প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি:মডেল এবং সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর
১২ নভেম্বর, ২০১৮ ইং
প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি:মডেল এবং সংক্ষিপ্ত প্রশ্নোত্তর
মডেল প্রশ্ন

বাংলা

মিরাজুল ইসলাম, প্রভাষক

ঢাকা রেসিডেনসিয়াল মডেল কলেজ

সময়: ২ ঘণ্টা ৩০ মিনিট                                          পূর্ণমান: ১০০

[সকল প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে। ডান পার্শ্বের সংখ্যা পূর্ণমান জ্ঞাপক।]

প্রদত্ত অনুচ্ছেদটি পড়ে ১ ও ২ নং প্রশ্নের উত্তর দাও:

মওলানা ভাসানী বুঝতে পেরেছিলেন পাকিস্তানের পশ্চিম অংশের শাসকরা ধর্ম ও জাতীয় সংহতির নামে পূর্ব বাংলার মানুষকে শোষণ করছে। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে পাকিস্তানি স্বৈরাচারী সরকারের বিরুদ্ধে প্রবল গণআন্দোলন গড়ে তোলেন। ১৯৭০ সালের ডিসেম্বরে তিনি পল্টন ময়দানে ভাষণ দেন। এই ভাষণে শোষণের এই কথাটিই বারবার উচ্চারণ করে জাতিকে সতর্ক করে দিয়েছিলেন তিনি। তিনি বলেছিলেন— পাকিস্তানি সরকার পূর্ব পাকিস্তানের জনগণের ওপর অত্যাচার ও নিপীড়ন চালাচ্ছে, এরূপ চলতে থাকলে পূর্ব পাকিস্তান একদিন স্বাধীন দেশ হয়ে যাবে। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ মধ্যরাত থেকে দেশব্যাপী পাকিস্তানি সৈন্যদের হত্যাযজ্ঞ শুরু হয়। এসময় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে শুরু হয় মুক্তিযুদ্ধ। মওলানা ভাসানীর টাঙ্গাইলের ঘরবাড়ি পাকিস্তানি সৈন্যরা পুড়িয়ে দেয়। মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেওয়ার জন্য তিনি ভারতে চলে যান। মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে তিনি প্রবাসী বাংলাদেশ সরকারের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য ছিলেন। ১৯৭১ সালে ১৬ ডিসেম্বর পাকিস্তানি সেনাবাহিনী আত্মসমর্পণ করলে তিনি স্বাধীন বাংলাদেশে ফিরে আসেন। স্বাধীনতার পরও কোনো পদমর্যাদা ও মোহ তাঁকে আকৃষ্ট করতে পারেনি। তিনি সবসময় জনগণের পাশে থেকে বিভিন্ন জনমুখী কর্মসূচি পালন করেন।

১.নিচের শব্দগুলোর অর্থ লিখ: (৫টি)                                               ৫

ক. উদগ্রীব খ. দাপটে গ. জেদি  ঘ. নিপীড়িত  ঙ. মোহ  চ. অনাড়ম্বর  ছ. বর্গি

২.নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লেখ:                                    ২+৪+৪ = ১০

ক. মওলানা ভাসানীকে কেন মজলুম জননেতা বলা হয়?

খ. মওলানা ভাসানীর জীবন থেকে তুমি কী শিখতে পেরেছ?

গ. কোনো পদমর্যাদা মওলানা ভাসানীকে আকৃষ্ট করতে পারেনি কেন?

নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে ৩ ও ৪ নম্বর প্রশ্নের উত্তর দাও:

এক মুদির দোকানে অনেক ইঁদুর বাস করত। প্রতিদিন রাতে তারা শস্যদানা, রুটি, বিস্কুট ও শুকনো যা পেত সব খেয়ে ও ছড়িয়ে-ছিটিয়ে নষ্ট করত। দোকানের মালিক ইঁদুরদের দৌরাত্ম্যে অস্থির হয়ে পড়লেন। দোকানের জিনিস নষ্ট হওয়ায় তাঁর ব্যবসায়ে লোকসান হতে লাগল। তিনি ভাবলেন, ‘এই সর্বনাশা ইঁদুরদের হাত থেকে আমাকে বাঁচাতে হবে।’ অনেক ভেবে তিনি একটা বড় মোটা বিড়াল দোকানে পুষতে লাগলেন। ফলে ইঁদুরদের একাধিপত্য কমতে শুরু করল। তারা বিড়ালের ভয়ে স্বাধীনভাবে চলাফেরা করতে পারছিল না। কারণ প্রতিদিনই বিড়াল দু-চারটি করে ইঁদুর ধরে মারতে লাগল। ইঁদুরেরা খুবই চিন্তায় পড়ে গেল। তারা সভা ডেকে বিড়ালের হাত থেকে মুক্তির উপায় আলোচনা করতে লাগল। প্রথমে কেউই কোনো উত্তর দিতে  পারল না। কিছুক্ষণ পর এক চালাক ইঁদুর উঠে দাঁড়িয়ে বলল, ‘বন্ধুগণ, বিড়াল খুব দ্রুত ও নি:শব্দে চলাফেরা করে বলে আমরা বোঝার আগেই সে আমাদের আক্রমণ করে। তাই বিড়ালের গলায় ঘন্টা বাঁধা দরকার বলে আমি মনে করি।’ অন্য এক ইঁদুর সমর্থন করে বলল, ‘ঘন্টার আওয়াজে আমরা বুঝতে পারব যে বিড়াল আসছে, তখন সবাই লুকাতে পারব।’ এক বয়স্ক ইঁদুর আস্তে আস্তে উঠে দাঁড়িয়ে বলল, ‘ভাইসব উল্লাস বন্ধ করো, তোমরা আমায় বলতে পারো সাহস করে বিড়ালের গলায় ঘন্টাটা বাঁধতে কে যাবে?’ মুহুর্তের মধ্যে সবাই চুপ। কেউ সাহস করে বলতে পারল না যে ‘আমি যাব বিড়ালের গলায় ঘন্টা বাঁধতে।’

