মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুকে ভালোবেসে রাজু আলীম
২৭ আগষ্ট, ২০১৫ ইং
মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুকে ভালোবেসে রাজু আলীম
মুক্তিযুদ্ধ, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের উপর তথ্যচিত্র, শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতির ওপর অনুষ্ঠান নির্মাণ, লেখালেখি ও

গবেষণাসহ সুন্দর নাটক নির্মাণ করে আলোচনায় এসেছেন রাজু আলীম। বর্তমানে তিনি চ্যানেল আইয়ের প্রোগ্রাম ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার বর্তমান ও আগামী ভাবনা নিয়ে কথা বলেছেন ইমরান হক

টেলিভিশন মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধ, শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতি এবং বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে সর্বাধিক কাজ আপনি করছেন। এ বিষয়ে আপনার ভাবনার কথা জানতে চাই।

আমি মুক্তিযুদ্ধ-পরবর্তী সময়ের মানুষ। যতটুকু জেনে-শুনে, গবেষণা করে পেয়েছি, নতুন প্রজন্মের কাছে মুক্তিযুদ্ধকে উপস্থাপন করার চেষ্টা করেছি। আপনারা হয়তো জেনে থাকবেন বাংলাভাষা ও মুক্তিযুদ্ধকে নিয়ে আমার কাজগুলো হলো—‘ভাষা আমার অহংকার’, মুক্তিযুদ্ধ আমার অহংকার’, ‘হূদয়ে মুক্তিযুদ্ধ’ এবং নাসির উদ্দিন ইউসুফের উপস্থাপনায় ‘মুক্তিযুদ্ধ প্রতিদিন’ এক হাজার পর্বেরও বেশি প্রযোজনা করেছি। এই অনুষ্ঠানটি পরবর্তীতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে বাংলাদেশ টেলিভিশনেও প্রচার হয়েছিল। অতিসম্প্রতি, ‘বঙ্গবন্ধুর আত্মকথন’ অনুষ্ঠানটি প্রতিদিন চ্যানেল আইতে রাত ৮টা ৪৫ মিনিটে এবং বিটিভি এবং বিটিভি ওয়ার্ল্ডে রাত ১০টার ইংরেজি সংবাদের পরে প্রচারিত হচ্ছে। অনুষ্ঠানটির সূচনাপর্বের ভূমিকা পাঠ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। অনুষ্ঠানটির মূল পরিকল্পনায় রয়েছেন ফরিদুর রেজা সাগর ও পরিচালনা করেছেন শাইখ সিরাজ। প্যানেল প্রযোজক হিসেবে রয়েছি আমি এবং শহিদুল আলম সাচ্চু। চ্যানেল আইয়ের স্লোগান ‘হূদয়ে বাংলাদেশ’। এই স্লোগানকে সামনে রেখেই আমরা এগিয়ে চলেছি। মুক্তিযুদ্ধ, দেশাত্মবোধ, বাঙালি এবং প্রগতিশীল চেতনার মধ্য দিয়ে বড় হয়েছি। অসাম্প্রদায়িকতা আমাদের রক্তে প্রবাহিত। সে কারণেই চ্যানেল আইয়ের ষোল বছরে মুক্তিযুদ্ধ, শিল্প-সাহিত্য এবং বঙ্গবন্ধু, রবীন্দ্রনাথ, নজরুলসহ সমস্ত বিশেষ অনুষ্ঠানগুলো নির্মাণের সাথেই আমার সম্পৃক্ততা রয়েছে। কবিতা লেখা, সাংবাদিকতার বাইরে টেলিভিশন মিডিয়ায় অনুষ্ঠান নির্মাণ করে যতটুকু পরিচিতি পেয়েছি, তার বেশিরভাগই ফরিদুর রেজা সাগর এবং শাইখ সিরাজের প্রাপ্য। চ্যানেল আই আমাকে মুক্তিযুদ্ধ এবং বঙ্গবন্ধুকে উপস্থাপনের সুযোগ দিয়েছে। আমি তাদের কাছে কৃতজ্ঞ।

 

কবি, নাট্যকার, সাংবাদিক ও কর্পোরেট মিডিয়া ব্যক্তিত্ব হিসেবেও আপনার যথেষ্ট পরিচিতি রয়েছে। এতসব কাজ সফলভাবে একসাথে রক্ষা করে চলেন কিভাবে?

আমি আমার কাজ করে যাচ্ছি, কবিতা লিখছি, শিল্প-সাহিত্যের চর্চা করছি এবং কর্পোরেট কমিউনিকেশনে আমার যতটুক ুযোগাযোগ সেটি আমাকে চ্যানেল আই করিয়ে দিয়েছে। আমার সাংবাদিকতার হাতেখড়ি হয়েছিল দৈনিক ইত্তেফাকে রাহাত খানের মাধ্যমে। পরে সেবা প্রকাশনীর কাজী আনোয়ার হোসেনের সাথে কাজ করার সুযোগ হয়। সেই অভিজ্ঞতাগুলোও এখন কাজে লাগছে।

 

আপনি নিজের লেখা নাটক ছাড়াও দেশের বিখ্যাত অনেকেরই গল্প নিয়ে নাটক নির্মাণ করেছেন। যা অনেক সুনাম কুড়িয়েছে। এ বিষয়ে আপনার অনুভূতির কথা জানতে চাই।

শামসুর রাহমানের গল্প অবলম্বনে ‘বর্ষা রাতের নূপুরধ্বনি’, ‘বৃষ্টির ফুল’, সৈয়দ শামসুল হকের ‘নিষিদ্ধ লোবান’, ‘নির্বাসিতা’, আল মাহমুদের ‘পাতার শিহরণ’,  হাসান আজিজুল হকের ‘মন তাঁর শঙ্খিনী’, রাহাত খানের ‘নারী’, রাবেয়া খাতুনের ‘কদমফুল মেয়ে’, ইমদাদুল হক মিলনের ‘মেয়েটির কোনো দোষ ছিল না’, ড. মুহম্মদ জাফর ইকবালের ‘একজন দুর্বল মানুষ’, আনিসুল হকের ‘সর্বনাশের আশায়’, আবদুল গাফফার চৌধুরীর ‘সম্রাটের ছবি’, ড. ফজলুল আলমের রবীন্দ্রনাথকে নিবেদিত ‘রঙিন বসনপ্রান্ত’ কুষ্টিয়ার কুঠি বাড়িতে নির্মাণ করেছি।  এছাড়া রবীন্দ্রনাথের বিখ্যাত গল্প মধ্যবর্তিনী অবলম্বনে ‘বালিকা সুন্দরী’ নামে নাটকটি নির্মাণ করে দর্শকদের ভালোবাসা পেয়েছি। আমরা লেখা, নির্দেশিত ও পরিচালিত নাটকের সংখ্যা প্রায় ত্রিশটি।

 

আপনার বর্তমান কাজ সম্পর্কে জানতে চাই।

চ্যানেল আইতে শোকের মাস আগস্টজুড়ে ‘বঙ্গবন্ধুর আত্মকথন’-এর প্যানেল প্রযোজক হিসেবে কাজ করছি। জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের মৃত্যুবার্ষিকীর বিশেষ অনুষ্ঠান নির্মাণসহ আগামী সেপ্টেম্বরে আরও বেশকিছু নতুন কাজ শুরু করব।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৭ আগষ্ট, ২০১৯ ইং
ফজর৪:২০
যোহর১২:০১
আসর৪:৩৩
মাগরিব৬:২৫
এশা৭:৪০
সূর্যোদয় - ৫:৩৮সূর্যাস্ত - ০৬:২০
পড়ুন