ক্লিনিকে ভুল অপারেশন তিন রোগীর মৃত্যুর অভিযোগ
২৭ আগষ্ট, ২০১৫ ইং
১০ জন হাসপাতালে ভর্তি

g মহেশপুর (ঝিনাইদহ) সংবাদদাতা

উপজেলার ভৈরবা বাজারে জননী ক্লিনিকে ভুল অপারেশনে ৩ প্রসূতির মৃত্যু হয়েছে এবং ১০ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এলাকাবাসী ও মৃত রোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, বালিনগর গ্রামের আবু বক্করের মেয়ে রুপা খাতুন (২০) ও ভৈরবা গ্রামের আশা মোল্লার মেয়ে আরিফা খাতুন (২১) এ মাসের প্রথম সপ্তাহে ডা. গোলাম রহমানের হাতে সিজার হয়। এর ১ দিন পর তারা মাথার যন্ত্রণায় ছটফট করলে তাদেরকে প্রথমে যশোর, পরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে ২৪ আগস্ট তারা দুজনই মারা যায়। সাতপোতা গ্রামের আশা আহম্মেদের মেয়ে সালেহা খাতুন একইভাবে যশোর কুইন্স হাসপাতালে মারা যায়।

এ ছাড়া পাঁচপোতা গ্রামের নজরুল ইসলামের স্ত্রী খাইরুননেছা যশোর কুইন্স হাসপাতালে, শ্রীপুর গ্রামের ওয়াজ্জেল হোসেনের মেয়ে মানিফা মহেশপুর হাসপাতালে, সাতপোতা গ্রামের আশাদুলের মেয়ে বীথি খুলনা মেডিক্যালে, পাঁচপোতা গ্রামের আশাদুলের মেয়ে হানিফা যশোর কুইন্স হাসাপাতালে, হুদোপাড়ার আনিচুরের স্ত্রী নার্গিস, রুলী গ্রামের সোহাব আলীর মেয়ে মর্জিনা খাতুন যশোর একতা হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। এরা সবাই প্রসূতির সিজারিং রোগী।

ডা. গোলাম রহমান বলেন, শুধু জননী ক্লিনিকেই এ ধরনের সমস্যা হচ্ছে। উক্ত ক্লিনিকের যন্ত্রপাতিতে কোনো ধরনের ভাইরাস থাকতে পারে।

ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন আব্দুস সালাম বলেন, তদন্ত করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. তাহাজ্জেল হোসেন বলেন, প্রাইভেট ক্লিনিকগুলো তদারক করার কোনো ক্ষমতা তাদের নেই। এগুলো মনিটর করে সিভিল সার্জন অফিস। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

বর্তমানে ক্লিনিকটি বন্ধ করে মালিক ভৈরবা গ্রামের খোকন গা-ঢাকা দিয়েছে।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৭ আগষ্ট, ২০১৯ ইং
ফজর৪:২০
যোহর১২:০১
আসর৪:৩৩
মাগরিব৬:২৫
এশা৭:৪০
সূর্যোদয় - ৫:৩৮সূর্যাস্ত - ০৬:২০
পড়ুন