পাট কেনায় মান বজায় রাখার নির্দেশ
ইত্তেফাক রিপোর্ট০৮ আগষ্ট, ২০১৬ ইং
কাঁচাপাট কেনায় গুণগত মান বজায় রাখার নির্দেশ দিয়েছেন বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী মির্জা আজম। গতকাল রবিবার রাজধানীর দিলকুশায় বাংলাদেশ জুট মিলস করপোরেশনের (বিজেএমসি) কার্যালয়ে পাটের উত্পাদন, ক্রয় ও অন্যান্য বিষয় নিয়ে এক সভায় তিনি এ নির্দেশ দেন।

সভায় বস্ত্র ও পাট সচিব এমএ কাদের সরকার, বিজেএমসি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এ কে নাজমুজ্জামান ও বিজেএমসির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী বলেন, আগে খোলা অবস্থায় পাট কেনা হতো, তাতে গুণগত মান নিয়ে সন্দেহ থাকতো। কারণ, ভালো মানের পাটের মধ্যে খারাপ পাট ঢুকিয়ে দেওয়া হতো। তাই বেল আকারে পাট কিনতে হবে, যেন গুণগত মানের ব্যত্যয় না ঘটে। পাট ক্রয়ে কোনো অনিয়ম সহ্য করা হবে না বলে তিনি জানান।

মির্জা আজম বলেন, বর্তমানে বিজেএমসির পাট ক্রয় কেন্দ্র ১৮০টি থেকে ৫৬টিতে নামিয়ে আনা হয়েছে। বিজেএমসির লোকসান কমাতে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগে পাট ক্রয় কেন্দ্র বেশি থাকার কারণে সঠিকভাবে মনিটরিং করা সম্ভব হতো না। এ কারণে তা কমিয়ে আনা হয়েছে।

বস্ত্র ও পাট প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ বছর থেকে পাটকলগুলোতে ফিজিক্যাল ভেরিফিকেশন চালু করা হয়েছে। যাতে বছর শেষে মিলগুলোর কী পরিমাণ সম্পদ আছে বা কি কি সম্পদ নষ্ট হচ্ছে বা কী পরিমাণ পাট মজুদ আছে তা জানা যাবে। আগে মিলগুলোর সম্পদের পরিমাণ পরিপূর্ণভাবে জানা সম্ভব হতো না। এ জন্য পাটকলগুলোতে ফিজিক্যাল ভেরিফিকেশন চালু করা হয়েছে এবং তা অব্যাহত থাকবে।

তিনি বলেন, এখন থেকে প্রত্যেক পাটকলে অর্থবছর শেষে আলাদা আলাদাভাবে  তার লাভ-লোকসানের হিসাব বিজেএমসিতে জমা দিতে হবে। এ কাজটা আগে বিজেএমসি সামগ্রিকভাবে করত।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ আগষ্ট, ২০১৯ ইং
ফজর৪:০৯
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৪০
এশা৭:৫৯
সূর্যোদয় - ৫:৩১সূর্যাস্ত - ০৬:৩৫
পড়ুন