শামসুর রাহমান সমগ্রতার সন্ধান জরুরি
ইত্তেফাক রিপোর্ট২৩ অক্টোবর, ২০১৪ ইং
কবি শামসুর রাহমান স্মরণ অনুষ্ঠানে সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক বলেছেন, শামসুর রাহমানকে খণ্ডিতভাবে না দেখে তার সমগ্রতার সন্ধান জরুরি। তার রাজনৈতিক কবিতা যেমন উদ্দীপক হয়ে কাজ করে তেমনি প্রেমের কবিতাতেও  তিনি অনন্য সাধারণ। তার রূপকল্প-চিত্রকল্প নির্মাণের অসাধারণত্ব বিশেষভাবে বিশ্লেষণের দাবি রাখে। গতকাল বুধবার বিকেলে ‘বাংলা একাডেমি’ একক বক্তৃতানুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি আরো বলেন, শামসুর রাহমান ত্রিশের দশক থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত আমাদের কাব্য-ভাষা বিবর্তনের সাঁকো হিসেবে কাজ করে যাচ্ছেন। মধ্যযুগীয় রুচি থেকে আধুনিকতা ও সমসাময়িকতার বোধে বাংলা কবিতাকে উত্তরিত করার ক্ষেত্রে শামসুর রাহমান ও পঞ্চাশের কবিরা তুলনারহিত ভূমিকা পালন করেছেন। একটি ভূখণ্ডের সামগ্রিক কাব্যরুচি নির্মাণের প্রায় একক কৃতিত্ব শামসুর রাহমানের।

অধ্যাপক শান্তনু কায়সার বলেন, কবি শামসুর রাহমান রূপান্তরশীল কবি। তার বিচিত্র মাত্রার সৃষ্টি ক্রম-রূপান্তরেরই সার্থক সাক্ষ্য। একান্ত ব্যক্তি-অনুভবের স্তর থেকে তিনি ক্রমশ গোটা জাতির শিল্পভাষ্যকার হয়ে উঠেছেন। নিজস্ব বিষয়, ভাষা ও শৈলীর অন্বেষার পাশাপাশি এই ভূখণ্ডের মানুষের সংগ্রাম ও স্বপ্নশীল সত্তা তার কবিতায় অনন্য রূপদক্ষতায় ফুটে উঠেছে। তিনি বলেন, বাংলা ভাষা-বাঙালি সংস্কৃতি-মুক্তিযুদ্ধ ও আমাদের সকল গণতান্ত্রিক সংগ্রামের আভায় শামসুর রাহমানের কবিতা উজ্জ্বল থেকে উজ্জ্বলতর হয়ে উঠেছে।

আজ ২৩ অক্টোবর কবি শামসুর রাহমানের ৮৬তম জন্মবার্ষিকী। এ উপলক্ষে আয়োজিত বক্তৃতানুষ্ঠানে ‘শামসুর রাহমান : রূপ-রূপান্তরের কবি’ শীর্ষক একক বক্তৃতা প্রদান করেন অধ্যাপক শান্তনু কায়সার। অনুষ্ঠানে সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান।

শামসুজ্জামান খান বলেন, শামসুর রাহমান বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি, বাংলা কবিতা নির্মাণকলার অন্যতম সিদ্ধপুরুষ। তার স্বাধীনতার কবিতামালা চিরকালের পাঠকের কাছে উজ্জীবনের উত্স হয়ে থাকবে। তিনি বলেন, বাংলা একাডেমি শামসুর রাহমানের নামে সেমিনার কক্ষের নামকরণ করেছে এবং সৌভাগ্যের বিষয় এখানেই আমরা কবিকে স্মরণ করছি।

উদীচী’র ‘জীবনানন্দ স্মরণ অনুষ্ঠান’ : কবি জীবনানন্দ দাশকে স্মরণ করেছে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী। গতকাল সন্ধ্যায় কবি’র ৬০তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে উদীচী’র ঢাকা মহানগর সংসদ আয়োজন করে এই ‘জীবনানন্দ দাশ স্মরণ অনুষ্ঠান’। অনুষ্ঠানটি জাতীয় প্রেসক্লাবের বিপরীতে সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ‘আগুনের পরশমনি ছোঁয়াও প্রাণে’ গানটি দলীয়ভাবে পরিবেশন করেন উদীচীর শিল্পীরা। এরপর শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন উদীচী ঢাকা মহানগর সংসদের সাধারণ সম্পাদক ইকবালুল হক খান ইকবাল। শুভেচ্ছা বক্তব্যের পর একক আবৃত্তি পরিবেশন করেন উদীচীর বাচিক শিল্পী চন্দ্র তাপস। এরপর জীবনানন্দ দাশ-এর সাহিত্যকর্ম নিয়ে উদীচীর অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা রণেশ দাশগুপ্ত-এর লেখা প্রবন্ধ পাঠ করেন উদীচী ঢাকা মহানগর সংসদের সহ-সাধারণ সম্পাদক কংকন নাগ। এরপর একক আবৃত্তি পরিবেশন করেন শিখা সেনগুপ্তা ও রিপন আচার্য শিশির।

