‘চলচ্চিত্রে প্রডিউসারদেরও পেশাদার মনোভাব প্রয়োজন’
০৮ আগষ্ট, ২০১৫ ইং
‘চলচ্চিত্রে প্রডিউসারদেরও পেশাদার মনোভাব প্রয়োজন’
জান্নাতুল পিয়া। এদেশের মডেল হয়েও হাতে গোনা দু’একজন সত্যিকার অর্থেই আন্তর্জাতিক অঙ্গনের মাঠ কাঁপিয়েছেন। বর্তমানে চলচ্চিত্র ও টিভি নাটকে বেশ ব্যস্ততা তার। সেই গল্পেই উঠে এসেছে সাম্প্রতিক সব প্রেক্ষাপট। বিনোদন প্রতিদিনের মুখোমুখি হয়ে অকপটে বললেন কিছু বাস্তবতার কথা। সাক্ষাত্কার নিয়েছেন মোস্তাফিজ মিঠু

কাজের ব্যস্ততা?

একুশে টেলিভিশনে আমার একটি ধারাবাহিক নাটক করছি। নাটকটির টানা শুটিং নিয়েই এখন ব্যস্ত আছি। এছাড়া ঈদের কাজ নিয়েও ব্যস্ত হয়ে যাবো। বেশ কয়েকটি ঈদের কাজ নিয়ে করবো এবার।

চলচ্চিত্রের অবস্থা?

নতুন একটি চলচ্চিত্রে চুক্তিবদ্ধ হয়েছি। ‘ছিটমহল’ শিরোনামে চলচ্চিত্রটির শুটিং শুরু হবে এ মাসের শেষের দিকে। আপাতত আর কোনো চলচ্চিত্রে কাজ করছি না।

‘গ্যাংস্টার রিটার্ন’ ছবিটি মুক্তির কোনো খবর মিলছে না অনেকদিন। কারণ?

কারণটা প্রযোজক ও পরিচালক বলতে পারবেন। হয়তো সঠিক সময়ের জন্য অপেক্ষা করছেন তারা। তবে যেকোনো ছবির সাথে পাশাপাশি ব্যবসা করার মতো ছবি এটি। কিন্তু কেন যে এখনও মুক্তি পাচ্ছে না, সেটা আমিও জানি না।

চলচ্চিত্র আটকে থাকা ক্যারিয়ারে কোনো প্রভাব পড়ে বলে মনে করেন?

অবশ্যই প্রভাব পড়ে। আমি অনেকদিন কোনো বাণিজ্যিক চলচ্চিত্রে চুক্তিবদ্ধ হইনি। কারণ আমার ক্যারিয়ারের একটা জায়গা আছে। সে জায়গা থেকে কোনো ছবি আটকে থাকা অবশ্যই নেতিবাচক।

চলচ্চিত্রের অবস্থা এখন কেমন মনে হচ্ছে?

চলচ্চিত্রের অবস্থা ভালো দিকেই যাচ্ছে। তবে আমার মনে হয় চলচ্চিত্রে প্রডিউসারদেরও পেশাদার মনোভাব প্রয়োজন। কারণ প্রডিউসারের ওপর নির্ভর করে একটি চলচ্চিত্রের সবকিছু। পেশাদার প্রডিউসারের অভাব আমাদের খুব। তাই শিল্পীদের যেমন পেশাদার হওয়া প্রয়োজন তেমনি প্রডিউসারদেরও। আমাদের অনেক ভালো নির্মাতা আছে। ভালো বাজেটের অভাব।

মডেলিং-এর ব্যস্ততা?

কিছুদিনের মধ্যেই আমি ইটালির মিলানে যাচ্ছি। সেখানে ২ থেকে ৩ মাসের একটি চুক্তিতে যাচ্ছি। শেষ ভারতে যেভাবে গিয়েছিলাম সে রকম একটা কাজেই যাচ্ছি।

দেশের মডেলিং-এর অবস্থার উন্নতি কেমন মনে করেন?

আন্তর্জাতিকভাবে চিন্তা করলে আমাদের মডেলিংয়ের অবস্থা খুব একটা ভালো না। আন্তর্জাতিকভাবে কাজ করতে গেলে তারা যেমন যোগ্যতা চায় তেমন মডেল আমাদের খুব অভাব। অনেকেই হয়তো নিজ উদ্যোগে কাজ করছে। কিন্তু সার্বিকভাবে উন্নতিটা এখনও হয়নি।

গ্রুমিংয়ের সুযোগটা দেশে কেমন পান?

একদমই পাই না। আমি এ পর্যন্ত যতগুলো কাজ করেছি সবগুলোই আমার ব্যক্তিগত প্রচেষ্টা থেকে। আমার এখনও অনেক কিছু শেখার বাকি আছে। কিন্তু আমি কোথায় যাবো! আন্তর্জাতিকভাবে মডেলিংয়ের পরিধিটা অনেক বড়। যেখানে আমরা এখনও অনেক পিছিয়ে আছি।

র্যাম্পে অনেকদিন দেখা যাচ্ছে না, কেন?

দুই বছর আমি র্যাম্পের কোনো কাজ করিনি। আসলে অভিনয়, মডেলিং, পড়াশোনা এতকিছু একসাথে করতে গিয়ে র্যাম্পে তেমন সময় দেওয়া হচ্ছে না। এখনও কোনো পরিকল্পনা নেই।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ আগষ্ট, ২০২১ ইং
ফজর৪:০৯
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৪০
এশা৭:৫৯
সূর্যোদয় - ৫:৩১সূর্যাস্ত - ০৬:৩৫
পড়ুন