সুরক্ষার নাম ‘প্রীতিলতা ব্রিগেড’
নুজহাতুল হাসান০৮ আগষ্ট, ২০১৬ ইং
সুরক্ষার নাম ‘প্রীতিলতা ব্রিগেড’
আধুনিক সমাজ ব্যবস্থায় মানুষের অত্যাধুনিক জীবন-যাপন সভ্যতায় এক ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে। মানুষের জীবনের নিরাপত্তায় এসেছে উন্নত ও অত্যাধুনিক কলাকৌশল। তবে এক্ষেত্রে নারীর জীবন যেন পুরোটাই বিপরীতে। আজও নারী সমাজে সেই বর্বর যুগের মতই অরক্ষিত নারীর নিরাপত্তা সেকেলে। প্রতিনিয়ত নারী ধর্ষিত, লাঞ্ছিত ও সহিংসতার শিকার হচ্ছে। সমাজ নারীর নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ, কি কর্মক্ষেত্রে কি গৃহে। নারী তার নিজ দক্ষতা, যোগ্যতা ও মেধায় যেভাবে সমাজে নিজের অবস্থান সুউচ্চ করেছে তেমনিভাবে নারী অন্যের উপর ভরসা না করে নিজেই নিজের নিরাপত্তা দিবে ভবিষ্যতে। তাইতো নারী প্রস্তুত হচ্ছে-বলছিলেন ‘প্রীতিলতা ব্রিগেডের’ অন্যতম উদ্যোগতা ও আহবায়ক লাকী আক্তার।

নারীর নিরাপত্তা নারী নিজেই দিবে সে লক্ষ্যেই প্রীতিলতা ব্রিগেড গঠনের উদ্যোগ। লাকী আক্তারকে আহবায়ক করে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয় ‘প্রীতিলতা ব্রিগেড’ পরিচালনার জন্য। গত বছর পহেলা বৈশাখের সেই নির্মম ও নির্লজ্জ ঘটনা থেকেই সমাজে নারীর নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। সেই থেকেই সমাজের সচেতন নারীরা নিজেদের নিরাপত্তার বিষয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠেন।

তবে লাকী আক্তারদের চিন্তাটা ছিল ব্যতিক্রম। শুরুটা ২৮ এপ্রিল ২০১৫ দিকে। মেয়েদের নিজেদের আত্মরক্ষায় উত্সাহিত ও সাহস যোগাতে প্রথমে সাঁতার ও সাইকেল শেখানো হয়। পাশাপাশি সংগঠনকে গড়ে তুলতে বিভিন্ন সাংগঠনিক কাজ করা হয়। ৮ এপ্রিল ২০১৬ মেয়েদের আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণের মূল কার্যক্রম শুরু হয়। সারা দেশে শতাধিক মেয়েদের অংশগ্রহণে চলছে প্রীতিলতা ব্রিগেডের কার্যক্রম। তবে সংগঠনের কেন্দ্রীয় টিমের প্রশিক্ষণ  হয় রমনা পার্কে প্রতি শুক্রবার সকাল ৮টায়। প্রশিক্ষক হিসেবে অত্যন্ত আন্তরিকতার সাথে কাজটি করেন মার্শাল আর্টে ব্ল্যাকবেল্ট অর্জনকারী ওস্তাদ আতিক মোর্শেদ। তিনি নারীদেরকে আত্মরক্ষার জন্য বিভিন্ন কলাকৌশল শিক্ষা দেন যাতে নারীরা যে কোনো অপ্রীতিকর পরিস্থিতিতে নিজেকে রক্ষা করতে পারে।

‘প্রীতিলতা ব্রিগেড’ ৩টি ধাপে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করে থাকে। প্রথম ধাপ অধ্যয়ন, এতে শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার ব্যাপারে উত্সাহ ও সহযোগিতা করা হয়। ২য় ধাপে এখানে মেয়েদের আত্মরক্ষার জন্য নানান কলাকৌশল শেখানো হয়। ৩য় ধাপে মেয়েদেরকে মানসিকভাবে দৃঢ় হতে সাহায্য করা হয়। চলতি মাস থেকে সারা বাংলাদেশের স্কুল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সদস্য সংগ্রহ করবে ‘প্রীতিলতা ব্রিগেড’।

মেয়েদেরকে আত্মরক্ষার কৌশল রপ্তের মাধ্যমে নিরাপত্তার বিষয়টি নিশ্চিত করা সম্ভব। এতে মেয়েরা আরো বেশি সচেতন ও সাহসী হবে বলে মনে করেন লাকী আক্তার। তিনি আরো জানান, এ সকল মেয়েরা প্রশিক্ষণ শেষে বিভিন্ন ক্যাম্প করে অন্য মেয়েদেরকেও প্রশিক্ষণ দিবে। প্রাথমিকভাবে শিক্ষার্থীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হলেও ভবিষ্যতে কর্মজীবী মহিলাদেরকেও আত্মরক্ষার প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে বলে তিনি জানান। সাম্প্রতিককালে মেয়েদের সহিংসতার ঘটনা লক্ষণীয়ভাবে বেড়ে যাওয়ায় এবং সরকার এদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হওয়া, এমনকি এ সকল অপকর্মের সাথে জড়িতরাও থেকে যাচ্ছে ধরা ছোঁয়ার বাইরে। তাই নারীর নিরাপত্তা দিতে নারীদেরই এ উদ্যোগ নিতে হয়েছে। নারী সমাজ প্রগতির লড়াইয়ে যাতে নির্বিঘ্নে এগিয়ে যেতে পারে, সমাজে নিরাপদে বসবাস করতে পারে, সে জন্যই এ উদ্যোগ বলে জানান অগ্নিকন্যা লাকী আক্তার।

এই পাতার আরো খবর -
facebook-recent-activity
৮ আগষ্ট, ২০১৯ ইং
ফজর৪:০৯
যোহর১২:০৫
আসর৪:৪১
মাগরিব৬:৪০
এশা৭:৫৯
সূর্যোদয় - ৫:৩১সূর্যাস্ত - ০৬:৩৫
পড়ুন