আজ নিয়োগ পাচ্ছে সাড়ে ৯ হাজার নার্স
১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে যোগদান
শ্যামল সরকার০৮ ডিসেম্বর, ২০১৬ ইং
আজ নিয়োগ পাচ্ছেন ৯ হাজার ৪৭৮ জন নার্স। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় থেকে আজ বৃহস্পতিবার নিয়োগের আদেশ জারি হবে। আগামী ১৫ ডিসেম্বরের মধ্যে এসব নার্সকে সংশ্লিষ্ট কর্মস্থলে যোগ দিতে হবে। আগামী জুলাই মাসে আরও ৫ হাজার নার্স নিয়োগের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। বাংলাদেশের ইতিহাসে একসঙ্গে এত বেশি সংখ্যায় কোনো খাতে নিয়োগ এই প্রথম। এ নিয়োগের ক্ষেত্রে স্বাস্থ্য মন্ত্রী মো. নাসিমের ব্যক্তিগত উদ্যোগ উল্লেখযোগ্য। দেশে সর্বশেষ ২০১৩ সালে ৪ হাজার ১০০ নার্স নিয়োগ দেওয়া হয়।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের চাহিদার বিপরীতে সরকারি কর্মকমিশন আগেই এসব নার্স নিয়োগের সুপারিশ করেছিল। পিএসসি পরীক্ষায় অবশ্য চূড়ান্তভাবে ৯ হাজার ৬০৩ জন উত্তীর্ণ হয়। কিন্তু কাগজপত্রের ত্রুটিজনিত কারণে ১৩১ জনের চূড়ান্ত সুপারিশ স্থগিত রাখা হয়। স্থগিতকৃত প্রার্থীরা প্রয়োজনীয় কাগজপত্র প্রদর্শন করলে তারাও নিয়োগের যোগ্য বিবেচিত হবেন।

প্রসঙ্গত. বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাব মতে একজন চিকিত্সকের বিপরীতে তিন করে নার্স থাকার কথা। কিন্তু আলোচ্য সাড়ে ৯ হাজার নার্স নিয়োগের পর দেশে নার্সের সংখ্যা হবে ৩০ হাজারের কিছু কমবেশি। পক্ষান্তরে চিকিত্সক আছেন ২৫ হাজারের মতো। সে অনুযায়ী নার্স প্রয়োজন ৭৫ হাজার।

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসাব মতে নার্সের প্রকৃত শূন্য পদ আছে মাত্র ১ হাজার ১০০টি। আগামী জুলাই মাসের মধ্যে আরও ৩ হাজারের বেশি নতুন পদ সৃষ্টি করে পাঁচ হাজার নার্স নিয়োগের সুযোগ তৈরি করা হবে। 

উল্লেখ করা যেতে পারে, নার্সের পদটি দ্বিতীয় শ্রেণির পদমর্যাদায় উন্নীত করায় এখন তাদের নিয়োগ পরীক্ষা পিএসসির মাধ্যমে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তবে পিএসসি মাত্র ৪ মাসের মধ্যে সাড়ে ৯ হাজার নার্সের নিয়োগ পরীক্ষা চূড়ান্ত করে যা বিরল। কারণ পিএসসির সাধারণ যে কোনো বিশেষ করে বিসিএস পরীক্ষায়ও যেখানে নিয়োগের সংখ্যা ৩ হাজারের বেশি হয় না-সেসব নিয়োগেও ১৮ মাস সময় লেগে যায়।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ নভেম্বর, ২০২১ ইং
ফজর৫:০৭
যোহর১১:৫১
আসর৩:৩৬
মাগরিব৫:১৫
এশা৬:৩৩
সূর্যোদয় - ৬:২৭সূর্যাস্ত - ০৫:১০
পড়ুন