একটুখানি ভাবাবে ছবির গল্প, চরিত্ররা
জাহিদ আকবর১০ আগষ্ট, ২০১৭ ইং
একটুখানি ভাবাবে ছবির গল্প, চরিত্ররা
নয়নতারা (ভাবনা ) বাসা থেকে পালিয়ে এসে পুরান ঢাকার একটা অবাসিক হোটেলে ওঠে। হোটেলের কাজের মানুষ মুকু (পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়) তাকে দেখাশোনা করেন। ধীরে ধীরে দুজনার মধ্যে একটা নির্ভরতা তৈরি হয়। হোটেলে একজন মাস্তান নয়নতারার সঙ্গে অসত্ আচরণ করতে চান। সেখান থেকে মুকু তাকে বাঁচিয়ে একটা বস্তিতে নিয়ে আসেন। দুজনার এই নির্ভরতা একটা সময় বিয়েতে গড়ায়। পুরান ঢাকার যে বস্তিতে দুজন বাসা নেন। হঠাত্ করে দুদিন পানি সরবরাহ বন্ধ থাকে। পানির জন্য হাহাকার তৈরি হয়। নয়নতারা একটু পানি খাওয়ার জন্য বস্তির অনেকের কাছে অনুরোধ করে। কেউ পানি দেয় না তাকে। পাশের বস্তিতে পানি নিতে গেলে ঝগড়া বাঁধে। বেদম মার খায় নয়নতারা। ভিতরে ভিতরে প্রচণ্ড জেদি হয়ে ওঠে সে। পানি জমাতে থাকে। কিছুদিন পর আবার পানির সংকট তৈরি হয়। এরপর কী হয়, সেটা পর্দায় দেখে নিতে হবে। কেননা ছবি মুক্তির খুব বেশি দিন পার হয়নি।

শতভাগ মৌলিক গল্পের সিনেমা ‘ভয়ংকর সুন্দর’। গল্পের বিষয়বস্তু হিসেবে নতুনত্ব ছড়িয়ে রয়েছে পরতে পরতে। সাহিত্যিক মতি নন্দীর ‘বকবক শব্দ’ ও ‘জলের ঘূর্ণি’ গল্পের মিশেলে সমসাময়িক সময়ের পটভূমিতে কাহিনির বুনন ‘ভয়ংকর সুন্দর’। আখতারুজ্জামান ইলিয়াস, হাসান আজিজুল হক, শহীদুল জহিরের গল্প যেমন সব শ্রেণির পাঠকের  মননের গভীর প্রবেশ করে না। ছুঁতে পারে না। এই ছবির গল্পের বিষয়েও এমন একটা কিছু হতে পারে। এমন ছবির গল্প দেখার মতো  মানসিকতা কী আমাদের তৈরি হয়েছে? তার কারণ আমরা তো এখন সস্তা বিনোদন খুঁজি। তামিল, হিন্দি ছবির কপি সিনেমা না দেখলে আমাদের ভালো লাগে না। না লাগারই কথা। কারণ তামিল, হিন্দির কপিটাই আমাদের অনেকের কাছে মৌলিক হয়ে গেছে। তবে ‘ভয়ংকর সুন্দর’ ছবির কাহিনিতে ঢাকা শহরের এক অংশের প্রতিদিনের জীবন উঠে এসেছে। খুব সহজেই গল্পের কাছাকাছি চলে যাওয়া যাবে। যাদের অহেতুক গল্প, চরিত্র, অযথা মারমারি, আইটেম গান দেখার অভ্যেস তাদের কাছে হয়তো ভালো লাগবে না।

প্রথমেই ‘নয়নতারা’ চরিত্রের ভাবনাকে নিয়ে কিছু বলা প্রয়োজন। আহা! নয়নতারা ফুলের নামে নাম। একটা অজানা সুবাস ছড়িয়ে গেছেন  চারদিকে। প্রথম দৃশ্য থেকে শেষ পর্যন্ত মন খুলে অভিনয় করেছেন। গল্পের চরিত্র হয়ে উঠেছেন কী সহজে, অনায়াসে, অবলীলায়। কে বলবে এটা তার প্রথম ছবি। এমন সাবলীল, সহজ উপস্থিতি চোখ জুড়িয়ে দেয়, সঙ্গে প্রাণটাও। নিজের ভিতর থেকে বেরিয়ে কখন যে নয়নতারা হয়ে উঠেছেন সেটা নিজেও জানেন না। পানির অভাবে যখন সবাই বিপর্যস্ত,  পানি আনতে গিয়ে মার খাওয়ার দৃশ্য। একগ্লাস পানির জন্য হাহাকার! মনের কোথাও দাগ কেটে থাকে। প্রথম ছবিতে এমন সাবলীল অভিনয় ভাবনাকে অনেক দূর পথের ঠিকানার খোঁজ দেবে।

