মির্জাপুরে পুলিশের আবাসিক ভবনগুলো জরাজীর্ণ
মির্জাপুরে পুলিশের আবাসিক ভবনগুলো জরাজীর্ণ
জনগণের জানমালের নিরাপত্তা দিতে যারা দিনরাত পরিশ্রম করেন সেই পুলিশ সদস্যদের থাকার জায়গার খুবই জরাজীর্ণ অবস্থা। জরাজীর্ণ ভবনে ঝুঁকি নিয়ে নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে বসবাস করছেন পুলিশ প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। মির্জাপুর উপজেলার থানায় পুলিশ সদস্য ও  অফিসারদের আবাসিক ভবনগুলোর অবস্থা খুবই জরাজীর্ণ বসবাসের অনুপযোগী এসব ভবন বৃষ্টির পানি থেকে রক্ষার জন্য ছাদের উপর বিছানো হয়েছে পলিথিন। ছাদ ও দেয়াল থেকে খসে পড়ছে পলেস্তারা, ইট ও রড। এই ঝুঁকিপূর্ণ ভবনেই মানবেতরভাবে বসবাস করছেন মির্জাপুর থানার পুলিশ। ভবনগুলো ধসে পড়ে যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা রয়েছে।

মির্জাপুর পৌরসভা ও ১৪টি ইউনিয়নের ২৩১টি গ্রামের ৫ লক্ষাধিক জনগণের জানমালের নিরাপত্তা এবং সেবার জন্য পুলিশ রয়েছেন ১৩৫ জন। কিন্তু এই বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্যের বসবাসের জন্য থানা কমপ্লেক্সের ভিতরে তেমন কোনো ভবন নেই। পুরানো আমলের দু/একটি ভবন থাকলেও সেগুলো পরিত্যক্ত ঘোষণা হয়েছে অনেক আগেই। রাত ও দিনে ডিউটি পালন করে পুলিশ সদস্যরা যে একটি ভালো জায়গায় ঘুমাবেন সে ব্যবস্থাও নেই।

৭০ দশকে মির্জাপুর থানায় ভবনগুলো নির্মিত হলেও অর্থের অভাবে দীর্ঘদিন সংস্কার না হওয়ায় এ অবস্থা হয়েছে। বিশেষ করে ওসির আবাসিক ভবন বেশি  ঝুঁকিপূর্ণ। অন্যান্য ভবনগুলোও গত দুই যুগ ধরে জরাজীর্ণ অবস্থায় পড়ে রয়েছে। থানার দাপ্তরিক কাজের মূল ভবনটিরও একই অবস্থা। তবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আর্থিক সহযোগিতায় মির্জাপুর থানায় একটি দোতলা ভবন নির্মিত হচ্ছে বলে পুলিশ সূত্র জানিয়েছেন।

মির্জাপুর থানার ওসি মোহাম্মদ মাঈনউদ্দিন বলেন, ভবনগুলো সংস্কারের জন্য প্রয়োজনীয় অর্থ বরাদ্দে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানানো হয়েছে। কিন্তু আজ পর্যন্ত প্রয়োজনীয় বরাদ্দ আসেনি।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ নভেম্বর, ২০২০ ইং
ফজর৫:০৭
যোহর১১:৫১
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:২৭সূর্যাস্ত - ০৫:১০
পড়ুন