সিটি নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ
টিআইবির দাবি
ইত্তেফাক রিপোর্ট৩০ এপ্রিল, ২০১৫ ইং
সিটি নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ
ঢাকা উত্তর, ঢাকা দক্ষিণ এবং চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ, জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে বিব্রতকর বলে দাবি করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। একই সঙ্গে রাজনৈতিক দলগুলোকে গণতান্ত্রিক চর্চার প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছে দুর্নীতি বিরোধী সংগঠনটি।

গতকাল বুধবার এক বিবৃতিতে টিআইবি জানায়, তিন সিটি করপোরেশনে নজিরবিহীন কারচুপি, গোলযোগ ও সহিংসতা, ভোট প্রদানে বাধা, দেশি-বিদেশি সাংবাদিক ও পর্যবেক্ষকদের পেশাগত দায়িত্ব পালনে অনৈতিক প্রতিবন্ধকতার ঘটনা ঘটেছে। এসব কার্যকলাপ প্রতিহত করে নির্বাচন সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও সমান প্রতিযোগিতার ক্ষেত্র তৈরিতে নির্বাচন কমিশন এবং আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা-বাহিনী যে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে তাতে টিআইবি গভীরভাবে হতাশ ও উদ্বিগ্ন। অন্যদিকে বিতর্কিতভাবে মাঝপথে নির্বাচন বর্জন দেশের রাজনৈতিক অঙ্গনে সুস্থ পরিবেশ প্রতিষ্ঠার পথে নতুন করে ঝুঁকির সৃষ্টি করেছে। এ অবস্থায় সকল রাজনৈতিক দলকে সংযত, সহনশীল ও গণতান্ত্রিক চর্চার প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার আহ্বান টিআইবির।

বিবৃতিতে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান  বলেন, রাজনৈতিক ছত্রছায়ায় ও পেশি-শক্তির প্রয়োগে ব্যাপক অনিয়ম হওয়ায় সদ্য-সমাপ্ত তিনটি সিটি করপোরেশন নির্বাচনের গ্রহণযোগ্যতা প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের মতো সাংবিধানিক একটি প্রতিষ্ঠানের নির্বাচনী আইন-প্রয়োগসহ স্বাধীন ও নিরপেক্ষ ভূমিকা পালনে ব্যর্থতায় আমরা গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। ব্যাপক কারচুপির নির্ভরযোগ্য তথ্য আর প্রমাণ থাকার পরও কমিশন কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের পরিবর্তে অস্বীকৃতি, মিথ্যাচারের আশ্রয় নিয়ে নিজেকে বিব্রত করেছে। যথাযথ দায়িত্ব পালনে নির্বাচন কমিশন শুধু যে ব্যর্থ হয়নি বরং কমিশন ব্যাপকভাবে রাজনৈতিক পক্ষপাতমূলক আচরণ করায় সাংবিধানিক এই প্রতিষ্ঠানটির ভাবমূর্তি ও জন-আস্থা ধূলিসাত্ হয়েছে।

ড. জামান আরো বলেন, পেশি-শক্তি দমনসহ আইনের লঙ্ঘন প্রতিহত করে পেশাদারিত্বের সাথে নির্বাচনের জন্য সুস্থ ও আস্থার পরিবেশ সৃষ্টি করে ভোট প্রদানে নাগরিকদের সর্বতোভাবে সহযোগিতা করার জন্য অর্পিত দায়িত্ব পালনে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা-বাহিনী একদিকে নীরব দর্শক ও অন্যদিকে পক্ষপাতমূলক ভূমিকা পালন করে শুধু ব্যর্থই হয়েছে তাই নয় বরং ক্ষেত্রবিশেষে রাজনৈতিক শিখণ্ডী হিসেবে ব্যবহূত হয়ে নিজেদের প্রশ্নবিদ্ধ করেছে।

তিনি আরো বলেন, সিটি করপোরেশনের নির্বাচনকে ঘিরে বাংলাদেশের সংঘাতময় রাজনীতি থেকে উত্তরণে যে ইতিবাচক সুযোগের সৃষ্টি হয়েছিল, মঙ্গলবারের তিনটি সিটি করপোরেশনের নির্বাচনই সামগ্রিকভাবে প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ায় সংঘাতময় রাজনৈতিক পরিস্থিতির ঝুঁকি আবারো সৃষ্টি হয়েছে। তিনি জনজীবনে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখার স্বার্থে সকল রাজনৈতিক দলকে রাজনৈতিক সহনশীলতা, পরমতসহিষ্ণুতা এবং সর্বোপরি গণতান্ত্রিক চর্চার ধারা চর্চা ও তা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়েছেন।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩০ এপ্রিল, ২০১৯ ইং
ফজর৪:০৪
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩২
মাগরিব৬:২৯
এশা৭:৪৭
সূর্যোদয় - ৫:২৫সূর্যাস্ত - ০৬:২৪
পড়ুন