পরমব্রত চট্টোপাধ্যায় ‘মুকু’ চরিত্র হয়ে ওঠার অপ্রাণ একটা চেষ্টা করেছেন। গল্পের চরিত্র বনে যাওয়া খুব কঠিন, তা কিছুটা টের পেয়েছেন। কিছুটা কমতি ছিল, তবে উতরে যাওয়ার একটা চেষ্টা ছিল তার অভিনয়ে।

দিহানের চরিত্রটি বেশ ছোট্টই বলা যায় কিন্তু যতক্ষণ ছিলেন পর্দায়,  জ্বলজ্বল করছিলেন অভিনয়ের দ্যুতিতে। খাইরুল আলম সবুজ বেশ মানানসই লেগেছে রিকশাওয়ালার চরিত্রে। 

পুরো সিনেমার কথা বাদ দেওয়া যাক, ভাবনার মার খাওয়ার দৃশ্যেও স্বপ্নে বিভিন্ন মিশেল অনিমেষ আইচ ছাড়া কারো পক্ষে সেলুলয়েডে তুলে ধরা সম্ভব ছিল কী? সেলুলয়েডে গল্প বলাতে তিনি দক্ষ হয়ে উঠছেন। চিরচেনা গল্প ছেড়ে কিছুটা অচেনা গল্পের রাস্তায় হেঁটে যেতে পছন্দ করেন। গল্পের চরিত্রদের কাছ থেকে অভিনয় আদায় করতে জুড়ি নেই তার। গল্পের চরিত্র উপস্থাপন করেন পর্দায়, নায়ক-নায়িকা না, এটা বোঝা গেছে। এমন একটা গল্প এত সহজে পর্দায় তুলে আনার জন্য দীর্ঘ ধন্যবাদ পেতেই পারেন। আবহসংগীত ছবির একটা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। এটা অনেকেই অনুভব করেন না। অনেক কিছুর আভাস দেয় আবহ সংগীত। ইমন সাহা  ‘ভয়ংকর সুন্দর’ ছবির আবহসংগীত দিয়ে ছুঁয়ে দিয়েছেন দর্শকদের। প্রিন্স মাহমুদের সুরে মমতাজের কণ্ঠে ‘ছেড়ে এলাম বাড়ি’ গানটা একটা  একটা হাহাকার তৈরি করে বুকের কোথায় যেন। খায়ের খন্দকারে সিনেমাটোগ্রাফির মধ্যে একটা জাদু রয়েছে। পুরান ঢাকা, রাতের নদী, স্টিমার—আহা! চমত্কার।

ছবি দেখা শেষে হল থেকে বের হতে হতে একটুখানি ভাবাবেই। কিছু চরিত্র ঢুকে যাবে নিজের মধ্যে। নিজের মনের ভিতর কিছু গল্প রচিত হবে। কেননা ছোট গল্পের একটা আবহ রয়েছে ‘ভয়ংকর সুন্দর’ ছবিটার গল্পের মধ্যে। সেইটা খুব মন্দ না। নতুন একটা স্বাদের সন্ধান পাওয়া যায় ছবিটাতে।

পরিচালনা         :         অনিমেষ আইচ

অভিনয়            :         আশনা হাবিব ভাবনা,    পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়,   খাইরুল আলম সবুজ,    ফারুক আহমেদ, দিহান প্রমুখ

আবহ সংগীত     :         ইমন সাহা

র্দৈঘ্য                :         ১ ঘণ্টা ৫৩ মিনিট

মুক্তির তারিখ     :         ৪ আগস্ট

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১০ আগষ্ট, ২০২০ ইং
ফজর৪:১১
যোহর১২:০৪
আসর৪:৪০
মাগরিব৬:৩৯
এশা৭:৫৭
সূর্যোদয় - ৫:৩২সূর্যাস্ত - ০৬:৩৪
পড়ুন