জাতীয়তাবাদ প্রত্যাখ্যান করে শান্তির জন্য লড়ুন
প্রথম বিশ্বযুদ্ধ সমাপ্তির শত বছর পূর্তিতে বিশ্ব নেতাদের প্রতি ম্যাক্রঁ
ইত্তেফাক ডেস্ক১২ নভেম্বর, ২০১৮ ইং
ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রঁ জাতীয়তাবাদ প্রত্যাখান করে শান্তির জন্য লড়াই করতে বিশ্ব নেতাদের প্রতি আহবান জানিয়েছেন। গতকাল রবিবার প্রথম বিশ্বযুদ্ধ অবসানের শত বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে এক অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রঁ এই আহবান জানান। অনুষ্ঠানের ফাঁকে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে হাত মেলান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। তবে প্রথম বিশ্বযুদ্ধে নিহত মার্কিন সৈন্যদের শ্রদ্ধা না জানানোয় সমালোচনার শিকার হচ্ছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। খবর রয়টার্স ও সিএনএনের

প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রঁ ৭০ বিশ্ব নেতাদের অনুষ্ঠানে বলেন, আমরা একে অপরের বিরুদ্ধে ভয়ের খেলা না খেলে আশা জাগ্রত করি। শান্তির জন্য লড়াই করি।’ এর আগে ফ্রান্সেস ফলেনের আর্ক ডি ট্রিয়ম্ফিতে নাম জানা এক সৈন্যের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানান বিশ্ব নেতারা। নেতৃত্ব দেন ম্যাক্রঁ। বৃষ্টির কারণে নেতাদের মাথার ওপরে ছিল কালো রংয়ের ছাতা। ম্যাক্রঁ তার ২০ মিনিটের ভাষণে অতীতকে না ভুলতে নেতাদের প্রতি আহবান জানান। তিনি বলেন, এখনকার প্রত্যাখান, সহিংসতা এবং নিয়ন্ত্রণের রীতি চলতে থাকলে বড় ভুল হবে এবং ভবিষ্যত প্রজন্মকে এজন্য ভুগতে হবে। তিনি জাতীয়তাবাদকে স্বদেশপ্রেমের সঙ্গে প্রতারণা বলে উল্লেখ করেন। অনুষ্ঠান থেকে কিছু দূরে বিশ্ব নেতাদেরকে ভুয়া শান্তির ধারক উল্লেখ করে প্রতিবাদ করেন কিছু অর্ধনগ্ন নারী। ফ্রান্স ছাড়াও বিশ্বের বিভিন্ন স্থানে দিবসটি যথাযোগ্য মর্যাদায় পালিত হয়। প্রথম বিশ্বযুদ্ধে ৯৭ লাখ সৈন্য এবং এক কোটি বেসামরিক নাগরিক নিহত হয়। ১৯১৪ সাল থেকে ১৯১৮ সাল পর্যন্ত যুদ্ধ স্থায়ী ছিল।

প্রেসিডেন্ট মার্কিন সৈন্যদের উদ্দেশে নির্মিত স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নানা জানানোর কারণে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়েছে। জবাবে হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, খারাপ আবহাওয়ার কারণে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প শ্রদ্ধা জানাতে পারেননি। পরিবর্তে হোয়াইট হাউসের চিফ অব স্টাফ জন কেলিসহ অন্যরা শ্রদ্ধা জানান।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
১২ নভেম্বর, ২০১৯ ইং
ফজর৪:৫৩
যোহর১১:৪৩
আসর৩:৩৯
মাগরিব৫:১৭
এশা৬:৩২
সূর্যোদয় - ৬:১১সূর্যাস্ত - ০৫:১২
পড়ুন