মোনায়েম খানকে কোনো কর্তৃত্ববলে ৫ বিঘা জমি বরাদ্দ দেয়া হয়
জানতে চেয়েছে হাইকোর্ট
ইত্তেফাক রিপোর্ট১৪ নভেম্বর, ২০১৬ ইং
পূর্ব পাকিস্তানের সাবেক গভর্নর মোনায়েম খানকে কোন কর্তৃত্ববলে বনানীতে পাঁচ বিঘা জমি বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল তার ব্যাখ্যা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে যথাযথ কর্তৃপক্ষকে এই রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। গতকাল রবিবার এ সংক্রান্ত মামলার শুনানিকালে বিচারপতি ওবায়দুল হাসান এবং বিচারপতি কৃষ্ণা দেবনাথের ডিভিশন বেঞ্চ স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে এই আদেশ দেন। এছাড়া রাজউকের লে-আউট প্ল্যানে থাকা কতটুকু অংশ সবুজায়নের জন্য বরাদ্দ রয়েছে তা নির্ধারণ করে আদালতে প্রতিবেদন দিতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন ও রাজউককে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আদালতে উত্তর সিটি করপোরেশনের পক্ষে অ্যাডভোকেট আহসানুল করিম শুনানি করেন। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন মোতাহার হোসেন সাজু।

আহসানুল করিম বলেন, মোনায়েম খান তত্কালীন সময়ে অবৈধভাবে নিজের অবস্থানকে ব্যবহার করে পাঁচ বিঘা ১৫ ছটাক জমি বরাদ্দ নিয়েছিলেন। একজন ব্যক্তির নামে রাজধানীর বনানীতে এই পরিমাণ জমি বরাদ্দ দেয়া হয়েছিল বেআইনিভাবে।

মামলার নথি সূত্রে জানা গেছে, বনানীর ব্লক-এ ১১০ নম্বরে পাঁচ বিঘা ১৫ ছটাকের প্লটটি তত্কালীন ডিআইটি হতে ১৯৬৬ সালে বরাদ্দপ্রাপ্ত হয়ে ১৯৬৭ সালে লিজ দলিল সম্পাদন ও রেজিস্ট্রি করা হয়। ২০০৯ সালে ঢাকা সিটি করপোরেশন তাদের সম্পত্তি দাবি করে একটি চিঠি দেন। ওই চিঠির বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে একটি রিট করা হয়। পরে হাইকোর্ট ওই সম্পত্তির ওপর স্থিতিবস্থা জারি করে। কিন্তু সম্প্রতি সিটি করপোরেশন উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে রাজউকের লে আউট প্ল্যানে থাকা ১০ কাঠা জমি উদ্ধার করে। এরপরই মোনায়েম খানের ছেলে মো. কামারুজ্জামান খান হাইকোর্টে উচ্ছেদ অভিযান নিয়ে আবেদন দাখিল করেন। ওই আবেদনের ওপর হাইকোর্ট রুল জারি করে। গতকাল ওই রুল শুনানির এক পর্যায়ে হাইকোর্ট উপরোক্ত আদেশ দেয়।

 

 

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১৪ নভেম্বর, ২০২০ ইং
ফজর৪:৫৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৩৮
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩২
সূর্যোদয় - ৬:১১সূর্যাস্ত - ০৫:১২
পড়ুন