নিম্নমানের বার্মিজ সিগারেটে সয়লাব চট্টগ্রামের বাজার
চট্টগ্রাম অফিস০৮ আগষ্ট, ২০১৬ ইং
মিয়ানমার থেকে শুধু নিষিদ্ধ মাদক ইয়াবা নয়, আসছে নিম্নমানের সিগারেটও। দেশের দক্ষিণ-পূর্ব অঞ্চলের সীমান্ত শহর টেকনাফ দিয়ে চোরাকারবারীরা নিয়ে আসছে অত্যন্ত নিম্নমানের সিগারেট যার নাম ‘মার্বেল’। চট্টগ্রামের সাতকানিয়া থেকে কক্সবাজারের টেকনাফ, মহেশখালী, চকরিয়া, উখিয়া, কুতুবদিয়াসহ বিভিন্ন এলাকার হাটবাজার বার্মিজ সিগারেটে সয়লাব হয়ে গেছে। বিগত ছয় মাসে টেকনাফ সীমান্ত দিয়ে প্রায় ৫০ কোটি শলাকা মার্বেল সিগারেট বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। দেশি উন্নতমানের বিভিন্ন ব্র্যান্ডের সিগারেটের তুলনায় এর দামও অনেক কম হওয়ায় এর চাহিদাও বেশি।

জানা যায়, সংঘবদ্ধ চোরাকারবারীরা প্রশাসনকে ম্যানেজ করে অতি কমদামে তা হাট-বাজারে বিক্রি করছে। এমনকি মিয়ানমারেও এই সিগারেটের তেমন প্রচলন নেই। বাংলাদেশে প্রচলিত আইন অনুযায়ী সব সিগারেটের প্যাকেটে ‘ছবিযুক্ত সংবিধিবদ্ধ সতর্কতা’ এবং ‘রাজস্ব স্ট্যাম্প’ ব্যবহারে বাধ্যবাধকতা থাকলেও বার্মিজ সিগারেটের প্যাকেটে এসব কিছুই থাকে না।

ফলে সরকার বিপুল পরিমাণ রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। এ বিষয়ে দেশের একটি বিখ্যাত সিগারেট উত্পাদনকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা বলেন, বাংলাদেশের সীমান্তে কঠোর নজরদারি সত্ত্বে্ও কীভাবে এত বিপুল পরিমাণ বার্মিজ নকল সিগারেট প্রবেশ করছে তা অবাক করার বিষয়। তিনি অবিলম্বে এ বিষয়ে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সরকারের কাছে দাবি জানান।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ আগষ্ট, ২০১৯ ইং
ফজর৪:০৯
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৪০
এশা৭:৫৯
সূর্যোদয় - ৫:৩১সূর্যাস্ত - ০৬:৩৫
পড়ুন