সব উন্নয়ন প্রকল্পের পরিবেশ সমীক্ষা প্রকাশের দাবি
০৮ এপ্রিল, ২০১৮ ইং

ইত্তেফাক রিপোর্ট

তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী বলেছেন, পরিবেশ ধ্বংস করে উন্নয়নের কুফল বিশ্ব এখন বুঝতে পারছে। চীন-ভারত কয়লাভিত্তিক প্রকল্প থেকে সরে আসছে। পরিবেশগত মানদণ্ড ঠিক না রেখে উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে টিকে না। এটি পরিবেশের পাশাপাশি অর্থেরও অপচয়। তাই যে কোনো উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণের ক্ষেত্রে পরিবেশ সমীক্ষা গ্রহণ ও তা জনসম্মুখে প্রকাশ করতে হবে। ভবিষ্যত্ প্রজন্মকে এবং প্রকৃতিকে নষ্ট করে এমন উন্নয়ন আমরা চাই না।

গতকাল শনিবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির গোলটেবিল মিলনায়তনে ‘দক্ষিণ-বাংলায় শিল্পায়ন : নাগরিক ভাবনা’ শীর্ষক এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) ও ওয়াটারকিপারস বাংলাদেশ এর যৌথ উদ্যোগে এটি অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে মূল বক্তব্য উপস্থাপনকালে ওয়াটারকিপারস বাংলাদেশের সমন্বয়কারী শরীফ জামিল পটুয়াখালী জেলার কৃষিজমি পরিবর্তন করে চলমান শিল্পায়নের চিত্রসহ জেলার কলাপাড়ায় কয়েকটি বড় বড় প্রকল্পের বিশ্লেষণ তুলে ধরেন।

বাপা’র সাধারণ সম্পাদক ডা. মো. আব্দুল মতিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন লেখক সৈয়দ আবুল মকসুদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক বদরুল ইমাম, পটুয়াখালীর স্থানীয় বাসিন্দা কে এম শাহাজুল ইসলাম ও অ্যাডভোকেট বশির উদ্দীন।

পটুয়াখালীর কলাপাড়ার বাসিন্দা অ্যাডভোকেট বশির উদ্দীন বলেন, কলাপাড়ায় ৯ হাজার মেগাওয়াট কয়লাভিত্তিক তাপবিদ্যুত্ কেন্দ্র প্রকল্প বাস্তবায়নের প্রক্রিয়া চলছে। এখানে দালাল চক্রের কারণে জমি অধিগ্রহণের যে ক্ষতিপূরণের টাকা তাও সঠিকভাবে জনগণ পাচ্ছে না। যেটুকু পায় সেখানেও অনেক হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ এপ্রিল, ২০১৯ ইং
ফজর৪:২৭
যোহর১২:০১
আসর৪:৩১
মাগরিব৬:২০
এশা৭:৩৪
সূর্যোদয় - ৫:৪৪সূর্যাস্ত - ০৬:১৫
পড়ুন