বিড়ালের গলায় ঘণ্টা পরাবে কে?
২৬ নভেম্বর, ২০১৭ ইং
যদি আমরা পঞ্চম শ্রেণি পড়ুয়া ১১ অথবা ১২ বছরের একটা বাচ্চার হাতে পরীক্ষার আগের রাতে প্রশ্ন তুলে দেই, তাহলে ভাবুন আমাদের দেশের ভবিষ্যত্ কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে? এরা তো বড়দের চেয়েও বড় অপরাধ করবে। কথা হলো, এরা প্রশ্ন পাচ্ছে কিভাবে? নিশ্চয়ই তারা নিজেরা জোগাড় করার ক্ষমতা রাখে না। সেইসব বাবা-মায়ের প্রতি ধিক্কার জানাতেও লজ্জা হয়। সন্তান মানুষ করার পরিবর্তে এই ধরনের অপরাধ শিখিয়ে দেওয়া হচ্ছে এই বয়সেই! আমাদের ভবিষ্যত্ প্রজন্মকে মেধাশূন্য করার প্রচেষ্টায় দুষ্কৃতিকারীরা সফল। প্রশ্নপত্র ফাঁস নিয়ে এত কথা হচ্ছে, এত সমালোচনা হচ্ছে—কিন্তু বন্ধ তো হচ্ছেই না বরং দিনদিন এ অপরাধ বেড়েই চলেছে। সবাই বুঝতে পারছে যে এর ভবিষ্যত্ খুবই খারাপ এবং এখনি এই গর্হিত কাজের প্রতিরোধ করা জরুরি। কিন্তু বিড়ালের গলায় ঘণ্টা পরানোর মতো প্রশ্নটা থেকেই যায়—কাজটা করবে কে? এর শেষ কোথায়?

মাহবুব নাহিদ

পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়

 

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
২৬ নভেম্বর, ২০২১ ইং
ফজর৫:০১
যোহর১১:৪৬
আসর৩:৩৫
মাগরিব৫:১৪
এশা৬:৩০
সূর্যোদয় - ৬:২০সূর্যাস্ত - ০৫:০৯
পড়ুন