৩. ছকে কয়েকটি শব্দ এবং শব্দার্থ দেওয়া আছে। উপযুক্ত শব্দটি দিয়ে নিচের বাক্যগুলোর শূন্যস্থান পূরণ করে উত্তরপত্রে লেখো।                     ১ × ৫ = ৫

শব্দ           শব্দার্থ      

অভিজ্ঞ       জ্ঞানী/বিশেষজ্ঞ           

দৌরাত্ম্য     নির্যাতন/অত্যাচার/উত্পীড়ন           

একাধিপত্য একজনের কর্তৃত্ব/সর্বোচ্চ শাসন      

সমর্থন        পক্ষাবলম্বন/স্বীকৃতি দেওয়া            

উল্লাস        পরম আনন্দ               

নি:শব্দে      শব্দহীনভাবে               

ক. স্কুলে ভালো ফল করে ছাত্রছাত্রীরা উল্লাস করছে।

খ. পলি নি:শব্দে পড়াশোনা করছে।

গ. মিথ্যা বলা আমি মোটেও সমর্থন করি না।

ঘ. দিন দিন মশার দৌরাত্ম্য বেড়েই চলেছে।

ঙ. কোনো কাজে একাধিপত্য না দেখিয়ে সবার মতামত নেওয়া উচিত।

৪.নিচের প্রশ্নগুলোর উত্তর লিখ:                                       ৩  × ৫ = ১৫                                                       

ক. দোকান মালিকের ব্যবসায় লোকসান হচ্ছিল কেন? দোকানিদের আর কীভাবে ক্ষতি হতে পারে তিনটি বাক্যে লিখ।

খ. সভায় বিড়ালের গলায় ঘন্টা বাঁধার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কেন? বিড়াল পোষার তিনটি প্রয়োজনীয়তা লিখ।

গ. ইঁদুর মারার পাঁচটি উপায় লিখ।

৫.নিচের ক্রিয়াপদের বর্তমান, ভবিষ্যত ও অতীত রূপ লিখ (৫টি): ১´৫ = ৫

ক. মেয়েরা ফুল তুলছে। খ. আনিকা মঞ্চে নাচবে। গ. পূর্বে আকাশে সূর্য ওঠেছিল।

ঘ. নবনী পরীক্ষা দিবে ঙ. শ্রেয়া স্কুলে গিয়েছিল চ. অমি ক্রিকেট খেলে।

 ছ. অহি বই পড়ছে।

৬.নিচের অনুচ্ছেদটি পড়ে নির্দেশনা অনুযায়ী পাঁচটি প্রশ্ন তৈরি কর (কে, কী, কোথায়, কীভাবে, কেন, কখন):                                           ১ ´৫ = ৫         

দুই বোন বাবা-মায়ের আদরের ছায়ায় বড় হয়। স্কুলে যাওয়ার পথে বুনোফুল ছিঁড়ে বেণীর সঙ্গে গেঁথে রাখে। ফড়িং ধরে। আবার আকাশে উড়িয়ে দেয়। ফুলের পাপড়ি ছিঁড়ে খাতার ভেতর চাপা দিয়ে রাখে। শুকিয়ে গেলে বাবার কপালে লাগিয়ে দিয়ে বলে, বাবা তোমার হাজার বছর আয়ু হোক। মায়ের কপালে লাগিয়ে দিয়ে বলে, মা তোমার ভাতের হাঁড়ি ভরা থাকুক।

                                                                                                                                                        

                                                                                                              মডেলের পরের অংশ আগামীকাল

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১২ নভেম্বর, ২০১৯ ইং
ফজর৪:৫৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৩৯
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩২
সূর্যোদয় - ৬:১১সূর্যাস্ত - ০৫:১২
পড়ুন