শামীমের সঙ্গে দ্বন্দ্ব শেষ-আইভী ** ফের সেনা চাইলেন সাখাওয়াত
শামীমের সঙ্গে দ্বন্দ্ব শেষ-আইভী ** ফের সেনা চাইলেন সাখাওয়াত
নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে বিরামহীন প্রচারণা চালাচ্ছেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। মেয়র পদে প্রধান দুই প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের ডা. সেলিনা হায়াত্ আইভী ও বিএনপির অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান গতকাল বুধবারও ভোর থেকে মধ্যরাত অবধি নাসিকের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে ভোটারদের কাছে ছুটেছেন। গণসংযোগকালে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে ‘নৌকা’র প্রার্থী আইভী দীর্ঘদিন পর প্রথমবারের মত বলেছেন ‘শামীম ওসমানের (নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য) সঙ্গে যেটুকু দ্বন্দ্ব ছিল তা মিটে গেছে। স্থানীয় আওয়ামী লীগের সবাই আমার সঙ্গে আছেন।’ অন্যদিকে ‘ধানের শীষ’ প্রতীকের প্রার্থী সাখাওয়াত অভিযোগ করেছেন, বিভিন্ন স্থানে তার পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা হচ্ছে। ৫৩টি ভোটকেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ। সুষ্ঠু ভোট নিশ্চিতে তিনি আবারও সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়েছেন।

আর গতকাল নারায়ণঞ্জে বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র পরিদর্শনকালে নির্বাচন কমিশনার জাবেদ আলী বলেছেন, সেনাবাহিনী মোতায়েনের জন্য কমিশনের কাছে এখনও কেউ লিখিত আবেদন করেনি। নির্বাচনে সবার জন্য লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড থাকবে। আচরণবিধিও সবার জন্য সমান। কমিশন এমন একটি নির্বাচন করতে চায় যেটা হবে সিসিটিভি’র মত স্বচ্ছ ও সবার কাছে গ্রহণযোগ্য।

নৌকা ভুল না শুদ্ধ প্রমাণ হবে ২২ ডিসেম্বর: আইভী

আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের মেয়র প্রার্থী সেলিনা হায়াত্ আইভী গতকাল সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত নাসিকের ৭ নম্বর ওয়ার্ডে গণসংযোগ ও প্রচারণা চালান। সিদ্ধিরগঞ্জ এলাকায় গণসংযোগকালে শামীম ওসমানের অনুগত মহানগর আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা নৌকার পক্ষে প্রচারণায় অংশগ্রহণ না করা প্রসঙ্গে সাংবাদিকরা প্রশ্ন করলে আইভী পাল্টা গণমাধ্যমের উদ্দেশে বলেন, ‘দলের নেতা-কর্মীরা আমার পাশে নেই- এমন প্রচারণা করে আপনারা বিভক্তি সৃষ্টি করবেন না। সবাই আমার পাশে আছেন। যারা আসতে পারছেন না, নির্বাচনী আচরণবিধির বাধার কারণে তারা আসতে পারছেন না। কারণ আপনারা যাদের ইঙ্গিত করছেন তারা সংসদ সদস্য। আমি আচরণবিধি লঙ্ঘন করতে চাই না। তাছাড়া ওসমান পরিবারের সঙ্গে আমার কোনো দ্বন্দ্ব নেই। দল মনোনয়ন দেওয়ার পর থেকে আওয়ামী লীগের সব নেতা-কর্মী আমার পাশে আছেন। আর প্রতীক বরাদ্দের পর তারা স্বতঃস্ফূর্তভাবে আমার পক্ষে কাজ করছেন।’

গুম খুন নির্যাতনের বিরুদ্ধে আইভী সোচ্চার ছিলেন না: সাখাওয়াত

বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলের মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান গতকাল নাসিকের ১০ ও ১৩ নম্বর ওয়ার্ডে ব্যাপক গণসংযোগ করেছেন। এসময় পরিবর্তনের পক্ষে রায় দেয়ার জন্য ভোটারদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, গত ১৩ বছরে আইভী চেয়ারম্যান ও মেয়র থাকাকালে দৃশ্যমান তেমন কিছু করতে পারেনি। নারায়ণগঞ্জে হত্যা, নির্যাতন, গুম ও খুনের বিরুদ্ধে তিনি কখনও সোচ্চার ভূমিকা পালন করেনি। আমি নির্বাচিত হলে নারায়ণগঞ্জকে আধুনিক শহরে রূপ দেয়াসহ নারায়ণগঞ্জে মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেব, রাস্তাঘাট আধুনিকায়ন ও যানজটমুক্ত নারায়ণগঞ্জ গড়ায় নিজেকে উত্সর্গ করব।

আইভীর পক্ষে প্রচারে কেন্দ্রীয় নেতারা

নির্বাচনের বিভিন্ন দিক নিয়ে গতকাল বিকালে নগরীর ২ নম্বর রেলগেট এলাকায় জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে দলের জেলা ও মহানগর কমিটিকে নিয়ে বৈঠক করেছেন ঢাকা থেকে আসা দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ। তার সঙ্গে ছিলেন ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান নওফেল, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ ও শ্রমিক লীগের কাউসার আহাম্মেদ পলাশ। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই ও সাধারণ সম্পাদক শহীদ বাদল, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আনিসুর রহমান দিপু, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খোকন সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক জিএম আরাফাতসহ অন্যরা বৈঠকে যোগ দেন। বৈঠকে নৌকার প্রার্থীর পক্ষে কাজ করতে জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ নেতাদের আহ্বান জানান জাফর উল্লাহ।

বিভিন্ন ভোটকেন্দ্র পরিদর্শনে নির্বাচন কমিশনার জাবেদ আলী

নির্বাচন কমিশনার জাবেদ আলী নাসিক নির্বাচন পর্যবেক্ষণে গতকাল নারায়ণগঞ্জ আসেন। তিনি সার্কিট হাউজে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করেন। পরে ভোটকেন্দ্র পরিদর্শনকালে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, শুধু ভোটকেন্দ্র নয়, কেন্দ্রের বাইরেও পর্যাপ্ত নিরাপত্তা থাকবে।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ নভেম্বর, ২০২০ ইং
ফজর৫:০৭
যোহর১১:৫১
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:২৭সূর্যাস্ত - ০৫:১০
পড়ুন