নির্বাচন বানচাল করতে নাশকতা হলে সমুচিত জবাব
ধানের শীষ এখন সাপের বিষ--- কাদের
বিশেষ প্রতিনিধি০৬ অক্টোবর, ২০১৮ ইং
ধানের শীষ এখন সাপের বিষ--- কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘আওয়ামী লীগের সময় দেশের ব্যাপক উন্নয়নে মানুষ সন্তুষ্ট। আওয়ামী লীগ সরকার দেশে যে পরিমাণ উন্নয়ন করছে তা গত একশ’ বছরেও কেউ দেখেনি। বিএনপি সরকার ক্ষমতায় এলে দেশে উন্নয়ন হবে না। এ কারণে দেশের মানুষ বিএনপিকে চায় না। ধানের শীষ এখন সাপের বিষ। এটা আমার কথা না। কালকে (বৃহস্পতিবার) গাড়ি দিয়ে যাচ্ছিলাম, একজন তো বলেই ফেলল পেটের বিষ নয়, ধানের শীষ সাপের বিষ। এই বিষ কী কেউ খাবে? এই বিষ বাংলার মানুষ আর পান করবে না।’

আওয়ামী লীগের সপ্তাহব্যাপী নির্বাচনী গণসংযোগের পঞ্চম দিন গতকাল শুক্রবার সকালে রাজধানীর গাবতলীতে দলের প্রচারে অংশ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, এটা ২০১৪ সাল না, ২০১৮ সাল। বিএনপি নির্বাচন বানচাল করার লক্ষ্যে কোনো নাশকতা করলে তার সমুচিত জবাব দেবে বাংলাদেশের জনগণ। তিনি বলেন, বিএনপি সোজা পথ দিয়ে ক্ষমতা যেতে চায়, এটা মনে করার কোনো কারণ নেই। বিএনপি বুঝে ফেলেছে সোজা পথে তাদের ক্ষমতায় যাওয়ার কোনো সুযোগ নেই। জনগণ তাদের চায় না। বিএনপির কারাবন্দি চেয়ারপারসন  খালেদা জিয়ার বিষয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে আওয়ামী লীগ নয়, বিএনপিই রাজনীতি করেছে। খালেদা জিয়ার চিকিত্সার জন্য বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল কলেজ উপযুক্ত জায়গা, আদালতও সেটি বলেছে। তাহলে সরকারের ভুল কোথায়?

বাম দলের সঙ্গে ঐক্যের বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি কোনো জোটকে নির্বাচনে আমাদের সঙ্গে ঐক্য করতে বলিনি। আমি বলেছি, বামপন্থিরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাস করে। জাতির পিতাকে শ্রদ্ধা করে। বামপন্থিদের ভেতরে কেন এত ভাঙনের সুর? আপনারা ঐক্যবদ্ধ থাকুন। তাদের আমাদের সঙ্গে ঐক্য করতে আমি বলিনি। আমরা ঐক্য চেয়েছি সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে, স্বাধীনতার শত্রুদের বিরুদ্ধে।’ একাদশ জাতীয় নির্বাচনে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং সিস্টেম (ইভিএম) ব্যবহার প্রসঙ্গে সেতুমন্ত্রী বলেন, ইভিএম সীমিত পরিসরে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্যবহার হোক এটা আওয়ামী লীগ চায়। গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ (আরপিও) সংশোধন বিলটি দশম জাতীয় সংসদের শেষ অধিবেশনে পাস হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলেও জানান আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, নির্বাচন কমিশন যদি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে পাঠাতে পারে, তাহলে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশ সংশোধন বিলটি সংসদের আগামী অধিবেশনে পাস হবে। শেষ অধিবেশনে কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় আসবে। তবে অধিবেশন হবে খুবই সংক্ষিপ্ত। শেষ অধিবেশন এক সপ্তাহের মতো হতে পারে। এখানে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় থাকবে। ওবায়দুল কাদের বলেন, আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থীদের মনোনয়নের ক্ষেত্রে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত  নেবেন আওয়ামী লীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনা। দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গেলে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দেন ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘জনগণের কাছে জনপ্রিয়তায় যারা এগিয়ে থাকবেন, মনোনয়ন তাদেরকেই দেয়া হবে।’ ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সাদেক খানের সঞ্চালনায় গণসংযোগে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস, বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, ঢাকা-১৪ আসনের সাংসদ আসলামুল হক, দারুস সালাম থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী ফরিদুল হক হ্যাপী প্রমুখ।

এদিকে গতকাল সকালে রাজধানীর মানিক মিয়া এভিনিউতে লায়ন্স ক্লাবস্? ইন্টারন্যাশনালের উদ্যোগে ‘অক্টোবর সেবা পক্ষ ২০১৮’ উপলক্ষে এক র্যালির উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে গণসংযোগ চালাতে বিএনপিকে নিষেধ করা হয়নি। তফসিল ঘোষণার আগেই আওয়ামী লীগ গণসংযোগের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপিকে নির্বাচন নিয়ে গণসংযোগ করতে আমরা মানা করিনি। এ ব্যাপারে বাধাও নেই। আমরাও যেভাবে প্রচারণা চালাচ্ছি তারাও সেভাবে চালাবে। কিন্তু তারা নিজেদের ঘরের ঝামেলা নিয়ে এত ব্যস্ত যে জনসংযোগ চালাতে পারছে না।’ এ সময় চলতি মাসের (অক্টোবর) শেষ দিকে নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হতে পারে বলে জানান সেতুমন্ত্রী। নির্বাচনকালীন সরকারে সংসদে প্রতিনিধিত্বকারী দলগুলোর বাইরে কেউ থাকতে পারবে না জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সংসদ সদস্যদের নিয়ে নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হবে।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৬ অক্টোবর, ২০২১ ইং
ফজর৪:৩৬
যোহর১১:৪৭
আসর৪:০৩
মাগরিব৫:৪৫
এশা৬:৫৬
সূর্যোদয় - ৫:৫১সূর্যাস্ত - ০৫:৪০
পড়ুন