চাকরির বয়স ৩৫ করার আন্দোলনে পুলিশের বাধা
ইত্তেফাক রিপোর্ট১১ মার্চ, ২০১৮ ইং
চাকরির বয়স ৩৫ করার আন্দোলনে পুলিশের বাধা

সরকারী চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩০ বছর থেকে বাড়িয়ে ৩৫ করার দাবিতে আন্দোলনে পুলিশ বাধা দিয়েছে। আন্দোলনকারীদের মধ্যে ১৭ জনকে আটক করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন শাহবাগ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবুল হাসান জানিয়েছেন। আন্দোলনকারী চাকরি প্রার্থীরা তাদের দাবি সম্বলিত স্মারকলিপি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দিকে যাওয়ার সময় পুলিশ বাংলামটরে তাদের আটকে দেয়। এসময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বেধে যায়। পুলিশের লাঠিপেটায় অন্তত পাঁচ জন আহত হয়েছেন। আন্দলোনকারীরা বলেছেন, পুলিশের লাঠিপেটায় আহত তিন জনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের রমনা বিভাগের উপ কমিশনার মারুফ হোসেন সরদার বলেন, ছাত্ররা রাস্তা অবরোধ করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দিকে যাওয়ায় জনদুর্ভোগ তৈরি হয়েছিল। তাই তাদের ছত্রভঙ্গ করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সকাল ১১টার দিকে শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের ৫০০ থেকে ৬০০ শিক্ষার্থী চাকরিতে প্রবেশের বয়স বাড়ানোর দাবিতে অবস্থান নেন। ঘণ্টাখানেক সেখানে অবস্থানের পর দুপুর ১২টার দিকে তারা স্মারকলিপি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের দিকে যেতে চাইলে বাংলামোটরে পুলিশ তাদের আটকে দেয়। এসময় পুলিশ লাঠিপেটা করে কয়েকজনকে আটক করে।

স্মারকলিপিতে তাদের অভিযোগ ছিল, শিক্ষাজীবন শেষ করতেই একজন ছাত্রের প্রায় ২৮ বছর লেগে যায়। এর ফলে চাকরির প্রস্তুতি নিতে তারা মাত্র দুই থেকে তিন বছর সময় পান। ফলে অনেকেই সরকারী চাকরিতে যেতে পারছেন না।

কয়েকজন আন্দোলনকারী বলেন, তাঁদের শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে পুলিশ হামলা চালিয়ে অন্তত ১৭ জনকে ধরে নিয়ে যায়। এ সময় পুলিশের পিটুনি ঠেকাতে নারী আন্দোলনকারীরা সামনে এলে পুলিশ তাদেরও পিটুনি দেয় বলে অভিযোগ তাদের। শাহবাগ থানার ওসি বলেন, তারা শাহবাগে শান্তিপূর্ণভাবে সমাবেশ করলে পুলিশ কিছু বলেনি। কিন্তু যখন রাস্তা বন্ধ করে বাংলামটরের দিকে যাচ্ছিল তখন ব্যাপক জানজটের সৃষ্টি হয়। এ কারণে তাদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হয়েছে।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১১ মার্চ, ২০১৯ ইং
ফজর৪:৫৬
যোহর১২:০৯
আসর৪:২৭
মাগরিব৬:০৯
এশা৭:২১
সূর্যোদয় - ৬:১১সূর্যাস্ত - ০৬:০৪
পড়ুন