মানসম্পন্ন ওষুধ উত্পাদনে সরকার কঠোর অবস্থানে ----------স্বাস্থ্যমন্ত্রী
০৫ এপ্রিল, ২০১৮ ইং
মানসম্পন্ন ওষুধ উত্পাদনে সরকার কঠোর অবস্থানে ----------স্বাস্থ্যমন্ত্রী
বিশেষ প্রতিনিধি

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ভেজালমুক্ত ও মান সম্পন্ন ওষুধ উত্পাদনের ক্ষেত্রে সরকার সব সময় কঠোর অবস্থানে রয়েছে। ভেজাল ও নিম্নমানের ওষুধের বিষয়ে কোনো ধরনের আপস করা হবে না। ওষুধের সঠিক মানের সঙ্গে মানুষের জীবন মরণের প্রশ্ন জড়িত। যারা ভেজাল ও নিম্নমানের ওষুধ সরবরাহ ও বিক্রি করে তারা কোনোভাবেই ওই ওষুধ খেয়ে কোনো রোগীর মৃত্যুর দায় এড়াতে পারে না। 

গতকাল বুধবার রাজধানীর নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে মডেল ফার্মেসি উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ভালো মানের ওষুধ যারা তৈরি করছে, তাদেরকে সরকার সব সময় পৃষ্ঠপোষকতা করবে। আর যারা মানহীন ও ভেজাল ওষুধ তৈরি করে, তাদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে। এ সময় তিনি মানহীন ওষুধ উত্পাদনকারী প্রতিষ্ঠান, সরবরাহকারী চক্র ও ফার্মেসিগুলো কালো তালিকাভুক্ত করার জন্য ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের কর্মকর্তাদেরকে নির্দেশ দেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এক সময় বাংলাদেশ ওষুধ আমদানি করতো। কিন্তু আজ আমাদের ওষুধ শিল্প দেশের অভ্যন্তরীণ চাহিদা মিটিয়ে ১৫১টি দেশে ওষুধ রফতানি করছে। গত প্রায় ৯ বছর ধরে সরকারের অব্যাহত সহযোগিতার কারণে বাংলাদেশের ওষুধ খাত রফতানি বাড়িয়ে দেশের অর্থনীতিতে বিশাল অবদান রেখে চলেছে।

সম্প্রতি চুয়াডাঙ্গায় একটি বেসরকারি চক্ষু শিবিরে বিশজনের চোখ হারানোর জন্য দায়ী ক্লিনিক বন্ধ করা হবে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, এমন ঘটনা কখনো কাম্য নয়। এটি একটি অমানবিক কাজ। যারা আক্রান্ত হয়েছে তারা সবাই নিরীহ ও দরিদ্র মানুষ। দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান মোহাম্মদ নাসিম। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বহির্বিশ্বে মাথা উঁচু করে দাঁড়াচ্ছে জানিয়ে মোহাম্মদ নাসিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে স্বল্পোন্নত দেশের কালিমা মুছে উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি পেয়েছে। দেশের এখন এগিয়ে যাচ্ছে মধ্যম আয়ের দিকে। উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে পরিচিত পেয়েছে বাংলাদেশ। স্বাস্থ্য সেক্টরসহ দেশের সব ক’টি সেক্টরের উন্নয়ন আজ দৃশ্যমান। আগামী কয়েক মাসের মধ্যে দেড় হাজার ফার্মাসিস্টকে চাকরি দেওয়ার কথা জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান, নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের বোর্ড অফ ট্রাস্টির সদস্য এম এ হাসেম, উপ-উপাচার্য (দায়িত্বপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. গিয়াস ইউ আহসান, ফার্মাসিউটিক্যাল সায়েন্স ডিপার্টমেন্টের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. হাসান মাহমুদ রেজা, ইনসেপ্টা ফার্মাসিউটিক্যালস-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আব্দুল মোক্তাদির, ফার্মেসী কাউন্সিল অব বাংলাদেশের ভাইস প্রেসিডেন্ট এম মোসাদ্দেক হোসেন প্রমুখ।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৫ এপ্রিল, ২০২১ ইং
ফজর৪:৩০
যোহর১২:০২
আসর৪:৩০
মাগরিব৬:১৯
এশা৭:৩২
সূর্যোদয় - ৫:৪৭সূর্যাস্ত - ০৬:১৪
পড়ুন