শেরপুরে স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন
০৬ অক্টোবর, ২০১৮ ইং

শেরপুর প্রতিনিধি

শেরপুরের শ্রীবরদীতে দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে ধর্ষণের দায়ে এক যুবককে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড এবং এক লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার আদেশ দিয়েছেন আদালত। দণ্ডপ্রাপ্ত হচ্ছে উপজেলার চৈতাজানী জামতলী গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে শাহজামাল ওরফে শাহ আলম (২৭)। শেরপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোঃ আখতারুজ্জামান বৃহস্পতিবার বিকালে এ রায় দেন।

ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পিপি অ্যাডভোকেট গোলাম কিবরিয়া বুলু মামলার নথির সংক্ষিপ্ত বিবরণ দিয়ে জানান, ২০১১ সালের ২০ জুন সকালে উপজেলার ঘোনাপাড়া গ্রামের এবং কাটাজান বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ওই ছাত্রীকে বিদ্যালয়ে যাওয়ার সময় শাহজামাল তার দোকানে ডেকে নিয়ে যায়। পরে তাকে বিস্কুট ও পানির সঙ্গে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে ধর্ষণ করে। ২৩ জুন অচেতন অবস্থায় মাথা ন্যাড়া করে, শার্ট-প্যান্ট ও মাথায় টুপি পরিয়ে ওই ছাত্রীকে তার বাড়ির সামনে ফেলে রাখে। এ ব্যাপারে ধর্ষিতার বাবা বাদী হয়ে শ্রীবরদী থানায় মামলা দায়ের করেন।

শাশুড়িকে হত্যার দায়ে জামাইয়ের যাবজ্জীবন

শেরপুর সদর উপজেলায় শাশুড়িকে হত্যার দায়ে মেয়ের জামাইকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও চার মাসের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। দণ্ডপ্রাপ্ত হচ্ছে আশরাফুল ইসলাম কেম্পো(৩০)। বৃহস্পতিবার বিকালে শেরপুরের অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ মোছলেহউদ্দিন আসামির উপস্থিতিতে এ রায় ঘোষণা করেন। আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৫ সালের ৭ মে পারিবারিক কলহের জেরে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মেয়ের জামাই আশরাফুল ইসলাম শাশুড়ি ফরিদাকে ছুরি দিয়ে পিঠে আঘাত করে। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। এ ব্যাপারে নিহতের ভাই আব্দুল ওয়াহাব বাদী হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেন।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৬ অক্টোবর, ২০২১ ইং
ফজর৪:৩৬
যোহর১১:৪৭
আসর৪:০৩
মাগরিব৫:৪৫
এশা৬:৫৬
সূর্যোদয় - ৫:৫১সূর্যাস্ত - ০৫:৪০
পড়ুন