নারী জাগরণে নিবেদিতপ্রাণ
তাসমিমা হোসেনকে বর্ণাঢ্য সংবর্ধনা
ওয়াদুদ আলী, রংপুর০৮ ডিসেম্বর, ২০১৬ ইং
তাসমিমা হোসেনকে বর্ণাঢ্য সংবর্ধনা
 

দৈনিক ইত্তেফাকের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক তাসমিমা হোসেন বলেছেন, ‘তরুণসমাজকে অন্ধকার জগত্ থেকে ফিরিয়ে আলোর মুখ দেখাতে সামাজিক-সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের বিকল্প নেই। সংস্কৃতি চর্চা নেশায় আসক্ত ছাত্র-যুবসমাজকে আলোর পথ দেখাতে পারে।’ গত ২৯ নভেম্বর রংপুর সফরে এসে এক বর্ণাঢ্য সংবর্ধনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ওইদিন রাতে রংপুর টাউনহল মিলনায়তনে রংপুর বিভাগ উন্নয়ন আন্দোলন পরিষদ আয়োজিত সংবর্ধনা সভায় সভাপতিত্ব করেন পরিষদের আহ্বায়ক সংগঠক ও সমাজকর্মী সাংবাদিক ওয়াদুদ আলী। সংবর্ধিত প্রধান অতিথি তাসমিমা হোসেন বলেন, ‘মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় সংস্কৃতিকর্মীরা মুক্তিযোদ্ধা ও দেশবাসীকে যেভাবে সংগঠিত করেছিল তা ইতিহাসে অনন্য। ওই সময় সেসব গান, ব্যঙ্গ নাটকসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান মুক্তিযোদ্ধাদেরকে দেশ স্বাধীন করার লক্ষ্যে ব্যাপক উত্সাহ উদ্দীপনা জুগিয়েছিল। শুধু মুক্তিযুদ্ধ নয়; স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলন, সাম্প্রদায়িকতামুক্ত সমাজ গড়ার আন্দোলন, যুদ্ধাপরাধীর বিচারের আন্দোলনসহ প্রতিটি গণআন্দোলনে সংস্কৃতিকর্মীরাই দায়িত্বশীল ও অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন।’ তিনি রংপুরের সংস্কৃতিকর্মীদের মনোমুগ্ধকর পরিবেশনা দেখে আবেগতাড়িত হয়ে বলেন, ‘ঢাকার বাইরে এত মানসম্মত অনুষ্ঠান হতে পারে, তা আমার জানা ছিল না।’ রংপুরের আঞ্চলিক গান ভাওয়াইয়া সংগীতের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘রংপুর অঞ্চল সংস্কৃতির উর্বর ভূমি। এখানকার মানুষকে যুগ যুগ ধরে সংগ্রামী ও উজ্জীবিত করেছে এই সংস্কৃতি।’ তিনি সংস্কৃতিকর্মীদের আরও বেশি আত্মনিবেদিত হয়ে কাজ করে যাওয়ার আহ্বান জানিয়ে বলেন, ‘আপনারাই পারেন সমাজের সকল অসংগতি, অসামাজিক কার্যকলাপ কিংবা মাদকবিরোধী আন্দোলনের সফল নেতৃত্ব দিতে। জাতির ক্রান্তিকালে সংস্কৃতিকর্মীরাই আলোকবর্তিকা হিসেবে কাজ করে থাকে।’ রংপুর বিভাগ উন্নয়ন আন্দোলন পরিষদের তরুণ ছাত্র-যুবসমাজের কর্মস্পৃহা দেখে তিনি বলেন, ‘আপনারা সংগঠিতভাবে কাজ করে যান, তাহলে সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে বিশেষ ভূমিকা পালন করতে পারবেন।’ ঐতিহ্যবাহী টাউনহলের প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘বিভাগীয় শহরে এত সুন্দর মিলনায়তন রয়েছে, এখানে না আসলে আমি তা উপভোগ করতে পারতাম না।’ তাসমিমা হোসেনের সম্মানে আয়োজিত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারী রিনিঝিনি নৃত্যদলের মনোমুগ্ধকর পরিবেশনা দেখে এই দলকে তার সম্পাদিত জনপ্রিয় পাক্ষিক ‘অনন্যা’র অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার ব্যবস্থা করবেন বলে জানান। তিনি উপস্থাপকসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীদের শুদ্ধ উচ্চারণ ও বাচনভঙ্গির ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন, ‘তোমাদের মেধা ও মননশীলতা এই অঞ্চলকে আরও এগিয়ে নিয়ে যাবে।’ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের শুরু হয় জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে। এসময় উপস্থিত ছিলেন দৈনিক ইত্তেফাকের কার্যনির্বাহী পরিচালক মহিবুল আহসান শাওন, ব্যবস্থাপনা সম্পাদক আশিস সৈকত, ইনফরমেশন ম্যানেজার রেজা হাফিজ, অ্যাক্টিং ফিচার ইনচার্জ খালেদ আহমেদ, সিনিয়র রিপোর্টার আনোয়ার আলদীনসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। এর আগে রংপুর বিভাগ উন্নয়ন আন্দোলন পরিষদসহ বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী, ছাত্র-যুব সংগঠনের পক্ষ থেকে এই অঞ্চলের আলোকিত মানুষ তাসমিমা হোসেনকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। এসময় তাকে বেশ কয়েকটি ক্রেস্ট উপহার দেওয়া হয়। রংপুরের বিশিষ্ট কণ্ঠ তারকা লিটন পারভেজ মান্নার উপস্থাপনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে রংপুর অঞ্চলের ঐতিহ্যবাহী ভাওয়াইয়া সংগীতশিল্পী ক্লোজআপ ওয়ান তারকা রুমি, জনপ্রিয় ব্যান্ড তারকা এবং জনপ্রিয় নৃত্যশিল্পীরা অংশগ্রহণ করেন। ওই দিন দৈনিক ইত্তেফাক ও পাক্ষিক অনন্যা সম্পাদক তাসমিমা হোসেন সকালে ঢাকা থেকে বিমান যোগে সৈয়দপুরে অবতরণ করে রংপুরে এসে দৈনিক ইত্তেফাক আয়োজিত ‘রংপুর বিভাগ :সমস্যা, সম্ভাবনা ও উন্নয়ন’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন রংপুর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু। অনুষ্ঠানে রংপুর বিভাগের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী, ব্যবসায়ীসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক, আইনজীবী উপস্থিত ছিলেন। এক ঘণ্টার গোলটেবিল বৈঠক দীর্ঘ তিন ঘণ্টা চলে। ইত্তেফাক সম্পাদক তাসমিমা হোসেন নিজে প্রত্যেক বক্তার মূল দাবি ও সমস্যা সম্ভাবনাগুলোকে নোট নিয়ে সভাপতির বক্তব্যে দৈনিক ইত্তেফাকে যথাযথ গুরুত্ব দিয়ে প্রকাশ করবেন বলে আশ্বস্ত করেন। কিছু সমস্যার সমাধানে তিনি ব্যক্তিগতভাবে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে যোগাযোগ করবেন বলে জানান। এছাড়া তিনি রংপুর বিভাগের ইত্তেফাক প্রতিনিধি ও পত্রিকার এজেন্টদের সঙ্গে আন্তরিকতার সঙ্গে বৈঠক করেন। বৈঠকে উঠে আসা বিভিন্ন দাবিদাওয়া মেনে নেওয়ার আশ্বাস প্রদান করেন। গোলটেবিলে অংশগ্রহণকারী সাংবাদিক ও পত্রিকার এজেন্টরা রংপুরে ইত্তেফাকের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক তাসমিমা হোসেনের আগমন এবং খোলামেলা আলোচনায় অংশ নেওয়ায় অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, ‘দৈনিক ইত্তেফাক গণমানুষের পত্রিকা। এ কারণে তার সম্পাদক তৃণমূল পর্যায়ে এসে আমাদের সঙ্গে বৈঠক করেছেন।’ পরদিন তিনি দিনাজপুরে একই রকম অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণের পর পঞ্চগড় জেলায় গিয়ে পরিবার সদস্যদের সঙ্গে সাক্ষাতসহ আরও কিছু কর্মসূচিতে অংশ নেন।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ নভেম্বর, ২০১৯ ইং
ফজর৫:০৭
যোহর১১:৫১
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:২৭সূর্যাস্ত - ০৫:১০
পড়ুন