বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক সংস্কারের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর
একনেকে ১৬ প্রকল্প অনুমোদন
ইত্তেফাক রিপোর্ট২৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ইং
বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক সংস্কারের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় মোট ১৬ টি প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এ প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ১৬ হাজার ১০ কোটি টাকা। প্রকল্প ব্যয়ের ১১ হাজার ৮৭০ কোটি ৪৮ লাখ টাকা দেওয়া হবে সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে। প্রকল্প বাস্তবায়নকারী মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোর নিজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় হবে ৩০০ কোটি ৩৪ লাখ টাকা। অবশিষ্ট ৩ হাজার ৮৩৯ কোটি ৪২ লাখ টাকা প্রকল্প সহায়তা হিসেবে বিদেশি উত্স থেকে পাওয়া যাবে। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর এনইসি সম্মেলন কেন্দ্রে একনেক সভা প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। সভা শেষে এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে পরিকল্পনা মন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল সাংবাদিকদের বিভিন্ন বিষয় জানান।

মন্ত্রী জানান, বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সড়ক সংস্কারের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাস্তা তদারকি, মেরামত বা সংস্কারের গুণগতমান বজায় রাখতে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরকে (এলজিইডি) দায়িত্ব পালনের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। তিনি বলেছেন, রাস্তার যেখান দিয়ে পানি গড়িয়ে পড়ে সেখানে পাইপ বসাতে হবে। যাতে রাস্তা ভেঙ্গে না যায়।

পরিকল্পনা মন্ত্রী জানান, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের জন্য অবকাঠামো উন্নয়ন সংক্রান্ত একটি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। প্রকল্পের আওতায় রাস্তা সম্প্রসারণের কারণে আপাতত এলইডি লাইট স্থাপন ও চারটি চলন্ত সিঁড়িযুক্ত ফুটওভারব্রিজ স্থগিতের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এ কারণে প্রকল্পের ব্যয়ে পরিবর্তন হতে পারে।

এদিকে ৩ হাজার ১৮৩ কোটি ৫৬ লাখ টাকা ব্যয় ধরে ময়মনসিংহ অঞ্চল পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে একনেক। রংপুর বিভাগ গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ৮৮৪ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। রাজশাহী বিভাগ (সিরাজগঞ্জ জেলা ব্যতিত) পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ৮০ কোটি ৪০ লাখ টাকা।

বাংলাদেশ মেরিন ফিশারিজ ক্যাপাসিটি বিল্ডিং প্রকল্প অনুমোদন দিয়েছে একনেক। এ প্রকল্পে ব্যয় হবে ১৭০ কোটি ২৩ লাখ টাকা। কৃষি তথ্য সার্ভিস আধুনিকায়ন ও ডিজিটাল কৃষি তথ্য ও যোগাযোগ শক্তিশালীকরণ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৮ কোটি ৭১ লাখ টাকা। অনুমোদন পাওয়া বিদ্যমান পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট সমূহের অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ২ হাজার ৫৬১ কোটি ৯২ লাখ টাকা। সিলেট, বরিশাল, রংপুর এবং ময়মনসিংহ বিভাগে চারটি নতুন মহিলা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট স্থাপনে নেয়া প্রকল্পে ব্যয় হবে ৩৫৩ কোটি ৯৮ লাখ টাকা।

এর বাইরে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পে ৪৯১ কোটি ৩৪ লাখ টাকা, শিশু ও নারী উন্নয়নে সচেতনমূলক যোগাযোগ কার্যক্রম প্রকল্পে ১৩৯ কোটি ৬২ লাখ টাকা, চক্ষু স্বাস্থ্য উন্নয়ন ও অন্ধত্ব দূরীকরণ প্রকল্পে ৭৪ কোটি ৮৮ লাখ টাকা, বাংলাদেশ রেলওয়ের জন্য ২০টি মিটার গেজ ডিজেল ইলেক্ট্রিক লোকোমোটিভ এবং ১৫০টি মিটারগেজ যাত্রীবাহী ক্যারেজ সংগ্রহ প্রকল্পে ১ হাজার ৭৯৯ কোটি ১১ লাখ টাকা ব্যয় করার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক এবং ব্রিজসমূহের উন্নয়নসহ আধুনিক যান যন্ত্রপাতি সংগ্রহ ও সড়ক আলোকায়ন প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৩০ কোটি ১৩ লাখ টাকা। ত্রিশাল-বালিপাড়া-নান্দাইল জেলা মহাসড়ক প্রশস্তকরণ ও মজবুতিকরণ প্রকল্পে ব্যয় হবে ১১৪ কোটি ৪৯ লাখ টাকা।

১ হাজার ৬৩ কোটি ২৫ লাখ টাকা ব্যয় ধরে মিরসরাই ১৫০ মেগাওয়াট ডুয়েল ফুয়েল বিদ্যুত্ কেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে একনেক। একই এলাকায় বিদ্যুত্ সঞ্চালন অবকাঠামো উন্নয়নে ব্যয় হবে ৩২৪ কোটি ৫৯ লাখ টাকা। ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিরতা, ময়মনসিংহ ও কালকিনি, মাদারীপুর ইসলামিক মিশন হাসপাতাল কমপ্লেক্স ভবন নির্মাণ এবং বায়তুল মোকাররম ডায়াগনস্টিক সেন্টার শক্তিশালীকরণ প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৯ কোটি ১৭ লাখ টাকা।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৭ নভেম্বর, ২০২১ ইং
ফজর৫:১৮
যোহর১২:০০
আসর৩:৪৪
মাগরিব৫:২৩
এশা৬:৪১
সূর্যোদয় - ৬:৩৯সূর্যাস্ত - ০৫:১৮
পড়ুন