সকলকে নিয়েই আধুনিক ঢাকা গড়ব: সাঈদ
ইত্তেফাক রিপোর্ট৩০ এপ্রিল, ২০১৫ ইং
সকলকে নিয়েই আধুনিক ঢাকা গড়ব: সাঈদ
ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র সাঈদ খোকন দলমত নির্বিশেষে সবাইকে নিয়ে আধুনিক ও শান্তির ঢাকা গড়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করে বলেছেন, ‘মেয়র হিসেবে আমি কখনোই ক্ষমতার অপব্যবহার করবো না। নগর উন্নয়নে ধৈর্য ও সহ্য নিয়ে কাজ করবো।’ দলের নেতাকর্মীদের পাশাপাশি প্রতিদ্বন্দ্বী সকলেই তার হাতে নিরাপদ থাকবেন বলে জানান তিনি। ঢাকাকে বাসযোগ্য নগরী হিসাবে গড়ে তুলতে সবার সহযোগিতা কামনা করেন তিনি। ঢাকার সমস্যা চিহ্নিত ও সমাধানের উপায় বের করতে ‘ঢাকা ডায়ালগ’ নামে একটি মতবিনিময় সভা করার ঘোষণা দেন সাঈদ খোকন।

গতকাল বুধবার বিকালে বঙ্গবন্ধু এভিনিউস্থ আওয়ামী লীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সাংবাদিক সম্মেলনে সাঈদ খোকন এসব কথা বলেন। শপথ গ্রহণের পর থেকেই ঢাকার উন্নয়নে শান্তির জন্য কাজ শুরু করবেন জানিয়ে সাঈদ খোকন বলেন, প্রতিপক্ষদের নিয়ে অনেক কিছু বলার থাকলেও নির্বাচনী প্রচারণায় তিনি কখনোই কটূক্তি করেননি। অসম্মানজনক মন্তব্য করেনি। তিনি বলেন, ‘আমি নগরবাসীকে মর্যাদার আসনে বসাবো। আমার সামনে সুযোগ এসেছে, শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের সামিল হওয়ার।’

সাঈদ খোকন বলেন, একা মেয়রের পক্ষে ঢাকার সকল সমস্যা সামাধান করা সম্ভব নয়। এজন্য আমি সকলের সহযোগিতা চাই। ‘ঢাকা ডায়ালগ’ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, শপথ গ্রহণের পর ঢাকার সর্বস্তরের জনগণকে নিয়ে এই ডায়ালগ আয়োজন করা হবে। তিনি বলেন, সমস্যা সমাধানে সবাইকে এক কাতারে দাঁড়াতে হবে। তবে প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী যানজট সমস্যাকে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য দেয়া হবে উল্লেখ করেন তিনি।

সমর্থন দেয়ার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন সাঈদ খোকন। একই সঙ্গে তাকে জয়যুক্ত করার জন্য ঢাকাবাসী ও সর্বস্তরের ভোটারদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। সাংবাদিক সম্মেলনের পর নেতাকর্মীদের নিয়ে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন তিনি।

এ সময় আরো বক্তব্য রাখেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের সমন্বয়ক ড. আবদুর রাজ্জাক ও খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলাম, মুকুল বোস, মৃণাল কান্তি দাস, ডা. মাস্তফা জালাল মহিউদ্দিন, ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস এমপি, হাজী মোহাম্মদ সেলিম এমপি, নজরুল ইসলাম বাবু এমপি, সুজিত রায় নন্দি প্রমুখ।

সিটি নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে দাবি করে ড. আবদুর রাজ্জাক বলেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৪৯ ভাগ ভোট কাস্ট হয়েছে। বিএনপি নির্বাচন বর্জন না করলে ৭০ ভাগ ভোট কাস্ট হতো। নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতে পূর্ব পরিকল্পিত নাটক মঞ্চস্থ করেছে বিএনপি। বিএনপির নীল নকশার কারণে চট্টগ্রামের মেয়র প্রার্থী মনজুর আলম নির্বাচন থেকেই শুধু নয়, রাজনীতি থেকেও সরে দাঁড়িয়েছেন। কামরুল ইসলাম বলেন, শুরু থেকেই সিটি নির্বাচনকে বিতর্কিত ও প্রশ্নবিদ্ধ করার ষড়যন্ত্র করেছে বিএনপি। তারা নাটক সৃষ্টি করে নির্বাচন বর্জন করে। এটা তাদের পূর্ব পরিকল্পনা।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৩০ এপ্রিল, ২০১৯ ইং
ফজর৪:০৪
যোহর১১:৫৬
আসর৪:৩২
মাগরিব৬:২৯
এশা৭:৪৭
সূর্যোদয় - ৫:২৫সূর্যাস্ত - ০৬:২৪
পড়ুন