চিকুনগুনিয়া বিষয়ে সচেতনতা বৃদ্ধির উপর গুরুত্বারোপ
বিশেষজ্ঞ চিকিত্সকদের সেমিনার
২২ মে, ২০১৭ ইং
g ইত্তেফাক রিপোর্ট

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন বলেছেন, চিকুনগুনিয়া প্রাণঘাতী নয়। তাই এ নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। এ রোগ যাতে ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য করপোরেশনের পক্ষ থেকে ক্র্যাশ প্রোগ্রাম শুরুসহ মশক নিধন কার্যক্রম জোরদার করা হয়েছে।

গতকাল রবিবার সকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে স্বহস্তে ফগিং করে আনুষ্ঠানিকভাবে সপ্তাহব্যাপী বিশেষ ক্র্যাশ প্রোগ্রামের উদ্বোধনকালে মেয়র একথা বলেন। তিনি বলেন, এটি একটি সাধারণ জ্বর। ৭-৮ দিনের মধ্যে এমনিতেই সেরে যায়। তাই এ নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে বরং গণমাধ্যমকর্মী, চিকিত্সকগণসহ সর্বস্তরের মানুষকে সম্পৃক্ত করে এ বিষয়ে ব্যাপক জনসচেতনতা গড়ে তুলতে হবে।

এ সময় মেয়রের সঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর কামরুল হাসান খান, দক্ষিণ সিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা খান মোহাম্মদ বিলাল, প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রি. জে. শেখ সালাউদ্দিন, ওয়ার্ড কাউন্সিলর এডভোকেট আব্দুল হামিদ ও হাসিবুর রহমান মানিক এবং চিকুনগুনিয়া বিষয়ে বিশেষজ্ঞ চিকিত্সকগণ উপস্থিত ছিলেন।

পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর কামরুল হাসান খানের সভাপতিত্বে চিকুনগুনিয়া জ্বর নিয়ে বিশেষজ্ঞ চিকিত্সকদের অংশগ্রহণে আয়োজিত সেমিনারে চিকিত্সকগণ চিকুনগুনিয়া বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধির উপর গুরুত্বারোপ করে মশক নিধনে ব্যাপক কার্যক্রম চালিয়ে যাওয়ার জন্য করপোরেশনের মেয়রের প্রতি আহ্বান জানান। 

তারা বলেন, চিকুনগুনিয়া হলে হাড়ের জয়েন্টে (হাত বা মেরুদণ্ড) তীব্র ব্যথা থাকবে, ফুলে যাবে, মৃদু র্যাশ উঠা ইত্যাদি লক্ষণ দেখা যাবে। এজন্য শুধু প্যারাসিটামল খাওয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।

মেয়র সাঈদ খোকন আশাবাদ ব্যক্ত করেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ‘হেলদি বাংলাদেশ’ গড়ার আন্দোলনে নেতৃত্ব দেবেন। সেমিনারে আলোচক ছিলেন অধ্যাপক ডা. মো. নজরুল ইসলাম, ডা. মিনহাজ রহিম চৌধুরী, ডা. সৈয়দ আতিকুল হক, ডা. মোহাম্মদ কামাল, ডা. মো. আবু শাহীন, ডা. সাইফ উল্লাহ মুন্সী প্রমুখ।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২২ মে, ২০২১ ইং
ফজর৩:৪৮
যোহর১১:৫৫
আসর৪:৩৪
মাগরিব৬:৪০
এশা৮:০১
সূর্যোদয় - ৫:১২সূর্যাস্ত - ০৬:৩৫
পড়ুন