ভূঞাপুরে ৭২ ঘণ্টায় ৪ শতাধিক পরিবারের বসতবাড়ি নদীগর্ভে
ভূঞাপুরে ৭২ ঘণ্টায় ৪ শতাধিক পরিবারের বসতবাড়ি নদীগর্ভে
যমুনা নদীতে পানি বৃদ্ধি ও ঘন ঘন ভারি বর্ষণের ফলে ৩ দিনে ৪ শতাধিক পরিবার নতুন করে গৃহহীন হয়ে পড়েছে। ভূঞাপুর উপজেলার ৪টি ইউনিয়নে নতুন করে যমুনা নদীর ভাঙন শুরু হয়েছে। অন্যদিকে ভাঙনের ফলে ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়ক হুমকিতে রয়েছে। অথচ ভাঙন রোধে কার্যকর কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি স্থানীয় প্রশাসন ও পাউবো কর্তৃপক্ষ।

সরেজমিনে উপজেলার অর্জুনা, গাবসারা, নিকরাইল ও গোবিন্দাসী ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রাম ঘুরে দেখা গেছে, প্রমত্তা যমুনা নদী তার কড়ালগ্রাসী রূপ নিয়ে হানা দিয়েছে পুরনো জনপদগুলোতে। ভাঙনে ইতোমধ্যে মানুষের ঘর-বাড়ি ছাড়াও তাদের ফসলী জমি নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। ভাঙন কবলিত লোকজন তাদের ঘর-বাড়ি সরানোর কাজে ব্যস্ত রয়েছে। নদী ভাঙন ও ভারি বর্ষণে অনেকের বসতবাড়ি নদীগর্ভে চলে গেছে।

এদিকে অব্যাহত ভাঙনের ফলে ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়ক হুমকিতে পড়েছে। গত দুইবারের ভাঙনে ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়কে যান চলাচল বন্ধ ছিল।

টাঙ্গাইল পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী শাহজাহান সিরাজ জানান, ভাঙনের বিষয়টি কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। অনুমতি পেলে কাজ শুরু করা হবে।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৫ জুন, ২০২১ ইং
ফজর৩:৪৩
যোহর১১:৫৯
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৪৯
এশা৮:১৪
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৪
পড়ুন