আঘাতের চিহ্ন মেলেনি শাকিলের শরীরে
০৮ ডিসেম্বর, ২০১৬ ইং
আটক ৬ জনকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে

ইত্তেফাক রিপোর্ট

প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী মাহবুবুল হক শাকিলের ময়নাতদন্ত গতকাল বুধবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ ফরেনসিক বিভাগে সম্পন্ন হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে চিকিত্সকরা জানিয়েছেন, তার শরীরে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তিন সদস্যের একটি মেডিকেল বোর্ড মাহবুবুল হক শাকিলের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করে। ময়নাতদন্ত শেষে সকাল সোয়া ১০টায় তার লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

এদিকে গুলশানের রেস্টুরেন্ট থেকে মাহবুবুল হক শাকিলের লাশ উদ্ধারের ঘটনায় গুলশান থানার এসআই ইভা আক্তার বাদী হয়ে একটি জিডি করেছেন। গুলশান থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম জানান, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারীর মৃত্যুর খবর শুনে আমাদের একজন কর্মকর্তা সামদাদো রেস্তোরায় যান। সেখানে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জিজ্ঞাসাবাদ করেছি। তাদের কাছ থেকে এমন কিছু পাওয়া যায়নি।  তথাপিও তিনি যেহেতু একজন রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ পদের ব্যক্তি তাই লাশের ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়।

অন্যদিকে, সামদাদো রেস্তোরা থেকে আটক ৬ কর্মচারীকে মঙ্গলবার রাতেই জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। সিআইডি’র একজন কর্মকর্তা জানান, জিজ্ঞাসাবাদে তাদের কাছ থেকে তেমন কোনো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া যায়নি।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে ময়নাতদন্তকারী মেডিকেল বোর্ডের প্রধান ছিলেন ফরেনসিক বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডা. সোহেল মাহমুদ। মেডিকেল বোর্ডের অপর দুই সদস্যরা হলেন- সহকারী অধ্যাপক ডাক্তার আ ফ ম শফিউজ্জামান ও প্রভাষক প্রদীপ কুমার। ময়নাতদন্ত শেষে সহাকলী অধ্যাপক ডা. সোহেল মাহমুদ সাংবাদিকদের জানান, তার শরীরের কোথাও কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তার পাকস্থলির আলামত মহাখালীর স্বাস্থ্য অধিদফতরে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া হার্ট, রক্ত ও ইউরিন পরীক্ষার জন্য আলামত হিস্ট্রোপ্যাথলজি বিভাগে পাঠানো হয়েছে। এসব পরীক্ষার রিপোর্ট পাওয়ার পর ময়নাতদন্তের পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট দেওয়া সম্পন্ন হবে।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ নভেম্বর, ২০২০ ইং
ফজর৫:০৭
যোহর১১:৫১
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:২৭সূর্যাস্ত - ০৫:১০
পড়ুন