বই আলোচনা
‘কালের ধ্বনি’র আবুল মনসুর আহমদ সংখ্যা
২০ মার্চ, ২০১৫ ইং
সমাজ ও সময়ের কাছে দায়বদ্ধ লেখক ছিলেন আবুল মনসুর আহমদ (১৮৯৮-১৯৭৭)। তাঁর জীবন ও কর্মের তাত্পর্য অনুসন্ধান এবং সাহিত্যকর্মের মূল্যায়ন নিয়ে সমপ্রতি প্রকাশিত হয়েছে ইমরান মাহফুজের সম্পাদনায় ‘কালের ধ্বনি’। আমাদের সাহিত্য, সাংবাদিকতা, রাজনীতির ক্ষেত্রে আবুল মনসুর আহমদ ছিলেন প্রথিতযশা ব্যক্তি। তাঁকে নিয়ে এই ধরনের মূল্যায়নধর্মী সংকলন প্রকাশকে আমি আন্তরিকভাবে সাধুবাদ জানাই। এ সংখ্যার বিশেষত্ব এখানেই যে, সত্তর জন লেখক-সমালোচক স্বতন্ত্র দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে আবুল মনসুর আহমদকে দেখেছেন। সাংবাদিকতা ও রাজনীতির ক্ষেত্রে আবুল মনসুর আহমদের ভূমিকার কথা ও নানা জনের লেখা পড়ে আমি অনেক অজানা তথ্য পেয়ে উপকৃত হয়েছি। আজকের দিনের সাংবাদিক ও মিডিয়াকর্মীদের অনেক শিক্ষণীয় বিষয় রয়েছে ওইসব লেখায়। সূচির দিকে তাকালে দেখা যায়, আবুল মনসুর আহমদের ‘সাহিত্য মূল্যায়ন’, ‘বঙ্গ শিল্পের মূল্যায়ন’, ‘রাজনৈতিক বিশ্লেষণ’, ‘সংবাদপত্র ও সাংবাদিকতা’ এবং ‘জীবনদর্শন’ ইত্যাদি শিরোনামে লেখাগুলো সুবিন্যস্ত। ‘সাহিত্য মূল্যায়ন’ অংশে মোট বাইশজনের লেখা সংকলিত হয়েছে। সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর আবুল মনসুরের স্বাতন্ত্র্য খুঁজেছেন তাঁর কর্মে ও লেখায়। আল মাহমুদ চিহ্নিত করেছেন ‘দুর্লভ লেখক’ হিসেবে। ‘জীবন ক্ষুধা’ উপন্যাসের উপর একটা তাত্পর্যপূর্ণ লেখা লিখেছেন যতীন সরকার। সৈয়দ আবুল মকসুদের লেখাটির মধ্যে স্মৃতি, ঋণ, অভিজ্ঞতা সব মিলিয়ে ভিন্নধর্মী এক লেখা হয়েছে। শহীদ ইকবাল দেখিয়েছেন ‘আয়না’ ও ‘সত্যমিথ্যা’ অন্তরালের বিষয়টি। অনেকের লেখার এমন অনেক সুন্দর প্রসঙ্গ আছে যে উদ্ধৃতি দেয়ার লোভ সামলানো মুশকিল। যেমন—‘জীবন ক্ষুধা’ উপন্যাসের উপর আব্দুর রহিমের লেখা এবং ‘গালিভারের সফরনামা’র উপর খন্দকার মাহমুদুল হাসানের লেখায় নতুন তাত্পর্য অনুসন্ধান আছে। ‘ব্যঙ্গ শিল্পের মূল্যায়ন’ অংশে ড. আনিসুজ্জামানের লেখা পড়ে আমি অভিভূত। তাঁর মতো একজন রাশভারী লেখকও ‘আয়নার’ বিশেষত্ব খুঁজেছেন। আমাদের ধর্মীয়, রাজনৈতিক ও সামাজিক জীবনের নানা মূঢ়তা নিয়ে তিনি রঙ্গব্যঙ্গ করেছেন। এই বইটি উত্সর্গ করা হয়েছে আবুল কালাম শামসুদ্দীন’কে। উত্সর্গে লিখেছেন—‘এই হাসির পেছনে যে কতটা কান্না লুকানো আছে’ এই কথাটি প্রণিধানযোগ্য। ব্যঙ্গস্রষ্টার শিল্পকৌশল ও মানস মূল্যায়ন করেছেন রাজীব হুমায়ুন, সুজিত সরকার, আবু হেনা আব্দুল আউয়াল ও সরিফা সালোয়া ডিনা।

‘রাজনৈতিক বিশ্লেষণ’ অংশে অজয় রায়ের লেখা ‘আত্মপরিচয়ের জন্যই জানতে হবে তাকে’ লেখাটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এছাড়া হাবিব আর রহমানের লেখা ‘পঞ্চাশ বছরের রাজনীতির খতিয়ান’ এবং দিব্যদ্যুতি সরকারের লেখা পাঠককে আন্দোলিত করবে নিশ্চয়।

আবুল মনসুর আহমদের কথাসাহিত্যের অন্তর্লোক, ব্যঙ্গনৈপুণ্যের অসাধারণ অভিঘাতের ওপর লেখাগুলো এক দুর্লভ সংগ্রহ হতে পারে।

‘আমার দেখা রাজনীতির পঞ্চাশ বছর’, ‘বাংলাদেশের কালচার’ কিংবা তাঁর জীবনদৃষ্টি নতুন আলোয় দেখার সুযোগ পাবে ‘কালের ধ্বনি’ বর্তমান সংকলনে। আবুল মনসুর আহমদকে নিয়ে ‘কালের ধ্বনি’র এ আয়োজন খুবই গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচিত হবে বলে আমার বিশ্বাস।

 

n  আহমেদ মাওলা

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২০ মার্চ, ২০১৯ ইং
ফজর৪:৪৭
যোহর১২:০৭
আসর৪:২৮
মাগরিব৬:১৩
এশা৭:২৫
সূর্যোদয় - ৬:০২সূর্যাস্ত - ০৬:০৮
পড়ুন