রোহিঙ্গা বিতাড়নে মমতার না
রোহিঙ্গা নির্যাতন বন্ধের আহ্বান দালাইলামার
ইত্তেফাক ডেস্ক১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং
মিয়ানমার থেকে উত্খাত হওয়া যেসব রোহিঙ্গা মুসলিম ভারতের ঢুকেছে তাদের ‘পুশব্যাক’ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ভারতের নরেন্দ্র মোদীর সরকার। রাজ্যগুলোকে এই নীতি মেনে চলতে বলেছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়। কিন্তু সেই নির্দেশ মানতে রাজি নয় পশ্চিমবঙ্গের মমতা ব্যানার্জির সরকার। নবান্নের শীর্ষ মহল সিদ্ধান্ত নিয়েছে উদ্বাস্তু রোহিঙ্গারা এ রাজ্যে থাকতে চাইলে মানবিকতার খাতিরেই তাদের থাকতে দেওয়া হবে। কোনো অবস্থাতেই জোর করে ফেরত পাঠানো হবে না। রাজ্য প্রশাসনের এক শীর্ষ কর্মকর্তা বলেছেন, রোহিঙ্গারা মুসলিম বলেই কেন্দ্র এমন অবস্থান নিচ্ছে। কিন্তু কেন্দ্র অমানবিক হলেও আমরা তা হতে পারবো না। এদিকে তিব্বতের ধর্মীয় নেতা দালাইলামা রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর নির্যাতন বন্ধের আহবান জানিয়েছেন। অন্যদিকে ইরান বলছে, রোহিঙ্গারা ইসরাইলি ষড়যন্ত্রের শিকার। খবর ইকোনোমিক টাইমস ও আনন্দবাজার পত্রিকার।

মিয়ানমারে সন্ত্রাসের কবলে পড়ে গত                কয়েক বছর ধরে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা দেশ ছেড়ে নৌকায় করে বিভিন্ন দেশে পাড়ি দিচ্ছে। ভারতে আশ্রয় নিয়েছে ৪০ হাজার রোহিঙ্গা। তাদের মধ্যে প্রায় ১০ হাজার জম্মু লাগোয়া এলাকায় রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী মোদী মিয়ানমার সফরে গিয়ে তাদের সকলকে ‘পুশব্যাক’ করার নীতি ঘোষণা করে এসেছেন। পশ্চিমবঙ্গে রোহিঙ্গা শরণার্থীর সংখ্যা তেমন নয়। বনগাঁ-বসিরহাট সীমান্ত এবং উত্তরবঙ্গের বেশ কিছু এলাকা দিয়ে কিছু রোহিঙ্গা এই রাজ্যে প্রবেশ করেছে। ধরা পড়ার পর তাদের অনেকেইে এখন জেলে। আসামে দাঙ্গার পর উত্তরবঙ্গেও বেশ কিছু রোহিঙ্গা আশ্রয় নিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে এদের কাউকেই ‘পুশব্যাক’ করা হবে না বলে সরকারি স্তরে সিদ্ধান্ত হয়েছে। যদিও কেন্দ্রের চাপে এ রাজ্যের বিভিন্ন হোমে বন্দি থাকা ২৩ জন মহিলা ও শিশুর পরিচয়পত্র বিতরণ বন্ধ রাখতে হয়েছে। ইউনাইটেড নেশন হাইকমিশন ফর রিফিউজিস রোহিঙ্গাদের জন্য বিশেষ পরিচয়পত্র দিচ্ছে।

রোহিঙ্গা নির্যাতন বন্ধের আহবান দালাইলামার

মিয়ানমারের রাখাইন পরিস্থিতিতে শোক জানিয়ে রোহিঙ্গাদের ওপর দমনপীড়ন বন্ধে দেশটির স্টেট কাউন্সেলর অং সান সুচির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিব্বতের ধর্মীয় নেতা দালাইলামা। বুদ্ধের শিক্ষায় উদ্বুদ্ধ হয়ে নির্যাতিত মুসলিমদের পাশে দাঁড়াতে বৌদ্ধদের প্রতিও আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। শনিবার সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে রোহিঙ্গাদের প্রশ্নে সোচ্চার হন দালাইলামা। তিনি বলেন,  অং সান সু চিকে জানাতে চাই, যারা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে হয়রানি করছে, তাদের এসব আগ্রাসী কর্মকাণ্ড করার আগে মহামতি বুদ্ধের কথা একবার মনে করা উচিত। বুদ্ধের অহিংস পথ অনুসরণ করে সহিংস কর্মকাণ্ড বন্ধ করতে রোহিঙ্গাদের ওপর আক্রমণকারীদের আহ্বান জানান তিনি।

ইসরাইলি ষড়যন্ত্রের শিকার : ইরান

রোহিঙ্গাদের ওপর মিয়ানমারের মানবতাবিরোধী অপরাধ ও জাতিগত নিধনযজ্ঞের তীব্র নিন্দা জানিয়েছে ইরান। এই মুসলিম জনগোষ্ঠী ইহুদিবাদী ইসরাইলের সংঘবদ্ধ অপরাধযজ্ঞের শিকার হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের সর্বোচ্চ নেতার সিনিয়র উপদেষ্টা ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী আলী আকবর বেলায়েতি। তার বিবৃতিকে উদ্ধৃত করে তেহরানভিত্তিক পার্সটুডে এই খবর জানিয়েছে।

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১১ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ইং
ফজর৪:২৭
যোহর১১:৫৬
আসর৪:২৩
মাগরিব৬:১০
এশা৭:২৩
সূর্যোদয় - ৫:৪৪সূর্যাস্ত - ০৬:০৫
পড়ুন