পাকিস্তানি বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ৪৮ আরোহীর সবার মৃত্যু
ইত্তেফাক ডেস্ক০৮ ডিসেম্বর, ২০১৬ ইং
পাকিস্তানি বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ৪৮ আরোহীর সবার মৃত্যু
পাকিস্তানের একটি বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ৪৮ আরোহীর সবাই মারা গেছেন। এতে ৩১ পুরুষ, ৯ জন নারী এবং ২ জন শিশু রয়েছে। তিনজন বিদেশিও এই বিমানে ছিলেন। একজন সাবেক সংগীত শিল্পী ও তার পরিবারের সদস্যরাও এই দুর্ঘটনায় মারা গেছেন। গতকাল বুধবার চিত্রল থেকে ইসলামাবাদ যাওয়ার পথে অ্যাবোটাবাদের কাছে পিআইএ-৬৬১ ফ্লাইটটি বিধ্বস্ত হয়। ধারণা করা হচ্ছে, পাহাহের গায়ে আচড়ে পড়ে বিমানটিতে আগুন ধরে যায়।

পাকিস্তানের সরকারের এক কর্মকর্তা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে জানিয়েছেন, বিমানের কারো বেঁচে থাকার সম্ভাবনা নেই। পিআইএএয়ারক্র্যাফট এটিআর-৪২(এপি-বিএইচও) ইসলামাবাদ থেকে ৪৩ মাইল দূরে খাইবারপাখতুনখাওয়া প্রদেশের হাভেলিন শহরের কাছে সাদ্দাবাটোলনি গ্রামে একটি অস্ত্র কারখানার কাছে বিধ্বস্ত হয়। এতে ৪২ জন যাত্রী, ৫ জন ক্রু এবং একজন প্রকৌশলী ছিলেন। পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইনসের (পিআইএ) মুখপাত্র ডেনিয়েল গিলারি সংবাদ মাধ্যম ডনকে জানান, গতকাল স্থানীয় সময় বিকেল ৪টা ৪২ মিনিটে ঘটা বিমান দুর্ঘটনায় সংগীত শিল্পী জুনায়েদ জামশেদ, তার পরিবারের সদস্যসহ ৩ জন বিদেশিও মারা গেছেন। বিমানটি বিকেল ৩টা ৩০ মিনিটে চিত্রল বিমানবন্দর ত্যাগ করে। বিকেল ৪ টা ৪০ মিনিটে ইসলামাবাদের বেনজির ভুট্টো আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌছানোর কথা ছিল। কিন্তু পৌছানোর কিছুক্ষণ আগেই এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের সঙ্গে বিমানটির যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। সরকারি কর্মকর্তা তাজ মুহাম্মদ খান জানিয়েছেন, আরোহীদের দেহ এমনভাবে পুড়ে গেছে যে তাদের পরিচয় নিশ্চিত করা হয়তো সম্ভব হবে না। বিশেষজ্ঞরা দুর্ঘটনাস্থলের ছবি দেখে ধারণা করছেন, পাহাড়ের গায়ে আঁচড়ে পড়ার পর বিমানটিতে আগুন ধরে যায়। যদিও স্থানীয়দের বরাত দিয়ে তাজ জানান, পার্বত্য এলাকায় বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। মাটিতে পড়ার আগেই বিমানটিতে আগুন ধরে যায়। প্রত্যক্ষদর্শী জুম্মা খান বলেন, আমরা অনেকের মৃতদেহ উদ্ধার করেছি। তবে তারা নারী না পুরুষ তা বুঝতে পারছি না। আমরা কেবল পা এবং হাত উদ্ধার করেছি।

চিত্রল বিমানবন্দর সূত্র জানিয়েছে, বিমানে সাবেক সংগীত শিল্পী জুনায়েদ জামশেদ ছিলেন। তিনি চিত্রলে তাবলিগ জামাতে এসেছিলেন। শুক্রবার ইসলামাবাদের পার্লামেন্ট মসজিদে তার বক্তৃতা করার কথা ছিল। তার সঙ্গে তার পরিবারের কয়েকজন সদস্যও ছিলেন। ১৯৮০ এবং ‘৯০ এর দশকে তার গান বেশ জনপ্রিয় ছিল। পরে তিনি তাবলিগ জামাতের সঙ্গে জড়িত হন। ঘটনাস্থলে সেনাবাহিনীর হেলিকপ্টার পাঠানো হয়েছে। সেনাবাহিনী জানিয়েছে, তারা ৫ টি মৃতদেহ উদ্ধার করেছেন। তবে ঠান্ডা আবহাওয়ায় উদ্ধার কাজ ব্যাহত হচ্ছে।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ নভেম্বর, ২০২০ ইং
ফজর৫:০৭
যোহর১১:৫১
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:২৭সূর্যাস্ত - ০৫:১০
পড়ুন