে লিওনার্দো ডি ক্যাপ্রিও এবং রাসেল ক্রোর মতো জনপ্রিয় হলিউডি অভিনেতার সঙ্গে অভিনয় করে তাক লাগিয়ে দেন সবাইকে। ইরান সরকারের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও গোলশিফতেহ ‘বডি অব লাইজ’ ছবির প্রিমিয়ারে অংশ নিতে দেশ ছাড়েন। ইরানে তার সর্বশেষ অভিনীত ছবি ‘অ্যাবাউট এলি’। অভিনয় ছাড়াও ইরানে একজন সঙ্গীতশিল্পী হিসেবেও তার জনপ্রিয়তা ছড়িয়ে পড়েছিল। তেহরানের একটি আন্ডারগ্রাউন্ড রক ব্যান্ডের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন গোলশিফতেহ। বর্তমানে হলিউডি এবং ফরাসি সিনেমায় নিজেকে ব্যস্ত করে তুলেছেন এই ইরানি অভিনেত্রী। ইরানি গোলাপের সৌরভ এখন ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বব্যাপী। এ পর্যন্ত প্রায় ৩২টি ছবিতে অভিনয় করেছেন গোলশিফতেহ। এর মধ্যে রয়েছে হলিউডের বিখ্যাত ছবি ‘বডি অব লাইজ’, ‘এক্সোডাস’ ‘গডস অ্যান্ড কিং’, ‘জাস্ট লাইক এ ওম্যান’। তার আগামী ছবির মধ্যে রয়েছে ‘রুলিস কিমিয়া’। যার নির্মাতা প্রখ্যাত ইরানি চলচ্চিত্রকার দারিয়ুস মেহেরজুই। ছবিটি নির্মিত হচ্ছে বিখ্যাত উপন্যাস ‘কিমিয়া খাতুন’ অবলম্বনে। ওদিকে একটি ভারতীয় সিনেমায় গোলশিফতেহ ফারহানি অভিনয় করতে যাচ্ছেন। অনুপ সিং পরিচালিত রোমান্টিক মিউজিক্যাল ধাঁচের ছবিটিতে প্রখ্যাত অভিনেতা ইরফান খানের সঙ্গে সুন্দরী এই ইরানি নায়িকাকে দেখা যাবে ইরফান খান তাকে ভারতে আসার আমন্ত্রণ জানালে তাতে সাড়া দিয়েছেন ভারতের জয়সলমিরে নতুন ছবিটির শুটিং হবে। ভারতের খাবার, সিনেমা, পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাওয়ানোর জন্য শুটিংয়ের আগেই গোলশিফতেহকে ভারতে আনছেন ইরফান খান। তিনি ইরানি এই নায়িকার জন্য একটি অভিনয় কর্মশালার আয়োজনও করেছেন। ইরান ছেড়ে ফ্রান্সে বসবাস করলেও কোনো আক্ষেপ বা দুঃখ নেই গোলশিফতেহর। তিনি বলেন, ‘প্যারিসে আমি অনেক ভালো আছি। এখানে আমি স্বাধীনভাবে সবকিছু করতে পারছি, যা ইরানে কোনোভাবেই করতে পারতাম না। একজন নারী হিসেবে আমার পূর্ণ স্বাধীনতা ভোগ করছি প্যারিসের জীবন যাপনে।’

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৭ আগষ্ট, ২০১৯ ইং
ফজর৪:২০
যোহর১২:০১
আসর৪:৩৩
মাগরিব৬:২৫
এশা৭:৪০
সূর্যোদয় - ৫:৩৮সূর্যাস্ত - ০৬:২০
পড়ুন