‘ইটালি থেকে জুরিকে বাসে করেও অনেকে কনসার্ট দেখতে আসেন’
হামিন আহমেদ৩১ মে, ২০১৫ ইং
‘ইটালি থেকে জুরিকে বাসে করেও অনেকে কনসার্ট দেখতে আসেন’
দারুণ এক সময় কাটলো এবার ইউরোপে। মোট ১০ দিনে ৩টি ভেন্যুতে শো করেছি আমরা। ১৫ মে আমরা বাংলাদেশ ত্যাগ করি। এরপর ১৬ মে জার্মানিতে শো করি। সেখানে প্রথম দিনে দর্শকদের বেশ সাড়া পেয়েছি। দেশের বাইরে দেশি মানুষদের ভালোবাসা অন্যরকম। জার্মানিতে শো শেষ করেই পরের দিন আমরা অস্ট্রিয়ায় চলে যাই। অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় একটি শো ছিল ১৭ মে।

এরপর ২৪ তারিখে সুইজারল্যান্ডের জুরিকে আমরা একটি শো করি। জুরিকে আমরা যে হলে শো করি সেটি খুব বিখ্যাত একটি হল। যেখানে বিশ্বের বিখ্যাত অনেক রক ব্যান্ড কনসার্ট করেছে। ইটালি থেকে জুরিকে বাসে করেও অনেকে কনসার্ট দেখতে আসেন।

আমাদের দেশের ব্যান্ডগুলো দেশের বাইরে অনেক কনসার্ট করলেও ইউরোপে সাধারণত কম দেখা যায়। তবে এবার ইউরোপের বাঙালিরা আমাদের পেয়ে বেশ উচ্ছ্বাসিত ছিলেন। অনেকে আমাদের সাথে কথা বলতে চেয়েছেন, ছবি তুলেছেন। সেখানেও যে আমাদের ও বাংলা গানের এত ভক্ত আছে তা কনসার্টগুলো না করলে জানতাম না। আসলে পশ্চিমবঙ্গ বা বাংলাদেশি সবাই যে বাংলা গান ভালোবাসে এটা তাদের উপস্থিতিই বলে দিচ্ছিল।

প্রতিটি শো ভালো হয়েছে। মাইলস প্রতিটি কনসার্টের আগেই সাউন্ড সেট আপ, লাইট বিষয়ে খুব সচেতন থাকে। এবারও সেই বিষয়গুলো ভালো ছিল।

সেখানে আমাদের প্রায় সব জনপ্রিয় গান করি আমরা। ‘জ্বাল’, ‘দরদীয়া’, ‘পাহাড়ি মেয়ে’, ‘নীলা’সহ অনেকগুলো গান গেয়েছি। আমরা ভেবেছিলাম জুরিকে যারা কনসার্টে এসেছিলেন তারা হয়তো আমাদের সব গান জানেন না। কিন্তু দেখলাম আমাদের প্রায় সব গানই তারা জানেন এবং আমাদের প্রতিটি গানেই তাল মেলাচ্ছেন। সব মিলিয়ে আমাদের এবারের ইউরোপ ট্যুর বেশ উপভোগ করেছি। দেশের বাইরে গেলে যে দেশপ্রেম আরও বেড়ে যায় এটা প্রবাসীদের দেখলেই বোঝা যায়।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩১ মে, ২০২১ ইং
ফজর৩:৪৪
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩৬
মাগরিব৬:৪৪
এশা৮:০৭
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৩৯
পড়ুন