টাঙ্গাইলের ১২ উপজেলায় ইউরিয়া সারের তীব্র সংকট
২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০১৭ ইং
g মির্জাপুর (টাঙ্গাইল)  সংবাদদাতা

মির্জাপুর উপজেলাসহ টাঙ্গাইলের ১২ উপজেলায় ভরা মৌসুমে ইউরিয়া সারের তীব্র সংকট দেখা দিয়েছে। বোরো মৌসুমের শুরুতেই ইউরিয়া সারের সংকট থাকায় কৃষকরা সার না পেয়ে হাট-বাজারে এমনকি কৃষি অফিস ও স্থানীয় সার ডিলারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন। অনেকেই বাধ্য হয়ে চড়া দামে বাজার থেকে নিম্নমানের পচা সার কিনছেন বলে জানিয়েছেন। ডিলাররা এর সত্যতা স্বীকার করেছেন। মির্জাপুর উপজেলায় গত ১০-১৫ দিন ধরে চলছে ইউরিয়া সারের তীব্র সংকট। উপজেলা কৃষি অফিস সূত্র জানায়, মির্জাপুরে একটি পৌরসভা ও ১৪ ইউনিয়নে সরকারিভাবে সারের ডিলার রয়েছেন ১৫ জন। উপজেলার পৌরসভা, মহেড়া, জামুর্কি, ফতেপুর, বানাইল, আনাইতারা, ওয়ার্শি, ভাদগ্রাম, ভাওড়া, লতিফপুর, গোড়াই, তরফপুর, আজগানা ও বাঁশতৈল ইউনিয়নে এই ১৫ জন ডিলার কৃষকদের মধ্যে ইউরিয়াসহ বিভিন্ন সার ও বীজ বিক্রি ও বিতরণ করেন। কিন্তু এ বছর বোরো মৌসুমের শুরুতেই ইউরিয়া সারের সংকট থাকায় ডিলাররাও পড়েছেন বিপাকে। একই অবস্থা টাঙ্গাইল সদর উপজেলা, বাসাইল, দেলদুয়ার, নাগরপুর, কালিহাতি, ভূঞাপুর, ঘাটাইল, সখীপুর, গোপালপুর, মধুপুর ও ধনবাড়ি উপজেলায়।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, টাঙ্গাইল জেলায় ডিলারদের মাঝে যমুনা সার কারখানার ইউরিয়া সার সরবরাহ বন্ধ করে দিয়ে বিশেষ একটি সিন্ডিকেট চক্র তা জামালপুর ও শেরপুর জেলায় সরবরাহ করছে। মির্জাপুর উপজেলা সার ডিলার সমিতির সভাপতি ও টাঙ্গাইল জেলা সার ডিলার সমিতির সহ-সভাপতি দেওয়ান মো. রেফাজউদ্দিন বলেন, যমুনা সার কারখানার ইউরিয়া সার সরবরাহ বন্ধ থাকায় তারা কৃষকদের মাঝে সার বিক্রি করতে পারছেন না। চীন থেকে আমদানিকৃত পাবনার ঈশ্বরদী থেকে যে সার টাঙ্গাইলের বিভিন্ন হাট-বাজারে আসছে তা জমাট বাধা ও অতি নিম্নমানের। এই সার কৃষকরা বাজার থেকে নিচ্ছে না। ফলে তারা বিভিন্ন স্থান্যে সারের জন্য ঘুরছেন।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২১ ইং
ফজর৫:১০
যোহর১২:১৩
আসর৪:২১
মাগরিব৬:০১
এশা৭:১৪
সূর্যোদয় - ৬:২৬সূর্যাস্ত - ০৫:৫৬
পড়ুন