জার্মানদের ‘বদভ্যাস’ টাকা জমানো!
ইত্তেফাক ডেস্ক১২ নভেম্বর, ২০১৮ ইং
জার্মানদের ‘বদভ্যাস’ টাকা জমানো!

সাশ্রয়ী, না কৃপণ? কীভাবে দেখবেন জার্মানদের? জার্মানভিত্তিক একটি গণমাধ্যমের সাংবাদিক কেট ফার্গুসন এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে খুঁজে পেয়েছেন ইউরোপের এই জাতি সম্পর্কে বেশ কিছু অভিনব তথ্য। কয়েক শতাব্দী ধরেই জার্মানদের নামের সঙ্গে জুড়েছে টাকা জমানোর ‘বদভ্যাস’ এর তকমা।  কিন্তু ঠিক কেন এই অভ্যাস? উত্তর খুঁজতে ফার্গুসন যান বার্লিনে অবস্থিত জার্মানির ঐতিহাসিক জাদুঘরে। সেখানে তিনি দেখা করেন ‘সাশ্রয় একটি জার্মান বৈশিষ্ট্যের ইতিহাস’ শিরোনামের একটি প্রদর্শনীর তত্ত্বাবধায়ক রবার্ট মুশালার সঙ্গে।

মুশালা জানালেন, টাকা জমানো জার্মানীদের একটি ঐতিহাসিক ধারা, যা সময়ের সঙ্গে সঙ্গে জার্মান সংস্কৃতির মধ্যেই মিশে গেছে।  তার মতে জার্মানদের কাছে সাশ্রয় এক ধরনের সামাজিক নিয়ন্ত্রণ বজায় রাখার কৌশল।  এই প্রদর্শনীটিও তিনি এই বিশ্বাসেই সাজিয়েছেন।

খরচ কমানোর এই জার্মান স্বভাবের উত্স ইউরোপে শিল্পায়নের ইতিহাসে রয়েছে। ইউরোপে শিল্পায়নের গোড়ার দিকে জনসংখ্যা বাড়ার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়তে থাকে দারিদ্র্য। এই সময়ে ব্যাংকগুলোকে এই সমস্যার সমাধান হিসেবে তুলে ধরা হয়।  শুরু হয় শ্রমিকদের নিজেদের উপার্জনের একটি অংশ আলাদা সরিয়ে রাখার চর্চা। বিশেষজ্ঞরা মনে করেন, এই চর্চার ফলে শ্রমিকদের মধ্যে নৈতিক উন্নতি দেখা দেয় ও তাদের বিদ্রোহের সম্ভাবনাও কমতে থাকে। যুক্তি হিসাবে তিনি জার্মান শ্রমিকদের সঙ্গে ফরাসি শ্রমিকদের তুলনা করে বলেন, ‘ফ্রান্সে শ্রমিক মানেই বিদ্রোহী, কথায় কথায় আন্দোলন বিক্ষোভে নেমে পড়া। অথচ জার্মানিতে রয়েছে আলোচনার মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের প্রবণতা। ওরা দাঙ্গা বিক্ষোভে হাতে অস্ত্র তুলে নেয়, বিপরীতে জার্মান কর্মীরা ব্যাংকে টাকা জমায়।’

আরেকটি মজার তথ্য হচ্ছে, চলতি বছরের শেষে ২৯৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার মূল্যের অর্থ বাড়তি রয়ে গেছে জার্মানির কারেন্ট অ্যাকাউন্টে, যা বিশ্বের যে কোনো দেশের তুলনায় বেশি।

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১২ নভেম্বর, ২০১৯ ইং
ফজর৪:৫৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৩৯
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩২
সূর্যোদয় - ৬:১১সূর্যাস্ত - ০৫:১২
পড়ুন