কানেকটিভিটি চুক্তি হলো দক্ষিণ এশিয়ার উন্নয়নে ইতিবাচক নির্দেশনা
------------- ব্লুম বার্নিকাট
ইত্তেফাক রিপোর্ট১৫ জুন, ২০১৫ ইং
কানেকটিভিটি চুক্তি হলো দক্ষিণ এশিয়ার উন্নয়নে ইতিবাচক নির্দেশনা
ঢাকায় যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা স্টিফেন্স ব্লুম বার্নিকাট বলেছেন, আঞ্চলিক যোগাযোগ বা কানেকটিভিটির জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্রী মোদীর স্বাক্ষরিত চুক্তিগুলো দক্ষিণ এশিয়ায় অর্থনৈতিক উন্নয়নের একটি ইতিবাচক দিক-নির্দেশনা। গতকাল রবিবার রাজধানীর হোটেলে ফরেন ইনভেস্টরস চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এফআইসিসিআই)’র এক মধ্যাহ্ন ভোজসভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

বার্নিকাট বলেন, আমরা নতুন কর্মসংস্থান সৃষ্টি এবং অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির মাধ্যমে দেশের নাগরিকদের পূর্ণ অর্থনৈতিক সম্ভাবনার উন্নয়ন প্রচেষ্টার গুরুত্বের সঙ্গে একমত পোষণ করি। তিনি বলেন, এর মধ্যে রয়েছে নারীর কল্যাণ ও পেশাগত সম্ভাবনার উন্নয়ন যে ক্ষেত্রটিকে বাংলাদেশ গুরুত্বপূর্ণ এবং ইতিবাচক হিসেবে দেখছে। প্রকৃতপক্ষে এই দেশের অর্থনৈতিক সাফল্যের নির্মাতা হলেন তৈরি পোশাক শিল্পের নারীরা। তিনি বলেন, এশিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক উন্নয়নের কৌশলকে এবং ইন্দো-প্যাসিফিক অর্থনৈতিক করিডোরের (আইপিইসি) মাধ্যমে দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে উন্নততর যোগাযোগের প্রচেষ্টাকে প্রেসিডেন্ট ওবামা সমর্থন দিয়েছেন। বিদ্যুত্ উত্পাদন বৃদ্ধি, বাণিজ্যিক বাধা দূরীকরণ, যোগাযোগ বৃদ্ধি এবং জনগণের সাথে জনগণের সম্পর্ক উন্নয়নের লক্ষ্যে  যুক্তরাষ্ট্র ইন্দো-প্যাসিফিক অর্থনৈতিক করিডোরকে সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, যে ক্ষেত্রগুলোতে আমরা বাংলাদেশের বেশি সম্ভাবনা দেখি সেগুলো হলো— দক্ষিণ এশিয়ায় আঞ্চলিক জ্বালানি বাজার উন্নয়ন যা পরিবেশবান্ধব, নবায়নযোগ্য বিদ্যুত্ সরবরাহ করবে, যেমন করে থাকে নেপাল এবং ভুটানের বিশাল জলবিদ্যুত্ সম্পদ। তিনি বলেন, সেবা ও পণ্য বাণিজ্যের দক্ষতা বৃদ্ধি, রাস্তা, রেলপথ এবং বন্দরের যোগাযোগ বৃদ্ধির মাধ্যমে উন্নয়নের পথে এগুতে হবে।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৫ জুন, ২০২১ ইং
ফজর৩:৪৩
যোহর১১:৫৯
আসর৪:৩৯
মাগরিব৬:৪৯
এশা৮:১৪
সূর্যোদয় - ৫:১১সূর্যাস্ত - ০৬:৪৪
পড়ুন