কেমন আছেন ফুলবাড়ি কয়লাখনি বিরোধী আন্দোলনের গুলিবিদ্ধ বাবলু?
২৬ আগষ্ট, ২০১৮ ইং
কেমন আছেন ফুলবাড়ি কয়লাখনি বিরোধী আন্দোলনের গুলিবিদ্ধ বাবলু?
ফুলবাড়ি (দিনাজপুর) সংবাদদাতা

আজ ২৬ আগস্ট দিনাজপুরের ফুলবাড়ি কয়লাখনি বিরোধী ফুলবাড়ি ট্র্যাজেডি দিবস। ২০০৬ সালের আজকের এই দিনে ফুলবাড়ি কয়লাখনি বিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে তত্কালীন বিডিআর-পুলিশের ছোড়া গুলিতে গুলিবিদ্ধ হন উপজেলার পৌর শহরের সুজাপুর গ্রামের শ্রমজীবী বাবলু রায় (৫২)। গুলিবিদ্ধ বাবলু রায় এখন পঙ্গু হয়ে জীবনযাপন করছেন। তার শরীরের অর্ধেক অংশ অবশ হয়ে গেছে, হারিয়ে গেছে তার কর্মক্ষমতা। স্ত্রীসহ তার তিন শিশু সন্তান নিয়ে ভবিষ্যত্ ভাবনায় দিন কাটে তার বাড়িতে বসে বসে।

২০০৬ সালের ২৬ আগস্টের স্মৃতির কথা বলতে গিয়ে বাবলু রায় বলেন, প্রতিদিনের ন্যায় সেদিন আর রিকশা-ভ্যান বের করেননি। সকালে বাড়ি থেকে খাবার খেয়ে তেল-গ্যাস জাতীয় কমিটির আহ্বানে এশিয়া এনার্জির অফিস ঘেরাও কর্মসূচিতে অংশ নিতে বের হন। তখন তার স্ত্রী ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। বিকাল ৩টায় ফুলবাড়ি ঢাকা মোড় থেকে খনি বিরোধী মিছিল বের হলে বাবলু রায় তাতে অংশ নেয়। ছোট যমুনা নদীর ওপর বড় ব্রিজের কাছে মিছিলটি আসতেই পুলিশ-বিডিআর ব্যাপক লাঠিচার্জসহ গুলি বর্ষণ শুরু করে। লোকজন দিগ্বিদিক ছোটাছুটি শুরু করে। হঠাত্ একটি গুলি বাবলু রায়ের পিঠে এসে লাগে। সেই রাস্তায় তিনি লুটিয়ে পড়েন। এরপর আর কিছু বলতে না পারলেও পরে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে বেডে নিজেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় দেখতে পান। পরে রংপুর থেকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতাল, পিজি হাসপাতাল, ট্রমা সেন্টার ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে দীর্ঘ ১১ মাস চিকিত্সা শেষে হুইলচেয়ারে বাড়ি ফেরেন। এখন হুইলচেয়ারই সার্বক্ষণিক সঙ্গী। যতদিন বেঁচে আছেন, ফুলবাড়ি কয়লাখনি থেকে এক টুকরো কয়লা কোনো বহুজাতিক কোম্পানিকে নিতে দিবেন না। এ জন্য সাধ্যমতো লড়ে যাবেন জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত।

 

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৬ আগষ্ট, ২০২১ ইং
ফজর৪:২০
যোহর১২:০১
আসর৪:৩৩
মাগরিব৬:২৬
এশা৭:৪১
সূর্যোদয় - ৫:৩৮সূর্যাস্ত - ০৬:২১
পড়ুন