সাইবারজায়া ইউনিভার্সিটি কলেজ অব মেডিক্যাল সায়েন্সেস
সাইফুল ইসলাম২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ ইং
সাইবারজায়া ইউনিভার্সিটি কলেজ অব মেডিক্যাল সায়েন্সেস

আপনার উদ্দেশ্য যদি হয় বিদেশের মাটিতে স্বল্প খরচে মানসম্মত ডিগ্রি অর্জন, সেক্ষেত্রে আপনার প্রথম পছন্দের দেশ হতে পারে মালয়েশিয়া। বর্তমানে এশিয়ার বৃহত্ এডুকেশনাল হাব হিসেবে রূপ নিয়েছে দেশটি। এখানে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে অসংখ্য বিশ্বমানের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান। সাইবারজায়া ইউনিভার্সিটি কলেজ অব মেডিক্যাল সায়েন্সেস তারই একটি। সম্প্রতি মালয়েশিয়ার উচ্চশিক্ষা মন্ত্রাণালয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানটিকে ‘সেতারা’ পাঁচতারকা রেটিং প্রদান করেছে। ‘সেতারা’ হলো মালয়েশিয়ার সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের রেটিং সিস্টেম যা শিক্ষাদান এবং শিল্প সম্প্রদায়ের সাথে জড়িত অংশগুলোতে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর কর্মক্ষমতা পরিমাপ করে। মালয়েশিয়ার শিক্ষামন্ত্রী দাতো সেরি ইদ্রিস জুশু এই পাঁচতারকা রেটিং সার্টিফিকেটটি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে প্রদান করেন। তাই বর্তমানে সাইবারজায়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের খ্যাতি সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের আস্থা রাখার অন্যতম কারণ এই পাঁচতারকা রেটিং সার্টিফিকেটটি। সাইবারজায়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ প্রতিষ্ঠিত হয় ২০০৫ সালে। মালেশিয়ার প্রথম স্মার্ট শহর সায়বারজায়ায় অবস্থিত আধুনিক ও সবুজ-বান্ধব এই  ক্যাম্পাসটি ৫.৫৪ একর জামির ওপর নির্মিত যেখানে ৫ হাজারের বেশি শিক্ষার্থী একসঙ্গে লেখাপড়া করতে পারবেন। এখানে শিক্ষার্থীদের জন্য রয়েছে সর্বাধুনিক শিক্ষা সরঞ্জাম। পাশাপাশি বিশ্বমানের শিক্ষকদের আন্তরিক ব্যাবহার লেখাপড়ার পরিবেশকে করেছে আরও চমত্কার। যোগাযোগ ব্যবস্থাও অত্যান্ত সুবিধাজনক। কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে মাত্র ২০ মিনিট সড়কপথের দূরত্বে অবস্থিত ক্যাম্পাসটি। গত এক দশকে, সাইবারজায়া বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ শিক্ষাক্ষেত্রে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়টি থেকে ইতোমধ্যে ৮’শ জন ডাক্তার পাশ করেছেন। এখানে সমন্বিত এবং স্পাইরাল পাঠ্যক্রমের মাধ্যমে এমবিবিএস প্রোগ্রাম পরিচালিত হয়। যা অত্যান্ত কার্যকর এবং চমত্কার শিক্ষাব্যবস্থা। ব্যাচেলর অব ফিজিওথেরাপি (অনার্স):এই বিভাগটিতে ২০১৭ সালে বাংলাদেশ ফিজিওথেরাপি এসোসিয়েশনের ৪’শ জন ফিজিওথেরাপিস্ট তালিকাভুক্ত ছিলেন। এখনও বাংলাদেশর বিশাল জনসংখ্যার পরিচর্যা করার জন্য অনেক ফিজিওথেরাপিস্ট প্রয়োজন। এ বিষয়ে আরো তথ্য জানা যাবে ০১৭১৩২৪৩৪২২ নম্বরে। মাস্টার অব বিজনেস অ্যাডমিনিসট্রেশন :বিশ্বব্যাংক ২০১৮ সালে বাংলাদেশের জন্য ৬.৪শতাংশ জিডিপি প্রবৃদ্ধি বরাদ্দ করেছে এবং এজন্য আরো এমবিএ পেশাদারদের প্রয়োজন হবে বলে জানিয়েছে। সাইবারজায়ার এমবিএ পাঠ্যক্রমের মাধ্যমে একজন শিক্ষর্থী যুগোপযোগী বিষয়ে জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জন করেন। বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের সাহায্য করার জন্য একটি বিশেষ ‘বাংলাদেশ ছাত্র বৃত্তি’ প্রকল্পও বিশ্ববিদ্যালয় দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। ফলে এদেশের মেধাবী শিক্ষার্থীরা মালেশিয়তে আন্তর্জাতিক শিক্ষা গ্রহণের অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারেন। আগ্রহী শিক্ষার্থীরা www.cybermed. edu.my এই ঠিকানায় ক্লিক করে বিস্তারিত জানতে পারবেন। 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৮ ফেব্রুয়ারী, ২০২১ ইং
ফজর৫:০৬
যোহর১২:১২
আসর৪:২৩
মাগরিব৬:০৪
এশা৭:১৬
সূর্যোদয় - ৬:২১সূর্যাস্ত - ০৫:৫৯
পড়ুন