রহস্যজনক দগ্ধ রুনা না ফেরার দেশে
ভবন থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু
ইত্তেফাক রিপোর্ট১৪ নভেম্বর, ২০১৬ ইং
রাজধানীর বিমানবন্দর এলাকায় রহস্যজনকভাবে দগ্ধ শামীমা আক্তার রুনা (৪০) চিকিত্সাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। গতকাল সকালে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে তার মৃত্যু হয়। চিকিত্সকরা বলছেন, রুনার শরীরের শ্বাসনালীসহ ৪৫ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল। গত শনিবার সকালে বিমানবন্দর পুলিশ ফাঁড়ির সামনে থেকে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় রুনাকে পুলিশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যালে ভর্তি করে।

বার্ন ইউনিটের আবাসিক চিকিত্সক ডা. পার্থ শংকর পাল জানান, রুনার শরীরে কিভাবে আগুন লেগেছিল তা জানা যায়নি। মৃতের বাড়ি নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থানার কাশিপুর গ্রামে। রুনা পুলিশকে জানিয়েছিল, শুক্রবার রাত দুইটার দিকে তার সঙ্গে থাকা একজন তাকে বিমানবন্দর রেল লাইন বালুর মাঠ এলাকায় নিয়ে আসে। শনিবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে বিমানবন্দর গোলচত্বরে তার গায়ে আগুন লাগিয়ে ওই ব্যক্তি পালিয়ে যায়। কিন্তু কে সে? সে ব্যাপারে রুনা কিছু বলতে পারেনি। শুধু জানিয়েছে তার সঙ্গে ছিল ‘জ্বীন’।

বিমানবন্দর থানার ওসি নূরে আযম মিয়া জানান, রুনার মানসিক সমস্যা রয়েছে। এ কারণে তিনি নিজের গায়ে নিজেই আগুন দিতে পারেন। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

এদিকে, গতকাল দুপুরে তেজগাঁও লিংক রোডে নির্মাণাধীন ভবনের একতলা থেকে পড়ে মোসলেম আলী (২৫) নামে এক নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। মৃতের চাচতো ভাই আব্দুল করিম জানান, তারা লিংক রোডে একটি নির্মাণাধীন ভবনে কাজ করতেন এবং সেখানেই থাকতেন। দুপুরে মোসলেম রডের কাজ করার সময় হঠাত্ নিচে পড়ে গিয়ে মারা যান। মৃতের বাবার নাম জিল্লুর রহমান। তাদের গ্রামের বাড়ি নীলফামারীর জলঢাকায়।

 

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৪ নভেম্বর, ২০২০ ইং
ফজর৪:৫৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৩৮
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩২
সূর্যোদয় - ৬:১১সূর্যাস্ত - ০৫:১২
পড়ুন