এতে উদীচী ঢাকা মহানগর সংসদের সহ-সভাপতি বিমল মজুমদার-এর সভাপতিত্বে আলোচনায় মূল আলোচক হিসেবে অংশ নেন উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. রতন সিদ্দিকী। এছাড়াও, আলোচনা করেন প্রগতি লেখক সংঘ, জাপান-এর সম্পাদক নাওমি ওয়াতানাবে, উদীচী ঢাকা মহানগর সংসদের সহ-সভাপতি অধ্যাপক এ এন রাশেদাসহ উদীচী ঢাকা মহানগর ও কেন্দ্রীয় সংসদের নেতৃবৃন্দ।

কাল শুরু বটতলা’র আন্তর্জাতিক নাট্যোত্সব : নাট্য সংগঠন ‘বটতলা’র আয়োজনে কাল থেকে শুরু হতে যাচ্ছে ‘ছড়াই স্বপ্নবীজ আকাশ তলে : বটতলা রঙ্গমেলা ২০১৪’ শিরোনামে ৮ দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক নাট্যোত্সব। রাজধানীর সেগুনবাগিচাস্থ শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় কাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টায় এ উত্সবের যৌথভাবে উদ্বোধন করবেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি অধ্যাপক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী ও বিশেষ অতিথি আইটিআই সভাপতি- রামেন্দু মজুমদার, নাট্যব্যক্তিত্ব আতাউর রহমান, নাট্যকার ও অভিনেতা- মামুনুর রশিদ, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি- গোলাম কুদ্দুস, শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক- লিয়াকত আলি লাকী, লাকি ইনাম, সারা যাকের ও আমেরিকার অভিনয় শিল্পী কাইউলানি লী। রাজধানীর সেগুনবাগিচার শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালায় ৮ দিনব্যাপী এই নাট্যোত্সবটি চলবে ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত।

উত্সবের নাট্যসূচি: উত্সব শুরুর দিন (২৪ অক্টোবর) সন্ধ্যা সাতটায় আয়োজক সংগঠন ‘বটতলা’ মঞ্চায়ন করবে নাটক ‘দ্য ট্রায়াল অব মাল্লাম ইলিয়া’, পরদিন ২৫ অক্টোবর একই সময়ে নাট্যসংগঠন ‘আরণ্যক’ মঞ্চায়ন করবে নাটক ‘স্বপ্ন পথিক’, ২৬ অক্টোবর ‘প্রাচ্যনাট’ মঞ্চায়ন করবে ‘বনমানুষ’, ২৭ অক্টোবর ‘থিয়েটার’ মঞ্চায়ন করবে নাটক ‘কুহকজাল’, ২৮ অক্টোবর ‘থিয়েটার আর্ট ইউনিট’ মঞ্চায়ন করবে ‘না-মানুষি জমিন’, ২৯ অক্টোবর ‘নাগরিক’ মঞ্চায়ন করবে নাটক ‘নাম গোত্রহীন’ এবং ৩০ অক্টোবর সন্ধ্যা ৭টায় ‘ঢাকা থিয়েটার’ মঞ্চায়ন করবে নাটক ‘দ্য আউটসাইডার’। আর উত্সবের শেষদিন সকাল সাড়ে ১১টায় থাকবে আমেরিকার অভিনয় শিল্পী ‘কাইউলানি লী’ কান্ট স্কোয়ার মি, স্টোরি অব মাদার জোন্স’ শিরোনামের একক পরিবেশনা এবং ভারতের কোলকাতার নাট্যসংগঠন ‘রঙ্গাশ্রম’ মঞ্চায়ন করবে নাটক ‘মনিদীপা’।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৩ অক্টোবর, ২০২১ ইং
ফজর৪:৪৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৪৯
মাগরিব৫:২৯
এশা৬:৪২
সূর্যোদয় - ৫:৫৯সূর্যাস্ত - ০৫:২৪
পড়ুন